মুক্তকথা এদেশে ক্রিকেট কেবল একটি খেলাই নয়

২৬-১০-২০১৭, ১৯:৪৯

মামুন শেখ

fb tw
এদেশে ক্রিকেট কেবল একটি খেলাই নয়
গত ২২ অক্টোবর দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে বাংলাদেশের তৃতীয় ওয়ানডের দিন গিয়েছিলাম এক বন্ধুর বাসায়। বাসায় ঢুকে দেখি দক্ষিণ আফ্রিকার ব্যাটিং শেষ। বাংলাদেশের টার্গেট ৩৭০। এক গামলা মুড়ি মাখিয়ে আমরা তিন জন (বন্ধু, তার স্ত্রী এবং আমি) বসে গেলাম বাংলাদেশের ব্যাটিং দেখতে। তিনজনই ক্রিকেটের ভক্ত। টেস্টের পর প্রথম দুই ওয়ানডেতে যেভাবে হেরেছি তাতে এই বিশাল টার্গেটের বিপরীতে খুব বেশি প্রত্যাশা নেই কারোরই। তবে মোটামুটি ভালো কিছু দিয়েই সিরিজটা শেষ করার আশা করছিলাম।
কিন্তু একি! দক্ষিণ আফ্রিকান বোলারদের ঝড়ে বৈশাখে আম ঝরার মতো ঝরতে লাগলো সৌম্য, ইমরুলদের উইকেট। মাত্র ১৬৯ রানেই অলআউট। ২০০ রানের বিশাল হার।
আসলে প্রথম তিন চারটা উইকেট পড়ার পর খেলা দেখার চেয়ে মুড়ি খাওয়াতেই আমরা মনোযোগ দিলাম। আমার বন্ধু গনগন করে বলতে লাগলো, এদের যে কে জাতীয় দলে চান্স দেয়! সবকটাকে খাইয়ে খাইয়ে ষাঁড় বানাচ্ছে। অকর্মা সবগুলো। ক্রিকেটারদের বেতন বৃদ্ধিরও 'তীব্র' সমালোচনা তার মুখে। বন্ধুর মন্তব্যের জবাবটা আসলো তার স্ত্রীর দিক থেকেই। 'কেন, জিতলে তো খুব ভালো। হারলে এমন করো ক্যান। দুই একটা ম্যাচতো হারতেই পারে।'
মনে পড়লো ২০১৫ সালে শের-ই-বাংলায় এই দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষেই দ্বিতীয় ওয়ানডের দিনের কথা। সেদিন ফ্যানের বাতাসে মুড়িগুলো যে নরম হয়ে যাচ্ছে সেদিকে খেয়াল ছিলো না কারো। সব মনোযোগ কেড়ে নিয়েছিলো সৌম্য আর মাহমুদুল্লাহ'র ব্যাট। বৃষ্টি আইনে ৭ উইকেটে জিতে সিরিজে সমতা এনেছিলো বাংলাদেশ। সেদিন সবচেয়ে বেশি উচ্ছ্বাস দেখিয়েছিলো আমার বন্ধুটিই।
সমালোচনা, রাগ ক্ষোভ এগুলো মনে করি, খেলোয়াড়দের প্রতি ভালোবাসারই একধরণের বহিঃপ্রকাশ। তবে কিছু লোক আছেই যারা সবকিছুর ভেতরেই নেতিবাচক বিষয় খোজার চেষ্টা করেন। এমনকি কোন ম্যাচ জেতার পরেও ফেসবুকে অনেককেই এমন মন্তব্য করতে দেখেছি, ‘আরে একটা ম্যাচ জিতে এমন লাফালাফির কি আছে। পরেরটাই তো গো হারা হারবে।‘ হাজারটা ম্যাচ জিতলেও তারা এমন কিছু না কিছু বলবেই। মনে হয়, এই লোকগুলোই ক্রিকেটারদের এবং তাদের পরিবারের সদস্যদের নিয়ে বাজে মন্তব্য করে। আশা করি, তাদের মানসিকতার পরিবর্তন ঘটবে। ক্রিকেট যতটা শারীরিক তার চেয়ে বেশি মানসিক খেলা। এখানে এক ধরণের দেয়া-নেয়া সিস্টেম আছ। আমরা ক্রিকেটারদের সমর্থন দেবো আর তারা আমাদের দেবে উদযাপনের উপলক্ষ্য।
গ্রামের চায়ের দোকানে দেখেছি, খেলার দিনে টিভির সামনে পড়া ভিড়। ভিড় ঠেলে সামনে এসেছেন এক বৃদ্ধ। দুরের ছোট টিভি পর্দার স্কোর দেখতে চশমার পাওয়ারও এখন আর  যথেষ্ট নয়। ভ্রু কুচকে পর্দায় তীক্ষ্ণ দৃষ্টি রেখে তাঁর জিজ্ঞাসা, রান কতো হলো? তামিম কি আছে না আউট হয়ে গেলো? এখনো আছে, আউট হয়নি। উত্তর শুনতেই বৃদ্ধের আত্মবিশ্বাসী জবাব, তাহলে আজ জিতবো।
ওই লোকটার কাছে ক্রিকেট শুধু একটা খেলাই নয়। কারণ, হাডুডু খেলে আর ফুটবল দেখে বড় হওয়া লোকটা হয়তো ভদ্রলোকদের এই খেলাটা ভালোভাবে বোঝেই না। তবে সে জানে, মাঠে সাকিব-তামিমরা ভারত, পাকিস্তান কিংবা ইংল্যান্ডের মতো দেশকে হারিয়ে দিচ্ছে।
পাঁচ-সাত বছর আগেও পাড়ার ছেলেরা মিলে যখন কোন বাড়িতে টিভিতে খেলা দেখতে গেছি, বাড়ির কর্ত্রী ঘরের মধ্যে এতোগুলো ছেলেকে দেখে রাগে গর্জে উঠেছেন, সারাদিন টিভিতে কি ছাই পাশ দেখিস? মাঝে মাঝে মুখের ওপর বন্ধও করে দিয়েছে টিভিটা। আজ তিনিই জিজ্ঞাসা করেন, কার সাথে খেলা? জিতবে তো?
আসলে ওই মাও বোঝে না খেলাটা। তবে সে জানে ছেলেরা লড়ছে পরাশক্তিকে পরাভূত করতে।
দক্ষিণ আফ্রিকার পচেফস্ট্রুম, ব্লুমফন্টেই কিংবা পার্থে দেখেছি, বাংলাদেশি সমর্থকদের সরব উপস্থিতি। একের পর এক হারের পরেও তারা এসেছেন। ইমরুল-সাব্বিরদের এক একটি রান কিংবা রুবেল তাসকিনদের এক একটি উইকেটে গলা ফাটিয়েছেন। বিদেশ বিভূঁইয়ে উড়িয়েছেন দেশের পতাকা। তাদের গগনবিদারী শ্লোগানে চাপা পড়েছে প্রোটিয়াদের জয়োল্লাসও।
শত বিভাজনের মধ্যেও জাতিকে এক কাতারে দাঁড় করায় এই ক্রিকেটই। আবার মুদ্রার উল্টো পিঠও আছে। ধরা যাক-ভারত আর পাকিস্তানের সমর্থকদের কথা। শ্রেষ্ঠত্ব মাপতে যুক্তির ঝুড়ি নিয়ে হাজির দুই পক্ষই। তবে এই চিত্রও দ্রুতই বদলে যাবে।  যাচ্ছেও তাই। জোয়ারটা এখন স্বদেশমূখী। মাশরাফিদের এক একটি জয়ে সমস্বরে আওয়াজ ওঠে ‘বাংলাদেশ বাংলাদেশ’। ভূমিকম্প হয় শের-ই বাংলায়। এই কম্পনে কেপে উঠুক ফুটবল থেকে হকি, কাবাডি থেকে হ্যান্ডবল- গোটা ক্রীড়াঙ্গন। এই জ্বরে কাঁপুক গোটা জাতি। এমন উন্মাদনায় উন্মাদ হতে দোষ কি?
লেখক: সাংবাদিক

করোনা ভাইরাস লাইভ

বাংলার সময়
বাণিজ্য সময়
বিনোদনের সময়
খেলার সময়
আন্তর্জাতিক সময়
মহানগর সময়
অন্যান্য সময়
তথ্য প্রযুক্তির সময়
রাশিফল
লাইফস্টাইল
ভ্রমণ
প্রবাসে সময়
সাক্ষাৎকার
মুক্তকথা
বাণিজ্য মেলা
রসুই ঘর
বিশ্বকাপ গ্যালারি
বইমেলা
উত্তাল মার্চ
সিটি নির্বাচন
শেয়ার বাজার
জাতীয় বাজেট
বিপিএল
শিক্ষা সময়
ভোটের হাওয়া
স্বাস্থ্য
ধর্ম
চাকরি
পশ্চিমবঙ্গ
ফুটবল বিশ্বকাপ
ভাইরাল
সংবাদ প্রতিনিধি
বিশ্বকাপ সংবাদ
Latest News
এক্সক্লুসিভ লাইভ
বিপিএল ২০২০

করোনা ভাইরাস লাইভ

আপনিও লিখুন
ছবি ভিডিও টিভি আর্কাইভ
মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন
GoTop