বাংলার সময় শিশুকে যৌন নির্যাতন-মারধর, দুই শিক্ষক গ্রেফতার

০২-০৩-২০২১, ১৩:১২

মো. মাহবুবুল ইসলাম ভূঁঞা

fb tw
শিশুকে যৌন নির্যাতন-মারধর, দুই শিক্ষক গ্রেফতার
09
লক্ষ্মীপুরের চন্দ্রগঞ্জস্থ আত্তামরীণ ইন্টারন্যাশনাল হিফজুল কোরআন মাদ্রাসায় এক শিশু ছাত্রকে যৌন নির্যাতনের অভিযোগে শিক্ষকসহ ওই মাদ্রাসার অধ্যক্ষকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। এ ঘটনায় সোমবার (১ মার্চ) রাতে ভিকটিম শিশু ছাত্রের মা বাদী হয়ে দুজনকে আসামি করে চন্দ্রগঞ্জ থানায় মামলা দায়ের করেছেন।
গ্রেফতারকৃতরা হলেন- মাদ্রাসার হেফজ বিভাগের শিক্ষক হাফেজ মো. মাসুম বিল্লাহ (২৪)। তিনি কুমিল্লা জেলার মনোহরগঞ্জ থানার উত্তর হাওলা ইউপির ফেনুয়া গ্রামের উত্তর ফেনুয়া মৌলভী বাড়ির মো. হারুনুর রশিদের ছেলে এবং মাদ্রাসার অধ্যক্ষ মাওলানা আব্দুর রশিদ মোহাম্মদ ইউসুফ (৪৫)। তিনি ভোলা জেলার বোরহানউদ্দিন থানার কাচিয়া ইউপির চকডোষ গ্রামের দক্ষিণ চকডোষ ক্বারী সাহেব হুজুরের বাড়ির মৃত ক্বারী সিরাজুল হকের ছেলে।
এজাহার সূত্রে জানা যায়, চন্দ্রগঞ্জ পশ্চিম বাজারের আফজাল রোড সংলগ্ন আত্তামরীন ইন্টারন্যাশনাল হিফজুল কোরআন মাদ্রাসার নাজেরা বিভাগের আবাসিক এক শিশু ছাত্রকে (১০) রাতে খাবার রুমে ডেকে নিয়ে হেফজ বিভাগের শিক্ষক হাফেজ মো. মাসুম বিল্লাহ প্রায়ই যৌন নির্যাতন করতেন এবং এসব কথা কাউকে জানালে তাকে প্রাণনাশের হুমকি দিতেন। 
সম্প্রতি মাদরাসা ১ সপ্তাহের ছুটি ঘোষণা করলে শিশুটি অন্য শিশুদের মতো বাড়িতে চলে যায়। পরবর্তীতে মাদ্রাসা খোলা হলেও শিশুটি মাদ্রাসায় আসতে অস্বীকৃতি জানায়। এতে কেন সে মাদ্রাসায় যাবে না, তার মা জানতে চাইলে শিশুটি শিক্ষক কর্তৃক যৌন নির্যাতনের কথা খুলে বলে।
গত ২৬ ফেব্রুয়ারি শুক্রবার বিকেলে শিশুটির মা ও আত্মীয়-স্বজন মাদ্রাসায় এসে অধ্যক্ষ মাওলানা আব্দুর রশিদ মোহাম্মদ ইউসুফকে বিষয়টি জানিয়ে তদন্ত করে দেখার জন্য অনুরোধ জানায়। কিন্তু মাদ্রাসায় অধ্যক্ষ এ ঘটনার কোন তদন্ত না করে পরদিন শনিবার উল্টো ওই শিশু ছাত্রকে বেদম মারধর করেন। সোমবার মোবাইল ফোনে খবর পেয়ে শিশুটির মা ও অন্যান্যরা মাদ্রাসায় এসে শিশুটিকে আহত অবস্থায় দেখতে পেয়ে থানায় খবর দেন।
পরে চন্দ্রগঞ্জ থানার এসআই মো. কামাল উদ্দিন সঙ্গীয় ফোর্সসহ ঘটনাস্থলে গিয়ে অভিযোগের সত্যতা পেয়ে অভিযুক্ত শিক্ষক হাফেজ মো. মাসুম বিল্লাহ ও মাদ্রাসার অধ্যক্ষ মাওলানা আব্দুর রশিদ মোহাম্মদ ইউসুফকে আটক করেন।
এদিকে ঘটনা শোনার পর অনেক অভিভাবক রাতে মাদ্রাসায় এসে তাদের সন্তানদেরকেও ওই মাদ্রাসা থেকে নিয়ে যাওয়ার জন্য চাপ সৃষ্টি করেন বলে জানা গেছে।
এ ব্যাপারে চন্দ্রগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) একে এম ফজলুল হক জানান, বিষয়টি জানার পর ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠিয়ে দুই শিক্ষককে আটক এবং অভিযুক্ত দুই শিক্ষকের বিরুদ্ধে মামলা হয়েছে। মঙ্গলবার দুপুরে তাদেরকে আদালতে পাঠানো হয়েছে।

করোনা ভাইরাস লাইভ

আরও সংবাদ

করোনা ভাইরাস লাইভ ›

লাইভ অনুষ্ঠান বুলেটিন ছবি ভিডিও টিভি আর্কাইভ
বাংলার সময়
বাণিজ্য সময়
বিনোদনের সময়
খেলার সময়
আন্তর্জাতিক সময়
মহানগর সময়
অন্যান্য সময়
তথ্য প্রযুক্তির সময়
রাশিফল
লাইফস্টাইল
ভ্রমণ
প্রবাসে সময়
সাক্ষাৎকার
মুক্তকথা
বাণিজ্য মেলা
রসুই ঘর
বিশ্বকাপ গ্যালারি
বইমেলা
উত্তাল মার্চ
সিটি নির্বাচন
শেয়ার বাজার
জাতীয় বাজেট
বিপিএল
শিক্ষা সময়
ভোটের হাওয়া
স্বাস্থ্য
ধর্ম
চাকরি
পশ্চিমবঙ্গ
ফুটবল বিশ্বকাপ
ভাইরাল
সংবাদ প্রতিনিধি
সর্বশেষ সংবাদ
অনুসদ্ধান
মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন
GoTop