পশ্চিমবঙ্গ তৃণমূলের ভোট কাটবেন ভাইজান, বামেরা বিজেপির!

০৯-০৪-২০২১, ১৬:৩৩

সুব্রত আচার্য

fb tw
তৃণমূলের ভোট কাটবেন ভাইজান, বামেরা বিজেপির!
08
এবারের পশ্চিমবঙ্গ বিধানসভা ভোট অন্য যে কোনো নির্বাচনের চেয়ে বর্ণময়। রাজ্যের মানুষের মধ্যে হিন্দু-মুসলিম তত্ত্ব যেমন প্রধান দুই রাজনৈতিক দল তৃণমূল-বিজেপি প্রায় প্রতিষ্ঠা করেছে। তেমনই এই ধর্মীয় মেরুকরণের বাইরে ভোট কাটাকুটির অঙ্কও এবার খেলা দেখাবে জয়-পরাজয়ের মাঠে। 
যদিও বিজেপি এবং তৃণমূল দুটি রাজনৈতিক শিবির থেকেই জয়ের ব্যাপারে শতভাগ নিশ্চিত বলে দাবি করা হচ্ছে রোজ। ২৯৪ আসনের মধ্যে তিন দফায় পশ্চিমবঙ্গে ভোট গ্রহণ হয়েছে ৯১ আসনের। রাজ্যটিতে ক্ষমতায় যেতে হলে বিজয়ী দলকে ন্যূনতম ১৪৫ আসন পেতে হবে। মাত্র ৯১ আসনে ভোট হওয়ার পরই পশ্চিমবঙ্গের প্রধান দুই রাজনৈতিক শিবির তৃণমূল-বিজেপি রাজ্যে ক্ষমতায় যাচ্ছে বলে দাবি করেছে। 
অনুষ্ঠিত ৯১ আসনের ভোটের পর বিজেপি বলছে ন্যূনতম ৫৫টি আসন পাবে। তৃণমূল বলছে, তারা তাদের আগের আসনগুলো ধরে রেখেছে। তৃণমূল-বিজেপি ছাড়া যদিও বাম-কংগ্রেস-মোর্চা কিংবা নির্দলীয় প্রার্থীদের পক্ষ থেকে এই ধরনের জয় নিয়ে কোনো বিবৃতি পাওয়া যায়নি।
২০১৬ সালে পশ্চিমবঙ্গ বিধানসভায় তৃণমূল ২১০ আসন পেয়েছিল। বিজেপির ঝুলিতে ছিল মাত্র ৩ টি আসন। বাকি আসন পেয়েছিলেন বাম, কংগ্রেস ও নির্দলীয় প্রার্থীরা। 
২০১৯ সালে লোকসভা নির্বাচনে ভোট পাওয়া এবং হারানোর অঙ্ক বলছে, ২৯৪ আসনের মধ্যে বিজেপি ১২০টি আসনে এগিয়ে। এর অর্থ হচ্ছে ২০১৬ সালের তৃণমূলের ২১০ আসনের মধ্যে পিছিয়ে রয়েছে ১২০টি আসনে।
রাজ্যটির প্রায় ৩৫ শতাংশের কাছাকাছি মুসলিম ভোট। বাকি হিন্দু ভোটার। বিজেপির টার্গেট শুধুমাত্র হিন্দু ভোট। আর তৃণমূল কংগ্রেসের হিন্দু এবং মুসলিম ভোট। 
অতীতের নির্বাচনগুলোতে বিশেষ করে ২০১১ সালের পর থেকে তৃণমূল কংগ্রেস সংখ্যালঘু ভোটের সিংহভাগ পেয়ে আসছে। যে কারণে মুসলিমদের তৃণমূলের ভোট ব্যাঙ্ক বলা হয়। তবে এবার সেই ভোট ব্যাঙ্ক ভাগ হওয়ার জোর সম্ভাবনা রয়েছে।
ফুরফুরা শরীফের পীরজাদা আব্বাস সিদ্দিকী বা ভাইজান বাম-কংগ্রেসের সঙ্গে জোট করে নির্বাচনে লড়ছেন। তাই মনে করা হচ্ছে, ভাইজানের পক্ষে তৃণমূলের ভোট ব্যাঙ্কের একটি বড় অংশ ঝুঁকে পড়েছেন। আর সেটা হলে ভোট কাটাকুটির অংকে সুবিধাজনক অবস্থায় থাকবে বিজেপি। 
তবে অন্য একটি বাস্তবতাও রয়েছে এখানে। কারণ ২০১৬ এবং ২০১৯-এর নির্বাচনগুলোতে বামপন্থায় বিশ্বাসী মানুষ তৃণমূলের বিরুদ্ধে ভোট দিয়েছেন বিজেপিকে। তবে এবার যেহেতু বাম-কংগ্রেস-আইএসএফ জোট প্রার্থী দিয়েছে সব আসনে, তাই বামেদের ভোটও বিজেপি থেকে ফিরে নিজেদের বাক্সে ঢুকবে। ফলে এখানে ভোট কাটাকুটির অংকে বিজেপিরও কিছুটা ধাক্কা লাগবে। 
ভোটের অঙ্কটা এখানে জটিল মনে করছেন রাজনৈতিক মহল। কলকাতার সিনিয়র সাংবাদিক ও রাজনৈতিক বিশ্লেষক অর্কপ্রভ সরকার মনে করেন, এবারের ভোটটা অতীতের সব ভোটের চরিত্রের চেয়ে আলাদা। পুরো ভোট হচ্ছে হিন্দু-মুসলিম তত্ত্বকে সামনে রেখে। ভোটের এই পোলারাইজেশন যে করতে পারে তার ঘরে ভোটের ফসল উঠবে। 
তবে লোকসভা ভোটের ফল এবং শেষ কয়েক মাসের নির্বাচনী প্রস্তুতি, প্রার্থী বাছাই কিংবা রাজনৈতিক দলের ইশতেহার বিশ্লেষণ করে অর্কপ্রভ সরকার মনে করেন, তৃণমূল কংগ্রেসের চেয়ে কিছুটা হলেও এবার এগিয়ে রয়েছে গেরুয়া শিবির।
কলকাতার আরেক জনপ্রিয় রাজনৈতিক বিশ্লেষক বিশ্বনাথ চক্রবর্তী বলছেন, রাজ্যের মানুষ দুটো শিবিরে বিভক্ত হয়ে গেছেন। তৃণমূল দাবি করছে, তারা ক্ষমতায় আসবে; আর বিজেপি বলছে, তৃণমূলকে সরাবে। আসল রায় জানা যাবে ২ মে। তৃতীয় দফায় ৩১টি আসনে ভোট হয়েছে। ওই আসনগুলো তৃণমূলের ঘাঁটি বলে পরিচিত। বিজেপির ওখানে হারানোর কিছু নেই বরং তৃণমূলেরই আছে। কারণ তাদের কাছে এখন নিজেদের আসন ধরে রাখাই বড় চ্যালেঞ্জ। যদিও সংখ্যালঘু মুসলিমদের ভোট তৃণমূল কংগ্রেসই পাবে বলে মনে করেন বিশ্বনাথ চক্রবর্তী। 
বিজেপি নেতা ও দেশটির স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ বলেছেন, তিন দফা ভোটে অধিকাংশ আসনই বিজেপি জিতবে। বিজেপি নেতা শুভেন্দু অধিকারী আরও একধাপ এগিয়ে বলেছেন, প্রথম দুই দফায় ৬০ আসনের একটিও তৃণমূল পাবে না। 
তৃণমূল নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ভাঙা পায়ে হুইল চেয়ারে রাজ্য চষে বেড়াচ্ছেন নির্বাচনী প্রচারণায়। বাংলার এ প্রান্ত থেকে ও প্রান্ত। প্রায় প্রত্যেক সভায় তিনি দাবি করছেন, বিজেপি গোল্লা পাবে। তৃণমূল আবার ক্ষমতায় যাবে। বিজেপি বাংলাছাড়া হবে, দেশছাড়া হবে। উন্নয়নের জন্য মানুষ তৃণমূলকে ভোট দিয়েছেন, দিচ্ছেন। তৃণমূলই ক্ষমতায় ফিরবে। 
তৃণমূলের আরেক নেতা ফিহাদ হাকিমও একধাপ এগিয়ে বলছেন, মীরজাফরদের নিয়ে বিজেপি বাংলায় ক্ষমতায় যাওয়ার স্বপ্ন দেখছে। সেটা বাস্তব হবে না। তৃণমূলই ক্ষমতায় থাকবে।

করোনা ভাইরাস লাইভ

আরও সংবাদ

করোনা ভাইরাস লাইভ ›

লাইভ অনুষ্ঠান বুলেটিন ছবি ভিডিও টিভি আর্কাইভ
বাংলার সময়
বাণিজ্য সময়
বিনোদনের সময়
খেলার সময়
আন্তর্জাতিক সময়
মহানগর সময়
অন্যান্য সময়
তথ্য প্রযুক্তির সময়
রাশিফল
লাইফস্টাইল
ভ্রমণ
প্রবাসে সময়
সাক্ষাৎকার
মুক্তকথা
বাণিজ্য মেলা
রসুই ঘর
বিশ্বকাপ গ্যালারি
বইমেলা
উত্তাল মার্চ
সিটি নির্বাচন
শেয়ার বাজার
জাতীয় বাজেট
বিপিএল
শিক্ষা সময়
ভোটের হাওয়া
স্বাস্থ্য
ধর্ম
চাকরি
পশ্চিমবঙ্গ
ফুটবল বিশ্বকাপ
ভাইরাল
সংবাদ প্রতিনিধি
সর্বশেষ সংবাদ
অনুসদ্ধান
মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন
GoTop