মহানগর সময় ‘আন্দামানে উদ্ধার রোহিঙ্গাদের ফেরত নিতে বাধ্য নয় বাংলাদেশ’

২৭-০২-২০২১, ১৯:৫৪

মহানগর সময় ডেস্ক

fb tw
‘আন্দামানে উদ্ধার রোহিঙ্গাদের ফেরত নিতে বাধ্য নয় বাংলাদেশ’
01
আন্দামান সাগরে প্রায় দুই সপ্তাহ ধরে ভাসতে থাকা নৌকা থেকে ৮১ রোহিঙ্গা শরণার্থীকে উদ্ধার করেছে ভারতীয় উপকূলরক্ষী বাহিনী, তাদেরকে ফেরত নিতে বাংলাদেশ বাধ্য নয় বলে জানিয়েছেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী এ কে আব্দুল মোমেন। ব্রিটিশ বার্তাসংস্থা রয়টার্সকে দেওয়া এক বিশেষ সাক্ষাৎকারে এই মন্তব্য করেন তিনি।
এর আগে, শুক্রবার (২৬ ফেব্রুয়ারি) ভারতীয় কর্মকর্তারা জানান, আন্দামান সাগরে একটি মাছ ধরার নৌকা থেকে ওই রোহিঙ্গাদের জীবিত উদ্ধার করেছে ভারতীয় উপকূলরক্ষী বাহিনী। একই নৌকায় আরও ৮ জনের মরদেহ পাওয়া যায়। উদ্ধার এই রোহিঙ্গাদের বাংলাদেশে ফেরত পাঠানোর চেষ্টা করছে ভারত।
ভারতীয় কর্মকর্তারা বলেছেন, মানবিক সংকট বিবেচনায় রোহিঙ্গাদের উদ্ধারের পর খাবার এবং পানি সরবরাহ করা হলেও ভারতে তাদের আশ্রয় দেওয়ার কোনও পরিকল্পনা নেই। এই রোহিঙ্গাদের ফেরত পাঠাতে বাংলাদেশের সঙ্গে ভারত সরকার আলোচনা করছে।
এ বিষয়ে পররাষ্ট্রমন্ত্রী এ কে আব্দুল মোমেন বলেছেন, বাংলাদেশ প্রত্যাশা করছে, নিকটতম দেশ ভারত অথবা রোহিঙ্গাদের দেশ মিয়ানমার তাদের গ্রহণ করবে।
যুক্তরাষ্ট্রে অবস্থানরত বাংলাদেশের এই পররাষ্ট্রমন্ত্রী রয়টার্সকে বলেন, তারা বাংলেদেশি নাগরিক নন। মূলত তারা মিয়ানমারের নাগরিক। বাংলাদেশের সমুদ্র অঞ্চল থেকে এক হাজার ৭০০ কিলোমিটার দূরে তাদের পাওয়া গেছে। এমন অবস্থায় তাদের গ্রহণে আমাদের কোনও বাধ্যবাধকতা নেই।
তিনি বলেছেন, ভারতীয় ভূখণ্ড থেকে ১৪৭ এবং মিয়ানমার থেকে ৩২৪ কিলোমিটার দূরে রোহিঙ্গারা অবস্থান করছিলেন। রয়টার্সকে টেলিফোনে দেওয়া সাক্ষাৎকারে পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, অন্যান্য দেশ এবং সংস্থাকে শরণার্থীদের যত্ন নেওয়া উচিত।
তবে এ বিষয়ে তাৎক্ষণিকভাবে ভারতের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তাদের মন্তব্য পাওয়া যায়নি। শরণার্থীদের মর্যাদা ও অধিকার নিশ্চিতের লক্ষ্যে ১৯৫১ সালে জাতিসংঘ একটি কনভেনশন গ্রহণ করে। নয়াদিল্লি এই কনভেনশনে স্বাক্ষর করেনি।
শরণার্থীদের সুরক্ষায় ভারতের কোনও আইন নেই। তারপরও দেশটিতে বর্তমানে দুই লাখের বেশি শরণার্থী বসবাস করছেন; তাদের মধ্যে কিছু রোহিঙ্গাও রয়েছেন।
কক্সবাজারে শরণার্থী শিবিরে বর্তমানে ১০ লাখের বেশি রোহিঙ্গা শরণার্থী বসবাস করছেন; যারা বৌদ্ধ সংখ্যাগরিষ্ঠ মিয়ানমারে বিভিন্ন সময়ের সংঘাত-সহিংসতা থেকে বাঁচতে বাংলাদেশে পালিয়ে এসেছেন। ২০১৭ সালের আগস্টে রাখাইন প্রদেশে মিয়ানমারের সামরিকবাহিনীর প্রাণঘাতী অভিযানের মুখে প্রায় সাড়ে সাত লাখ রোহিঙ্গা সীমান্ত পেরিয়ে বাংলাদেশে আসেন।
পাচারকারীরা প্রায়ই উন্নত জীবনের প্রলোভন দেখিয়ে কক্সবাজারের শরণার্থী শিবিরের রোহিঙ্গাদের অর্থের বিনিময়ে সাগরপথে মালয়েশিয়া অথবা ইন্দোনেশিয়ায় পাঠানোর চেষ্টা করে। রোহিঙ্গাদের বহনকারী নৌকাটি সাগরে নিখোঁজ হয়ে যাওয়ার পর গত সপ্তাহে উদ্বেগ জানিয়েছিল জাতিসংঘের শরণার্থীবিষয়ক সংস্থা ইউএনএইচসিআর।
মালয়েশিয়ায় পৌঁছানোর আশায় গত ১১ ফেব্রুয়ারি বাংলাদেশের দক্ষিণাঞ্চল থেকে যাত্রা শুরুর পর রোহিঙ্গাদের বহনকারী নৌকাটি আন্দামান সাগরের আন্তর্জাতিক জলসীমায় ভাসতে ছিল। শুক্রবার ভারতীয় উপকূলরক্ষী বাহিনীর সদস্যরা উদ্ধারের পর নারী-শিশুদের নতুন কাপড় এবং খাবার ও ওষুধ দেয়ার তথ্য জানায়। 
বর্তমানে ভারতের ত্রাণ সহায়তা পাচ্ছেন তারা। তাদেরকে বাংলাদেশে ফেরত পাঠানোর বিষয়ে ভারতীয় কর্মকর্তারা আলোচনা চালিয়ে যাচ্ছেন বলে জানিয়েছেন।

করোনা ভাইরাস লাইভ

আরও সংবাদ

করোনা ভাইরাস লাইভ ›

লাইভ অনুষ্ঠান বুলেটিন ছবি ভিডিও টিভি আর্কাইভ
বাংলার সময়
বাণিজ্য সময়
বিনোদনের সময়
খেলার সময়
আন্তর্জাতিক সময়
মহানগর সময়
অন্যান্য সময়
তথ্য প্রযুক্তির সময়
রাশিফল
লাইফস্টাইল
ভ্রমণ
প্রবাসে সময়
সাক্ষাৎকার
মুক্তকথা
বাণিজ্য মেলা
রসুই ঘর
বিশ্বকাপ গ্যালারি
বইমেলা
উত্তাল মার্চ
সিটি নির্বাচন
শেয়ার বাজার
জাতীয় বাজেট
বিপিএল
শিক্ষা সময়
ভোটের হাওয়া
স্বাস্থ্য
ধর্ম
চাকরি
পশ্চিমবঙ্গ
ফুটবল বিশ্বকাপ
ভাইরাল
সংবাদ প্রতিনিধি
সর্বশেষ সংবাদ
অনুসদ্ধান
মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন
GoTop