বাংলার সময় উত্তরাঞ্চলের কৃষকের হাহাকার, নেই তিস্তা চুক্তির সম্ভাবনার খবর

০৫-০৩-২০২১, ০৯:১৬

রতন সরকার

fb tw
05
শুষ্ক মৌসুমে উত্তরের জমি আর নদী খাঁ খাঁ করছে। তিস্তার মূল অববাহিকায় পানিপ্রবাহের কোনো চিহ্ন নেই। অথচ তিন মাস আগেও ঢল আর বন্যা গিলে খেয়েছে পুরো জনপদ।
এমন সময় ২৬ মার্চ বাংলাদেশের স্বাধীনতার ৫০ বছর পূর্তি উপলক্ষে ভারতের প্রধানমন্ত্রীর সফরের আগে দু’দেশের পররাষ্ট্রমন্ত্রীর বৈঠক হয় বৃহস্পতিবার। কিন্তু তিস্তা বিষয়ে বৈঠক থেকে কোনো সুখবর নেই।
দেশের সবচেয়ে বড় তিস্তা সেচ প্রকল্পের জন্য ১০ হাজার কিউসেক আর নদীর ন্যূনতম ধারা ধরে রাখতে ৪ হাজার কিউসেক পানি প্রয়োজন এখন। অথচ দুই-তিন হাজার কিউসেক পানির নিশ্চয়তাও নেই।
উত্তরাঞ্চল পানি উন্নয়ন বোর্ডের প্রধান প্রকৌশলী জ্যোতিপ্রসাদ ঘোষ বলেন, আমরা তিস্তা চুক্তিটা করতে পারলে আমাদের জনগোষ্ঠীর যে সমস্যাটা এটা সম্পূর্ণভাবে দূরীভূত হবে।
তিস্তার পানি শূন্যতা বাংলাদেশকে নানাবিধ সংকটে ফেলেছে বলছেন সংশ্লিষ্টরা।
উন্নয়ন গবেষক ওমর ফারুক বলেন, উত্তরাঞ্চল ক্রমাগত মরুভূমি হতে শুরু করেছে এবং এই অঞ্চলে বন্যাও ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতির কারণ হয়ে দাঁড়িয়েছে। এই মুহূর্তে আমাদের জন্য সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ তিস্তা চুক্তি।
উজানে ভারতের এক তরফা পানি প্রত্যাহারের ফলে তিস্তা সেচ প্রকল্পের এক লাখ ১১ হাজার হেক্টর আবাদযোগ্য এলাকা কমতে কমতে ঠেকেছে ৫০ হাজার হেক্টরে।

করোনা ভাইরাস লাইভ

আরও সংবাদ

করোনা ভাইরাস লাইভ ›

লাইভ অনুষ্ঠান বুলেটিন ছবি ভিডিও টিভি আর্কাইভ
বাংলার সময়
বাণিজ্য সময়
বিনোদনের সময়
খেলার সময়
আন্তর্জাতিক সময়
মহানগর সময়
অন্যান্য সময়
তথ্য প্রযুক্তির সময়
রাশিফল
লাইফস্টাইল
ভ্রমণ
প্রবাসে সময়
সাক্ষাৎকার
মুক্তকথা
বাণিজ্য মেলা
রসুই ঘর
বিশ্বকাপ গ্যালারি
বইমেলা
উত্তাল মার্চ
সিটি নির্বাচন
শেয়ার বাজার
জাতীয় বাজেট
বিপিএল
শিক্ষা সময়
ভোটের হাওয়া
স্বাস্থ্য
ধর্ম
চাকরি
পশ্চিমবঙ্গ
ফুটবল বিশ্বকাপ
ভাইরাল
সংবাদ প্রতিনিধি
সর্বশেষ সংবাদ
অনুসদ্ধান
মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন
GoTop