বাণিজ্য সময় উৎপাদনের সুফল নিশ্চিতে দরকার শক্তিশালী বিপণন কাঠামো ও সংরক্ষণাগার

১৪-১২-২০১৭, ০৭:৪০

বাণিজ্য সময় ডেস্ক

fb tw
স্বাধীনতার ৪৬ বছরে বাংলাদেশ। এই পথচলায় ক্ষুধা-দারিদ্র পেরিয়ে খাদ্যশস্য চাল উৎপাদনে স্বয়ংসম্পূর্ণ হয়েছে লাল-সবুজের ছোট্ট এই দেশ। উৎপাদন বেড়েছে শিল্পখাতেরও নানা পণ্যের। তবে উদ্যোক্তা ও অর্থনীতিবিদদের অভিযোগ, এখনও গড়ে ওঠেনি শক্তিশালী বিপণন কাঠামো ও সংরক্ষণাগার। এতে পণ্য উৎপাদনের সুফল থেকে বঞ্চিতও হতে হচ্ছে বাংলাদেশকে।
৯ মাসের স্বাধীনতা যুদ্ধ জয়ের পর শুরু হয় দেশ গড়ার সংগ্রাম। কৃষকের পরম মমতায় সুজলা-সুফলা হতে থাকে বাংলার মাটি। বিশাল অভাবকে পাশে রেখে বাড়তে থাকে খাদ্য শস্যের উৎপাদন। এরপর নানা সময়ে খরা, বন্যা, জলোচ্ছ্বাস সত্ত্বেও চার দশকের মধ্যেই খাদ্যে, বিশেষ করে চাল উৎপাদনে স্বয়ংসম্পূর্ণ হয় ১৬ কোটি জনসংখ্যার বাংলাদেশ। সফলতা এসেছে ডাল, গম, আলুসহ নানা জাতের সবজি উৎপাদনেও। তবে এসব উৎপাদনের সুফল নিশ্চিত হয়নি মাঠ ও বাজার কোনো জায়গাতেই।
কৃষকরা বলেন, নানা প্রতিকূলতার মধ্যেও যখন ফসল ফলিয়ে ভালো লাভ পাওয়া যায় না তখন খুবই কষ্ট করে জীবন ধারণ করতে হয়। পাইকারি ব্যবসায়ীদের কোনো ক্ষতির সম্মুখীন হতে হয় না। কারণ তারা ২০ টাকা দিয়ে কোনো পণ্য ক্রয় করলে তা ৩০ টাকায় বিক্রি করে।
বাজার বিশ্লেষক আহসান এইচ মনসুর বলেন, আমাদের দেশে কৃষিপণ্যের মূল সমস্যা হচ্ছে উৎপাদন ও সংরক্ষণের মধ্যে সামঞ্জস্যের অভাব। যখন কোনো পণ্য উৎপাদিত হয় তখন তা সংরক্ষণের অভাবে পচে যায়। দামও অনেক কমে যাওয় কৃষকরা ক্ষতির সম্মুখীন হন। অন্যদিকে যখন ওই পণ্য শেষ হয়ে যায় তখন কারও কাছেই না থাকায় দাম অনেক বেশি হয়।
কৃষির ওপর ভর দিয়েই গেল শতকের ৮০'র দশকে বাড়তে থাকে শিল্পায়ন। শিল্পখাতের উন্নয়নে জিডিপি প্রবৃদ্ধি অর্জনে বাংলাদেশ হয়েছে রোল মডেল। তবে শিল্প পণ্যের বিপণন কাঠামো থেকে গেছে নাজুক অবস্থাতেই। উদ্যোক্তাদের অভিযোগ, পণ্য উৎপাদনের পথে সবচেয়ে বড় বাধা সুনির্দিষ্ট বাজার ব্যবস্থার অভাব।
সাফিয়া শামা ও এ কে আজাদ বলেন, নিশ্চিত বাজার ব্যবস্থার অভাবে অনেক উদ্যোক্তাই আগ্রহী হয়ে ওঠেন না। বাজার ব্যবস্থা ঠিক হলে অনেকেই উদ্যোগী হয়ে উঠবেন।
অর্থনীতিবিদরা বলছেন, স্বাধীনতার সাড়ে চার দশক পর হলেও মনোযোগ দিতে হবে শক্তিশালী বাজার ব্যবস্থা গড়ে তুলতে। আর এই কাঠামো বিন্যাসে অবশ্যই যেন সবচেয়ে বেশি গুরুত্ব পায় ক্ষুদ্র ও মাঝারি উদ্যোক্তারা।
ড. নাজনীন আহমেদ বলেন, মাঠ পর্যায়ের কৃষকদের সঙ্গে বাজারজাতকারীদের সরাসরি সংযোগ হলেই এ সমস্যার সমাধান হবে।
বিশ্লেষকরা বলছেন, বিপণন কাঠামো শক্তিশালী হলে শুধু পণ্য উৎপাদনের সুফলটাই পাওয়া যাবে না, সেই সঙ্গে মুক্তবাজার অর্থনীতিতেও অনেকটাই সম্ভব হবে বাজারের নিয়ন্ত্রণ নেয়া।
/এমএইচ

করোনা ভাইরাস লাইভ

বাংলার সময়
বাণিজ্য সময়
বিনোদনের সময়
খেলার সময়
আন্তর্জাতিক সময়
মহানগর সময়
অন্যান্য সময়
তথ্য প্রযুক্তির সময়
রাশিফল
লাইফস্টাইল
ভ্রমণ
প্রবাসে সময়
সাক্ষাৎকার
মুক্তকথা
বাণিজ্য মেলা
রসুই ঘর
বিশ্বকাপ গ্যালারি
বইমেলা
উত্তাল মার্চ
সিটি নির্বাচন
শেয়ার বাজার
জাতীয় বাজেট
বিপিএল
শিক্ষা সময়
ভোটের হাওয়া
স্বাস্থ্য
ধর্ম
চাকরি
পশ্চিমবঙ্গ
ফুটবল বিশ্বকাপ
ভাইরাল
সংবাদ প্রতিনিধি
বিশ্বকাপ সংবাদ
Latest News
এক্সক্লুসিভ লাইভ
বিপিএল ২০২০

করোনা ভাইরাস লাইভ

আপনিও লিখুন
ছবি ভিডিও টিভি আর্কাইভ
মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন
GoTop