আন্তর্জাতিক সময় নিউজিল্যান্ডে ৩ দফা ভূমিকম্পের পর প্রত্যাহার সুনামি সতর্কতা

০৫-০৩-২০২১, ১০:১৫

আন্তর্জাতিক সময় ডেস্ক

fb tw
02
পরপর দু’দফা শক্তিশালী ভূমিকম্পের পর স্থানীয় সময় শুক্রবার (৫ মার্চ) সকালে নিউজিল্যান্ডের উপকূলে আবারও একটি ভূমিকম্প আঘাত হেনেছে। এটির মাত্রা ৮ দশমিক ১, যা পূর্বের দুটি থেকে শক্তিশালী। এদিকে ভূমিকম্পের পর জারি করা সুনামি সতর্কতা বৈজ্ঞানিক পরামর্শ এবং তথ্যের ভিত্তিতে আবার প্রত্যাহার করা হয়েছে বলে জানিয়েছে বিবিসি। 
এর আগে বিবিসি এক প্রতিবেদনে জানায়, বৃহস্পতিবার (৪ মার্চ) রাত ২টার দিকে ৭ দশমিক ২ এবং ভোরে ৭ দশমিক ৪ মাত্রার ভূমিকম্পে কেঁপে উঠেছিল দেশটি। তখন সুনামির সতর্কতা জারি করা হয়। নিউজিল্যান্ডের ন্যাশনাল ইমারজেন্সি ম্যানেজমেন্ট এজেন্সি ৭ দশমিক ২ মাত্রার ভূমিকম্পের পরে দেশের উত্তর দ্বীপের পূর্বদিকে সুনামির হুমকির বিষয়ে সতর্ক করেছিল। 
এক বিবৃতিতে প্রশান্ত মহাসাগরীয় সুনামি সতর্ক কেন্দ্র জানিয়েছিল, ভূমিকম্পের কেন্দ্রস্থল থেকে ৩০০ কিলোমিটার পর্যন্ত সুনামি হতে পারে। তাই দেশটির নর্থল্যান্ড, ইস্ট কেপ ও গ্রেট ব্যারিয়ার দ্বীপের পাশাপাশি ওয়াংগেরেই দ্বীপপূঞ্জের মাতাটা থেকে তোলাগা উপসাগরীয় উপকূলের কাছাকাছি সবাইকে সতর্ক ও নিরাপদ অবস্থানে থাকার আহ্বান জানানো হয়।
ভূমিকম্প ও সতর্কতার পরই মানুষ দিগ্বিদিক ছোটাছুটি করছেন। যে যেভাবে পেরেছেন উঁচু স্থানে চলে গেছেন।
তবে, আতঙ্কিত হয়ে যারা ঘর ছেড়েছিলেন তারা এখন ফিরতে পারবেন বলে জানানো হয়েছে। মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের সুনামি সতর্কতা ব্যবস্থা প্রথমে ১ থেকে ৩ দশমিক ৩ ফুট ঢেউ তরঙ্গের পূর্বাভাস দিলেও পরে সে হুমকি পেরিয়ে গেছে বলে জানানো হয়েছে। 
প্রথম ভূমিকম্পটি আঘাত হানার পর বাসিন্দাদের নিরাপদ আশ্রয়ে যাওয়ার আহ্বান জানিয়ে সুনামি সতর্কতা জারি করা হয়েছিল। পরে সুনামি সতর্কতা প্রত্যাহার করে নেওয়া হয়। কিন্তু শুক্রবার সকালে আগের দুটির চেয়ে শক্তিশালী তৃতীয় ভূমিকম্পটি আঘাত হানার পর কর্তৃপক্ষ আবারও সুনামি সতর্কতা জারি করতে বাধ্য হয়েছে। পরে আবার তাও প্রত্যাহার করা হয়েছে।
যুক্তরাষ্ট্রের হাওয়াইভিত্তিক প্রশান্ত মহাসাগরীয় সুনামি সতর্কতা কেন্দ্র জানিয়েছে যে ‘সুনামির তরঙ্গ পর্যবেক্ষণ করা হচ্ছে’ তবে এখনও কোনও ক্ষয়ক্ষতির খবর পাওয়া যায়নি।
উল্লেখ্য, ২০১১ সালে একটি ৬ দশমিক ৩ মাত্রার ভূমিকম্প সরাসরি আঘাত হেনেছিল নিউজিল্যান্ডের রাজধানী ক্রাইস্টচার্চ শহরে। শহরটির অর্ধেক প্রায় ধ্বংস হয়ে গিয়েছিল। ১৮৫ জন মানুষের মৃত্যু হয়েছিল ওই ঘটনায়। ধ্বংসের মুখে পড়েছিল অধিকাংশ শহরতলিও।

করোনা ভাইরাস লাইভ

আরও সংবাদ

করোনা ভাইরাস লাইভ ›

লাইভ অনুষ্ঠান বুলেটিন ছবি ভিডিও টিভি আর্কাইভ
বাংলার সময়
বাণিজ্য সময়
বিনোদনের সময়
খেলার সময়
আন্তর্জাতিক সময়
মহানগর সময়
অন্যান্য সময়
তথ্য প্রযুক্তির সময়
রাশিফল
লাইফস্টাইল
ভ্রমণ
প্রবাসে সময়
সাক্ষাৎকার
মুক্তকথা
বাণিজ্য মেলা
রসুই ঘর
বিশ্বকাপ গ্যালারি
বইমেলা
উত্তাল মার্চ
সিটি নির্বাচন
শেয়ার বাজার
জাতীয় বাজেট
বিপিএল
শিক্ষা সময়
ভোটের হাওয়া
স্বাস্থ্য
ধর্ম
চাকরি
পশ্চিমবঙ্গ
ফুটবল বিশ্বকাপ
ভাইরাল
সংবাদ প্রতিনিধি
সর্বশেষ সংবাদ
অনুসদ্ধান
মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন
GoTop