মহানগর সময় মরদেহে অস্বাভাবিক কিছু দেখিনি, মুশতাকের খালাতো ভাই

২৬-০২-২০২১, ২২:০৭

মহানগর সময় ডেস্ক

fb tw
মরদেহে অস্বাভাবিক কিছু দেখিনি, মুশতাকের খালাতো ভাই
01
ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে কারাবন্দি অবস্থায় মৃত্যু হওয়া লেখক মুশতাক আহমেদের মরদেহে অস্বাভাবিক কিছু দেখেননি বলে জানিয়েছেন তার খালাতো ভাই চিকিৎসক নাফিস রহমান।
ভাইয়ের মৃত্যু নিয়ে কোনো সন্দেহ করছেন কি না এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি গণমাধ্যমকে বলেন, আমি একজন চিকিৎসক। আমি ওনার ভাই। আমি পোস্টমর্টেমের সময় ছিলাম। আমি তার মৃত্যু নিয়ে অস্বাভাবিক কোনো কিছু দেখিনি।
ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে এক মামলায় গত বছরের মে মাসে গ্রেপ্তারের পর থেকে কারাবন্দি ছিলেন লেখক মুশতাক। বৃহস্পতিবার (২৫ ফেব্রুয়ারি) রাত সাড়ে ৮টার দিকে গাজীপুরের কাশিমপুর হাই সিকিউরিটি কারাগারে অসুস্থ হয়ে পড়েন তিনি।
কারা কর্তৃপক্ষ বলছে, মুশতাক বৃহস্পতিবার সন্ধ্যার দিকে কারাগারের ভেতর হঠাৎ অসুস্থ হয়ে পড়লে তাকে প্রথমে কারা হাসপাতালে নেয়া হয়। সেখান থেকে তাজউদ্দীন আহমদ মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে নেয়া হলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।
ভাইয়ের মৃত্যু নিয়ে কোনো ধরনের সন্দেহ উড়িয়ে দিয়ে নাফিস বলেন, আমি তো একজন চিকিৎসক। আমি তো একটি মরদেহ দেখলে বুঝি। আমি ওর পোস্টমর্টেমের সময় ভেতরেই ছিলাম। আমি কোনো সমস্যা দেখিনি। আমি তার মরদেহ দেখেছি, কোনো অস্বাভাবিক চিহ্ন দেখিনি।
মুশতাকের মৃত্যু নিয়ে পরিবারের পক্ষ থেকে আনুষ্ঠানিক কোনো বিবৃতি দেয়া হবে কি না জানতে চাইলে নাফিস বলেন, আমি পরিবারের পক্ষ থেকেই বলছি, আপনারা ওনার জন্য দোয়া করবেন। এ ছাড়া আর কোনো বিবৃতি নেই।
মুশতাককে গ্রেপ্তার করার দিন ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে গ্রেপ্তার করা হয়েছিল রাষ্ট্রচিন্তার সদস্য দিদারুল ভূঁইয়াকে। চলতি বছরের জানুয়ারিতে জামিন পাওয়ার আগে কেরানীগঞ্জে কিছু দিন মুশতাকের সঙ্গে ছিলেন তিনি।
কারাগারে মুশতাককে অসুস্থ দেখেছিলেন কি না এমন প্রশ্নে দিদারুল বলেন, না, তিনি অসুস্থ ছিলেন না। ওনার কোনো অসুখ ছিল না। তিনি সম্পূর্ণ ফিট ছিলেন। আমি ওনার সঙ্গে কেরানীগঞ্জের কারাগারে ছিলাম। তখন আমি দেখেছি, উনি কারাগারের মাঠে প্রতিদিন চার কিলোমিটার দৌঁড়াতে পারতেন।
মুশতাক কোনো ওষুধ সেবন করতেন কি না, জবাবে দিদারুল বলেন, না, ওনার কখনও কোনো মেডিসিনের প্রয়োজন পড়েনি।
দিদারুল বলেন, যখন একটি মানুষকে ১০ মাস কারাগারে রেখে মানসিক নির্যাতন করা হয়, তখন এ বিষয়ে তো যথেষ্ট সন্দেহ অবশ্যই তৈরি হয়। এ বিষয়ে আপনারই বুঝতে পারেন ওনার কী হয়েছিল। আর শারীরিক নির্যাতন করা হয়েছিল কি না আমি জানি না। আমরা অবশ্যই সন্দেহ করতেছি ওনার মৃত্যু নিয়ে।

করোনা ভাইরাস লাইভ

আরও সংবাদ

করোনা ভাইরাস লাইভ ›

লাইভ অনুষ্ঠান বুলেটিন ছবি ভিডিও টিভি আর্কাইভ
বাংলার সময়
বাণিজ্য সময়
বিনোদনের সময়
খেলার সময়
আন্তর্জাতিক সময়
মহানগর সময়
অন্যান্য সময়
তথ্য প্রযুক্তির সময়
রাশিফল
লাইফস্টাইল
ভ্রমণ
প্রবাসে সময়
সাক্ষাৎকার
মুক্তকথা
বাণিজ্য মেলা
রসুই ঘর
বিশ্বকাপ গ্যালারি
বইমেলা
উত্তাল মার্চ
সিটি নির্বাচন
শেয়ার বাজার
জাতীয় বাজেট
বিপিএল
শিক্ষা সময়
ভোটের হাওয়া
স্বাস্থ্য
ধর্ম
চাকরি
পশ্চিমবঙ্গ
ফুটবল বিশ্বকাপ
ভাইরাল
সংবাদ প্রতিনিধি
সর্বশেষ সংবাদ
অনুসদ্ধান
মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন
GoTop