বাণিজ্য সময় দরিদ্র দেশ ভ্যাকসিন না পেলে মারাত্মক ক্ষতির আশঙ্কা

০১-০৩-২০২১, ১৬:৩৩

ঈশিতা ব্রহ্ম

fb tw
সংগৃহীত
ছবি: সংগৃহীত
05
করোনার টিকা সারাবিশ্বে পৌঁছে দিতে কাজ করছে আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়। সুষ্ঠুভাবে উন্নত, উন্নয়নশীল আর অনুন্নত দেশে ভ্যাকসিন পৌঁছে দেয়াই এখন বড় চ্যালেঞ্জ। এরমধ্যে বিশ্বের কয়েকটি দেশের সরকার বলছেন, দরিদ্র দেশগুলোতে যদি ভ্যাকসিন সরবরাহ করা না হয়, বিশ্ব অর্থনীতি মারাত্মকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হবে। 
সারাবিশ্বে ভ্যাকসিন তৈরি হলেও এখনো পুরোপুরি দরিদ্র দেশগুলোতে সরবরাহ করা সম্ভব হয়নি প্যারিসভিত্তিক অর্থনৈতিক উন্নয়ন ও সহযোগী সংস্থা ওইসিডি বলছে, ধনী দেশগুলোর অর্থনীতির প্রবৃদ্ধি আশঙ্কাজনকহারে কমবে। দরিদ্র দেশগুলোতে ভ্যাকসিন সরবরাহে সহায়তা না করলে ট্রিলিয়ন ডলার ক্ষতির মুখে পড়তে পারে বিশ্বের ধনী দেশগুলো। 
বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার পূর্বাভাসও তাই বলে। সংস্থাটি বলছে, এখনই ধনী দেশগুলোর চেয়ে দরিদ্র দেশগুলোতে ভ্যাকসিন পৌঁছাতে দেরি হচ্ছে। এভাবে চলতে থাকলে বড় ধরনের ক্ষতির মুখে পড়বে বিশ্ব অর্থনীতি। প্রয়োজনের চেয়ে অতিরিক্ত ভ্যাকসিন কিনে মজুদের অভিযোগ আছে কয়েকটি দেশের বিরুদ্ধে। 
ওইসিডি প্রধান এঞ্জেল গুয়েরা বলেন,ভ্যাকসিন অসমতার কারণে বিশ্ব অর্থনীতির ৯ ট্রিলিয়ন ডলার লোকসান হতে পারে। আর্থিক এ ক্ষতি যুক্তরাষ্ট্রের সার্বিক অর্থনীতির অর্ধেক। উন্নত দেশগুলোর লোকসান হতে পারে ৫ ট্রিলিয়ন ডলার পর্যন্ত। ওইসিডি একটি আন্তজার্তিক ফোরাম, অর্থনৈতিক সহায়তা, অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধি ও বাণিজ্য নিয়ে কাজ করে এ সংস্থা। 
কানাডার বিরুদ্ধে অভিযোগ আছে, জনসংখ্যার ৫ গুন বেশি ভ্যাকসিন মজুদ করেছে দেশটি। তবে দেশটির প্রধানমন্ত্রী জাস্টিন ট্রুডো বলেন, করোনায় ক্ষতিগ্রস্ত গরীবদের সহায়তায় কানাডা বদ্ধপরিকর। ওইসিডি ফোরামে বক্তারা বলেন, দরিদ্র দেশগুলোর সাথে অন্যায় হচ্ছে ভ্যাকসিন সরবরাহের ক্ষেত্রে। শিল্পোন্নত কোন দেশের তরুণ আর সুস্থ মানুষ ভ্যাকসিন পাচ্ছে না। 
এরইমধ্যে জাতিসংঘ সতর্ক করে বলছে, ১শরও বেশি দেশ ভ্যাকসিনের প্রথম ডোজ পাবে কিনা, তা নিয়ে শঙ্কা আছে। সংস্থাটি বলছে, বিশ্বের মাত্র ১০ টি দেশে করোনার ৭৫ শতাংশ ভ্যাকসিন গেছে। সংস্থাটি জানায়, এখনো ভ্যাকসিন পৌঁছায়নি ১শ’ ৩০ টি দেশে। অথচ বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার কোভ্যাক্স প্রকল্প অনুযায়ী, ভ্যাকসিন কেনা আর সরবরাহের ক্ষেত্রে দরিদ্র দেশগুলোকে প্রাধান্য দেয়ার কথা ছিলো। 
সাম্প্রতিক সময়ে প্রকাশিত এক গবেষণা বলছে, উন্নত দেশগুলোতে ২০২১ সালের প্রথম ৪ মাসেই ভ্যাকসিন দেয়া শেষ হবে। কিন্তু উন্নয়নশীল দেশগুলোতর ৫০ শতাংশ মানুষ ভ্যাকসিন পাবে ২০২২ সালের শুরুর দিকে। বিশ্ব অর্থনীতির ক্ষতি হতে পারে প্রায় ৪ ট্রিলিয়ন ডলার।    
চীন বিনামূল্যে ভ্যাকসিন দিয়েছে সোমালিয়া, দক্ষিণ সুদান, ইরাক আর ফিলিস্তিনে। আরো ২২ টি দেশে ভ্যাকসিন রফতানি করেছে চীন। অক্সফোর্ড আর অ্যাস্ট্রাজেনেকার তৈরি কোভ্যাক্সের লক্ষ্য, বছরে ১শ’ ৯০ টি দেশে ২শ’ কোটি ডোজের বেশি ভ্যাকসিন সরবরাহ করা হবে। বিশেষ করে ৯২ টি দরিদ্র দেশ ৯৮ টি ধনী দেশের মতো ভ্যাকসিন পাচ্ছে, এ বিষয়টি নিশ্চিত করতে হবে।

করোনা ভাইরাস লাইভ

আরও সংবাদ

করোনা ভাইরাস লাইভ ›

লাইভ অনুষ্ঠান বুলেটিন ছবি ভিডিও টিভি আর্কাইভ
বাংলার সময়
বাণিজ্য সময়
বিনোদনের সময়
খেলার সময়
আন্তর্জাতিক সময়
মহানগর সময়
অন্যান্য সময়
তথ্য প্রযুক্তির সময়
রাশিফল
লাইফস্টাইল
ভ্রমণ
প্রবাসে সময়
সাক্ষাৎকার
মুক্তকথা
বাণিজ্য মেলা
রসুই ঘর
বিশ্বকাপ গ্যালারি
বইমেলা
উত্তাল মার্চ
সিটি নির্বাচন
শেয়ার বাজার
জাতীয় বাজেট
বিপিএল
শিক্ষা সময়
ভোটের হাওয়া
স্বাস্থ্য
ধর্ম
চাকরি
পশ্চিমবঙ্গ
ফুটবল বিশ্বকাপ
ভাইরাল
সংবাদ প্রতিনিধি
সর্বশেষ সংবাদ
অনুসদ্ধান
মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন
GoTop