মহানগর সময় সীমিত পরিসরে বিমানে দুর্নীতি হচ্ছে: বিমান প্রতিমন্ত্রী

২৫-০১-২০২১, ২১:০২

সময় নিউজ প্রতিবেদক

fb tw
সীমিত পরিসরে বিমানে দুর্নীতি হচ্ছে: বিমান প্রতিমন্ত্রী
10
ফ্লাইটের টিকিট পাওয়া না গেলেও আসন খালি রেখেই চলছে বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্স। বিমানবন্দরে মশার অত্যাচারে বসতে পারেন না সাধারণযাত্রীরা আর ভিআইপি লাউঞ্জের অবস্থা আরও ভয়াবহ। এমন সব অভিযোগ সংসদের বিরোধীপক্ষের একাধিক সদস্যের। 
তবে বিরোধীদের এমন অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে বেসরকারি বিমান ও পর্যটন প্রতিমন্ত্রী মো. মাহবুব আলী বলেছেন, একেবারে দুর্নীতি হয় না, তা নয়। তবে এখন দুর্নীতি কমেছে, সীমিত পরিসরে দুর্নীতি হচ্ছে। বিএনপির আমলে বিমানকে জঘন্য অবস্থায় নিয়ে গিয়েছিল। বর্তমান সরকার ট্র্যাকে আনার চেষ্টা করছে।’
সোমবার (২৫ জানুয়ারি) একাদশ জাতীয় সংসদের একাদশ অধিবেশনে ‘বাংলাদেশ ট্রাভেল এজেন্সি (নিবন্ধন ও নিয়ন্ত্রণ) (সংশোধন) বিল-২০২০’ পাসের জন্য উত্থাপন করলে বিরোধী দলীয় সংসদ সদস্যদের এমন সমালোচনার মুখে পড়েন বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটন প্রতিমন্ত্রী মো. মাহবুব আলী।
 
উত্থাপিত বিলের ওপর আলোচনায় অংশ নিয়ে সংসদ সদস্যরা এসব অভিযোগ করেন।
বিলের ওপর আলোচনায় বিএনপির হারুনুর রশীদ বলেন, ‘ট্রাভেল এজেন্সিগুলোর স্বার্থ রক্ষায় এ বিল আনা হয়েছে। এ বিষয়ের আরও যাচাইবাছাইয়ের দাবি জানান তিনি।
তিনি বলেন, বিমানের গ্রাহকদের স্বার্থ রক্ষার দিকে নজর নেই। বিমানবন্দরে মশার অত্যাচারে বসা যায় না। কয়েকজনকে দেখি ব্যাট হাতে ঘুরে বেড়ায়, ফুটুস ফুটুস করে মশা মারেন। ভিআইপি লাউঞ্জগুলোতে বসা যায় না। কে বসবে কে বসবে না, কোনো ঠিক নেই। এগুলো মন্ত্রণালয়কে ঠিক করতে হবে।’
জাপার মুজিবুল হক বলেন, বিলের সঙ্গে দ্বিমত নেই। কিন্তু বিমানের ইতিহাস সুখকর নয়। বেশির ভাগ সময় এটি লোকসান করেছে। বিমানের ব্যবস্থাপনার দুর্বলতার কারণে লাভ করা মুশকিল। যারা এজেন্ট, তারা টিকিট বিক্রির টাকা দেন না। এজেন্টরা কারসাজি করেন। টিকেট পাওয়া যায় না। কিন্তু সিট ফাঁকা থাকে। বিমানে যারা কাজ করেন, তারা বিমানকে বাপের সম্পত্তি মনে করেন।
ভিআইপি লাউঞ্জে সংসদ সদস্যদের জন্য একটি কক্ষ রাখার দাবি জানান জাপার এই এমপি। তিনি বলেন, কয়েক’শ যুগ্ম ও অতিরিক্ত সচিব, ১০০ সচিব। সাড়ে তিন’শ সংসদ সদস্য। ভিআইপি লাউঞ্জে গাদাগাদি করে দাঁড়ানো যায় না।
বিএনপির সংরক্ষিত সংসদ সদস্য রুমিন ফারহানা বলেন, এজেন্সিগুলো নিজেরা ক্রেতা সেজে টিকিট বুক করে রাখে। তিন-চতুর্থাংশ বুকিং বাতিল হয়েছে। এতে ক্ষতি হয় বিমানের। যে এজেন্সিগুলোর কথা বলা হচ্ছে, সেগুলোর নিয়ন্ত্রক মন্ত্রণালয়। অদক্ষ ব্যবস্থাপনার জন্য বিমান লোকসানে। উড়োজাহাজ কেনা, ইজারা দেয়া, ফুড ক্যাটারিংয়ে অনিয়ম চলছে।
বিরোধীদের অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে মাহবুব আলী বলেন, আগে টিকিট নিয়ে সমস্যা ছিল। এখন তা আর নেই। অনেক ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে। দায়ী ব্যক্তিদের শাস্তির আওতায় আনা হয়েছে। এখন বিমানের আসন ফাঁকা যায় না।
বিমান প্রতিমন্ত্রী বলেন, আইন বেশি কঠোর হলে অপব্যবহার বেশি হয়। সবার স্বার্থ বিবেচনা করেই বিলটি আনা হয়েছে।
তিনি বলেন, বিএনপি তাদের আমলে বিমানকে জঘন্য অবস্থায় নিয়ে গিয়েছিল। বর্তমান সরকার ট্র্যাকে আনার চেষ্টা করছে। একেবারে দুর্নীতি হয় না, তা নয়। তবে এখন দুর্নীতি কমেছে, সীমিত পরিসরে। সাংসদদের জন্য আলাদা কক্ষ রাখার বিষয়টি বিবেচনারও আশ্বাস দেন তিনি।
পরে বিলের ওপর দেয়া জনমত যাচাইবাছাই কমিটিতে পাঠানো এবং সংশোধনী প্রস্তাবগুলোর নিষ্পত্তি শেষে বিলটি পাস হয়। বিলে ট্রাভেল এজেন্সিগুলোর মালিকানা হস্তান্তর এবং দেশ-বিদেশে শাখা খোলার সুযোগ রাখা হয়েছে। 
বর্তমানে কোনো অপরাধের জন্য ট্রাভেল এজেন্সিকে জরিমানার সুযোগ নেই। কর্তৃপক্ষ তাদের নিবন্ধন স্থগিত বা বাতিল করতে পারে, কিন্তু পাস হওয়া বিলে জরিমানার সুযোগ রেখে বলা হয়েছে, কোনো বিধান লঙ্ঘন করলে ছয় মাস জেল, পাঁচ লাখ টাকা জরিমানা বা উভয় দণ্ড দেয়া হবে। আর এ সংক্রান্ত মামলা নিষ্পত্তিতে ফৌজদারি দণ্ডবিধি প্রযোজ্য হবে বলেও বিলটিতে বলা হয়েছে।

করোনা ভাইরাস লাইভ

আরও সংবাদ

করোনা ভাইরাস লাইভ ›

লাইভ অনুষ্ঠান বুলেটিন ছবি ভিডিও টিভি আর্কাইভ
বাংলার সময়
বাণিজ্য সময়
বিনোদনের সময়
খেলার সময়
আন্তর্জাতিক সময়
মহানগর সময়
অন্যান্য সময়
তথ্য প্রযুক্তির সময়
রাশিফল
লাইফস্টাইল
ভ্রমণ
প্রবাসে সময়
সাক্ষাৎকার
মুক্তকথা
বাণিজ্য মেলা
রসুই ঘর
বিশ্বকাপ গ্যালারি
বইমেলা
উত্তাল মার্চ
সিটি নির্বাচন
শেয়ার বাজার
জাতীয় বাজেট
বিপিএল
শিক্ষা সময়
ভোটের হাওয়া
স্বাস্থ্য
ধর্ম
চাকরি
পশ্চিমবঙ্গ
ফুটবল বিশ্বকাপ
ভাইরাল
সংবাদ প্রতিনিধি
সর্বশেষ সংবাদ
অনুসদ্ধান
মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন
GoTop