আন্তর্জাতিক সময় আমরা বিজয়ী, যুক্তরাষ্ট্র পরাজিত: তালেবান

১৫-০৪-২০২১, ১৭:২৮

ওয়েব ডেস্ক

fb tw
আমরা বিজয়ী, যুক্তরাষ্ট্র পরাজিত: তালেবান
04
আফগানিস্তানের বালখ শহরের তালেবানের ছায়া মেয়র হাজি হেকমত দাবি করেছেন, যুদ্ধে আমরা বিজয়ী হয়েছি, যুক্তরাষ্ট্র পরাজিত হয়েছে। সম্প্রতি মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন আফগানিস্তান থেকে সেনা প্রত্যাহারের ঘোষণার পর এমন দাবি করেন তিনি।
প্রায় দুই দশক ধরে চলা যুদ্ধ পরবর্তী আফগানিস্তানকে তুলে ধরতে বিবিসির সাংবাদিক সেকান্দার কেরমানি ও মাহফুজ জুবাইদ শহরটিতে গিয়ে এ তালেবান নেতার সঙ্গে কথা বলেন।
বিবিসির প্রতিবেদনে তারা জানান, গাড়িতে তালেবাননিয়ন্ত্রিত অঞ্চলে ঢুকতে খুব বেশি সময় লাগেনি। আফগানিস্তানের উত্তরাঞ্চলীয় শহর মাজার-ই-শরিফ থেকে মোটামুটি আধঘণ্টা দূরে। সড়কে পাশে বোমা বিস্ফোরণের বড় বড় গর্ত পেরিয়ে আমরা কাঙ্ক্ষিত মানুষটিকে পেয়ে গেলাম: বালখ শহরের তালেবানের ছায়া মেয়র হাজি হেকমত।
হাজি হেকমতের বিবরণ দিতে গিয়ে তারা বলেন, তার মাথায় কালো পাগড়ি, সুগন্ধী এসে নাকে লাগছিল। তালেবান প্রবীণ সদস্যদের একজন তিনি। ১৯৯০-এর দশকে যখন আফগানিস্তানের অধিকাংশ অঞ্চলে তালেবানের শাসনে তখন তিনি এই গোষ্ঠীতে যোগ দেন। তালেবান আমাদের সামনে তাদের শক্তি প্রদর্শনের আয়োজন করে।
ভারী অস্ত্রসজ্জিত লোকজন সড়কের ওপর পাশে সারিবদ্ধ দাঁড়িয়ে। একজনের কাছে রকেটচালিত গ্রেনেড লাঞ্চার, আরেকজন মার্কিন বাহিনীর কাছ থেকে জব্দ করা এম৪ অ্যাসল্ট রাইফেল বহন করছিলেন।
একসময় দেশটির সবচেয়ে স্থিতিশীল অঞ্চলের একটি ছিল বালখ। কিন্তু এখন তা সহিংসতায় পরিপূর্ণ।
বর্বরতার জন্য কুখ্যাত স্থানীয় সামরিক কমান্ডার বারইয়ালি সড়কের দিকে ইঙ্গিত করে বলেন, সরকারি বাহিনীর অবস্থান কেবল মূল মার্কেটের কাছে। কিন্তু নিজেদের ঘাঁটি থেকে তারা নড়তে পারছে না। এই অঞ্চলটি মুজাহিদিনের নিয়ন্ত্রণে।
আফগানিস্তানের অধিকাংশ অঞ্চলে একই দৃশ্য দেখা যায়, বড় বড় শহর ও নগরগুলো সরকারের নিয়ন্ত্রণে, কিন্তু গ্রামীণ অঞ্চলগুলোতে নিজেদের উপস্থিতি দিয়ে তাদের ঘিরে রেখেছে তালেবান।
গুরুত্বপূর্ণ শহরগুলোতে বিক্ষিপ্ত তল্লাশিচৌকিতে নিজেদের কর্তৃত্ব জারি রেখেছে তারা। সড়কে ধাবমান গাড়ি থামিয়ে যখন তালেবান সদস্যরা যাত্রীদের জেরা করছিলেন, তখন স্থানীয় তালেবান গোয়েন্দা সংস্থার প্রধান আমির শিহাব আজমল বলেন, সরকারের সঙ্গে যোগশাজস আছে, তারা এমন লোকদের খুঁজে বের করছেন।
তিনি আরও বলেন, আমরা তাদের গ্রেফতার করব, কারাগারে ভরব। এরপর আদালতের কাঠগড়ায় তাদের দাঁড় করাব, সেখান থেকেই তাদের ভাগ্য নির্ধারিত হবে।
তালেবানের বিশ্বাস, জয় তাদেরই। এককাপ সবুজ চা নিয়ে বসে হাজি হিকমত ঘোষণা করেন, যুদ্ধে আমরা জয়ী, যুক্তরাষ্ট্র পরাজিত।
মার্কিন বাহিনীর বাকি সদস্যদের প্রত্যাহারে আগামী সেপ্টেম্বর পর্যন্ত বিলম্ব করার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন। এর অর্থ হচ্ছে, সেনাপ্রত্যাহারে গত বছরে সম্মত হওয়া সময়সীমা ১ মের পরও আফগানিস্তানে মার্কিন সেনা থাকছে।
এতে তালেবানের রাজনৈতিক নেতাদের কাছ থেকে কড়া প্রতিক্রিয়া এসেছে। তথাপি সময়ের গতিবেগ তালেবানের সঙ্গে রয়েছে বলেই ধরে নেওয়া হয়েছে।
আমরা যে কোনো কিছুর জন্য তৈরি, বললেন হাজি হেকমত। শান্তির জন্য আমরা সম্পূর্ণ প্রস্তুত, সমানতালে জিহাদের জন্যও।
গেল বছরে তালেবানের জিহাদের মধ্যে স্পষ্ট পরস্পরবিরোধিতা ছিল। যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে চুক্তি সইয়ের পর আন্তর্জাতিক বাহিনীর ওপর হামলা বন্ধ করে দিয়েছিল তারা। কিন্তু আফগান সরকারি বাহিনীর সঙ্গে তাদের লড়াই অব্যাহত ছিল।
এই পরস্পরবিরোধিতার কথা অস্বীকার করেন হাজি হিকমত। তিনি বলেন, আমরা শরিয়াচালিত একটি ইসলামী সরকার চাই। আমাদের দাবি মেনে না-নেওয়া পর্যন্ত জিহাদ চলবে।
অন্যান্য রাজনৈতিক দলের সঙ্গে তালেবান ক্ষমতার ভাগাভাগি করবে কিনা-জানতে চাইলে হাজি হিকমত কাতারে অবস্থান করা রাজনৈতিক নেতাদের কথা বলেন। তিনি জানান, তারা যে সিদ্ধান্ত নেবেন, আমরা তা-ই মেনে নেব।
তালেবান নিজেদের কেবল একটি বিদ্রোহী গোষ্ঠী হিসেবেই দেখছে না, দেশটির সরকার গঠনের অপেক্ষায়। নিজেদের ‘ইসলামী আমিরাত আফগানিস্তান’ বলে উল্লেখ করছে তারা। 
১৯৯৬ সালে তালেবান যখন আফগানিস্তানের ক্ষমতায় ছিল, তখন এই নাম ব্যবহার করত। ৯/১১ পরবর্তী সময়ে মার্কিন অভিযানে ক্ষমতা থেকে তাদের উৎখাত করা হয়।
এখন তাদের একটি আধুনিক ‘ছায়া’ কাঠামো আছে। তারা যে অঞ্চলগুলোর নিয়ন্ত্রণ করে, সেখানে দৈনন্দিন কর্মকাণ্ড তত্ত্বাবধানে তাদের দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আছে।
হাজি হেকমত বিবিসির প্রতিবেদকদের নিয়ে ভ্রমণে বের হন। তাদের একটি প্রাথমিক বিদ্যালয় দেখানো হলো। সেখানে শিশু-কিশোররা জাতিসংঘের দেওয়া পাঠ্যবই পড়ছে। ১৯৯০-এর দশকে নারী শিক্ষা নিষিদ্ধ করে দিয়েছিল তালেবান। যদিও তারা সেটি অস্বীকার করেছে।
এমনকি এখনো অন্যান্য এলাকায় মেয়েরা একটু বড় হলে তাদের স্কুলে যেতে দেওয়া হচ্ছে না। কিন্তু এই সময়ে এসে তালেবান অন্তত একটুকু বলছে, তারা নারী শিক্ষাকে উৎসাহিত করছে।
স্থানীয় তালেবান শিক্ষা কমিশনের প্রধান মৌলভী সালাহউদ্দিন বলেন, লেখাপড়ার জন্য মেয়েদের হিজাব পরা অপরিহার্য।মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে নারী শিক্ষকদের অনুমোদন দেওয়া হয়েছে। কিন্তু বোরকা পরা বাধ্যতামূলক।
তিনি বলেন, যদি তারা শরিয়ার অনুসরণ করেন, তবে কোনো সমস্যা নেই।
স্থানীয় সূত্র জানায়, পাঠ্যসূচি থেকে শিল্পকলা বাদ দিয়েছে তালেবান, অন্তর্ভুক্ত করেছে ইসলামী বিষয়াদি। এছাড়া বাকিটা জাতীয় পাঠ্যক্রমের অনুসরণ করছে।
তালেবান তাদের নিজ মেয়েদের স্কুলে পাঠায় কিনা, জানতে চাইলে মৌলভী সালাহউদ্দিন বলেন, আমার মেয়ে খুবই ছোট্ট। যখন সে বড় হবে, তখন হিজাব ও শরিয়া মেনে তাকে স্কুল কিংবা মাদরাসায় পাঠাব।
শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানগুলো সরকারি বেতনে চললেও তত্ত্বাবধান করে তালেবান। পুরো দেশজুড়ে এ দো-আঁশলা ব্যবস্থা চলছে।
কাছাকাছি স্বাস্থ্য ক্লিনিকগুলো দাতব্য সংস্থার অর্থে চললেও সেখানেও এই একই কাহিনি। নারী কর্মীদের কাজের সুযোগ দিচ্ছে তালেবান। কিন্তু রাতের বেলায় তাদের সঙ্গে পুরুষ তত্ত্বাবধায়ক থাকতে হবে। 
হাসপাতালে নারী ও পুরুষ রোগীদের আলাদা করে দেওয়া হয়েছে। গর্ভনিরোধ ও পরিবার পরিকল্পনার তথ্য সহজেই মিলছে।
বর্তমানে তালেবান নিজেদের ইতিবাচকভাবে তুলে ধরতে চাইছে। বাড়ির পথে রওনা দেওয়া এক ঝাঁক স্কুলছাত্রীকে দেখিয়ে হাজি হিকমতকে গর্ব করতে দেখা গেছে। তাকে বেশ উদ্দীপ্ত লাগছিল।
নারীর অধিকারের বিষয়ে তালেবানের দৃষ্টিভঙ্গি নিয়ে এখনো উদ্বেগ আছে। এ পর্যন্ত তাদের কোনো নারী প্রতিনিধি নেই। ১৯৯০-এর দশকে তারা নারীদের বাইরে কাজ করতে বাধা দিয়েছিল।
বালখ শহরের গ্রামের ভেতর বহু নারীকে রাস্তায় মুক্তভাবে হাঁটতে দেখা গেছে। যদিও তাদের সবাই নিজেকে পুরোপুরি বোরখা দিয়ে ঢেকে রাখেনি। তাদের এভাবে হাঁটতে কোনো বারণ নেই বলে জানালেন হাজি হিকমত। যদিও রক্ষণশীল পরিবারগুলোর বিষয় আলাদা।

করোনা ভাইরাস লাইভ

আরও সংবাদ

করোনা ভাইরাস লাইভ ›

লাইভ অনুষ্ঠান বুলেটিন ছবি ভিডিও টিভি আর্কাইভ
বাংলার সময়
বাণিজ্য সময়
বিনোদনের সময়
খেলার সময়
আন্তর্জাতিক সময়
মহানগর সময়
অন্যান্য সময়
তথ্য প্রযুক্তির সময়
রাশিফল
লাইফস্টাইল
ভ্রমণ
প্রবাসে সময়
সাক্ষাৎকার
মুক্তকথা
বাণিজ্য মেলা
রসুই ঘর
বিশ্বকাপ গ্যালারি
বইমেলা
উত্তাল মার্চ
সিটি নির্বাচন
শেয়ার বাজার
জাতীয় বাজেট
বিপিএল
শিক্ষা সময়
ভোটের হাওয়া
স্বাস্থ্য
ধর্ম
চাকরি
পশ্চিমবঙ্গ
ফুটবল বিশ্বকাপ
ভাইরাল
সংবাদ প্রতিনিধি
সর্বশেষ সংবাদ
অনুসদ্ধান
মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন
GoTop