বাংলার সময় বালিয়ামারী সীমান্ত হাট এক বছর বন্ধ, চালুর দাবি

২১-০১-২০২১, ২১:১৬

মমিনুল ইসলাম মঞ্জু

fb tw
বালিয়ামারী সীমান্ত হাট এক বছর বন্ধ, চালুর দাবি
12
কুড়িগ্রামের রাজিবপুর উপজেলা এবং ভারতের মেঘালয় রাজ্যের আমপাতি জেলার মহেন্দ্রগঞ্জ থানার সীমান্তে অবস্থিত বালিয়ামারী-কালাইরচর বর্ডার হাট প্রায় এক বছর ধরে বন্ধ রয়েছে। 
দেশের অভ্যন্তরে করোনা ভাইরাসের প্রবেশ ঠেকাতে সতর্কতা হিসেবে বাংলাদেশ অংশের স্থানীয় বর্ডার হাট ব্যবস্থাপনা কমিটির সিদ্ধান্তে ২০২০ সালের ৫ ফেব্রুয়ারি থেকে হাটটির কার্যক্রম সাময়িকভাবে বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছিল। তখন থেকে হাট বন্ধ হয়ে আছে। 
এর ফলে হাটটিকে কেন্দ্র করে দু’দেশের সীমান্ত এবং এর আশেপাশে এলাকার দরিদ্র মানুষরা নতুন করে যে জীবন-জীবিকা গড়ে তুলেছিলেন তা স্থবির হয়ে পড়েছে। আর্থিক ক্ষতির মুখে পড়েছেন হাটের নির্ধারিত ক্রেতা-বিক্রেতারা। এ অবস্থায় পুনরায় হাটটি চালুর দাবি তাদের। 
বাংলাদেশের বিক্রেতা মাজেদা বেগম তৈরি বালিশ, শাড়ি, লুঙ্গি ও গামছা ইত্যাদি হাটে বিক্রি করেন। আর নুরুজ্জামান বিক্রি করেন বিভিন্ন ধরণের সব্জি। দীর্ঘ ৮ বছরের বেশি সময় ধরে তারা ব্যবসা করছেন। ব্যবসাও ভালো চলছিল। কিন্তু দীর্ঘদিন ধরে হাট বন্ধ থাকায় পুঁজি খেয়ে ফেলেছেন। ফলে এখন তাদের দিন চলছে খুবই কষ্টে। 
তারা আরও জানান, করোনা পরিস্থিতির উন্নতি হওয়ায় বাংলাদেশ ও ভারতের মধ্যকার সব স্থলবন্দর অনেক আগে খুলে দেওয়া হয়েছে। এ জন্য এই হাটটি পুনরায় চালু করার দাবি জানান মাজেদা বেগম ও নুরুজ্জামান। 
স্থানীয় হাট কমিটির সদস্য ও রাজিবপুর সদর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মো. কামরুল ইসলাম বাদল জানান, হাটে মালামাল কেনা-বেচার জন্য দু'দেশের নির্ধারিত ক্রেতা-বিক্রেতা আছেন। তারা ছাড়া আর কারও হাটের নির্ধারিত এলাকায় ঢোকার অনুমতি নেই।
তিনি আরও জানান, বাংলাদেশের ২৫ জন বিক্রেতা ও ৬১৪ জন ক্রেতা এবং ভারতের  ৫০ জন বিক্রেতা ও ৩৫৯ জন ক্রেতা আছেন। এদের সবাইকে হাটে আসা-যাওয়ার জন্য অনুমতিপত্র দেওয়া হয়েছে। স্বাভাবিকভাবে হাটের ক্রেতা-বিক্রেতা নির্ধারিত থাকায় এখানে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলা কার্যকর করতে কোনো সমস্যা হবে না।
এদিকে হাটের ক্রেতা-বিক্রেতাদের মাক্স পরিধান ও স্বাস্থ্যবিধি মেনে পুনরায় হাটটি চালু করার পক্ষে সিদ্ধান্ত নিয়েছে ভারতের স্থানীয় বর্ডার হাট ব্যবস্থাপনা কমিটি। মেঘালয় রাজ্যের আমপাতি সাউথ ওয়েস্ট গারো হিলের ডিপুটি কমিশনার তাদের এই সিদ্ধান্তের বিষয়টি চলতি জানুয়ারি মাসের ১১ তারিখে স্বাক্ষরিত চিঠি মারফত বাংলাদেশ অংশের বর্ডার হাট ব্যবস্থাপনা কমিটিকে অবহিত করেছেন। চিঠিটি ফ্যাক্স মারফত গত ১৩ জানুয়ারি হাট ব্যবস্থাপনা কমিটির চেয়ারম্যানের কাছে এসে পৌঁছেছে।
এ প্রসঙ্গে বাংলাদেশ অংশের বর্ডার হাট ব্যবস্থাপনা কমিটির চেয়ারম্যান ও কুড়িগ্রামের অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিষ্ট্রেট মো. সুজাউদ্দৌলা জানান, আমপাতি সাউথ ওয়েস্ট গারো হিলের ডিপুটি কমিশনারের পাঠানো চিঠি পেয়েছেন। এরই প্রেক্ষিতে গত ১৮ জানুয়ারি স্থানীয় বর্ডার হাট ব্যবস্থাপনা কমিটির সভা করা হয়েছে। যথা শিগগিরই সম্ভব এই সভার সিদ্ধান্ত জেলা প্রশাসকের মাধ্যমে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় ও বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের সংশ্লিষ্ট বিভাগকে অবহিত করা হবে। সেখান থেকে যে নির্দেশনা দেওয়া হবে সে অনুযায়ী পরবর্তী পদক্ষেপ গ্রহণ করা হবে।
উল্লেখ্য, কুড়িগ্রামের রাজিবপুর উপজেলার বালিয়ামারী এবং ভারতের মেঘালয় রাজ্যের আমপাতি জেলার মহেন্দ্রগঞ্জ থানার কালাইচর সীমান্তের ১০৭২ মেইন পিলারের ১৯ নম্বর সাব-পিলারের পাশে উভয় দেশের ৭৫ মিটার করে ৪ বিঘা জমিতে ২০১১ সালে ২৩ জুলাই আনুষ্ঠানিকভাবে হাটটি চালু করা হয়। তখন থেকে সপ্তাহে একদিন প্রতি বুধবার সকাল ১০টা থেকে দুপুর ২টা পর্যন্ত এই হাট বসতো। 
এরপর বিগত ২০১৯ সালের ১৮ সেপ্টেম্বর অনুষ্ঠিত বাংলাদেশ ও ভারতের বর্ডার হাট ব্যবস্থাপনা কমিটির সভায় বর্ডার হাট বসানোর দিন বাড়িয়ে দু'দিন করা হয়। এরপর ২০১৯ সালের ৭ অক্টোবর থেকে সপ্তাহে দু'দিন সোমবার ও বুধবার সকাল ১০টা থেকে বিকেল ৩টা পর্যন্ত হাটে কেনা-বেচা চলে আসছিল।

করোনা ভাইরাস লাইভ

আরও সংবাদ

করোনা ভাইরাস লাইভ ›

লাইভ অনুষ্ঠান বুলেটিন ছবি ভিডিও টিভি আর্কাইভ
বাংলার সময়
বাণিজ্য সময়
বিনোদনের সময়
খেলার সময়
আন্তর্জাতিক সময়
মহানগর সময়
অন্যান্য সময়
তথ্য প্রযুক্তির সময়
রাশিফল
লাইফস্টাইল
ভ্রমণ
প্রবাসে সময়
সাক্ষাৎকার
মুক্তকথা
বাণিজ্য মেলা
রসুই ঘর
বিশ্বকাপ গ্যালারি
বইমেলা
উত্তাল মার্চ
সিটি নির্বাচন
শেয়ার বাজার
জাতীয় বাজেট
বিপিএল
শিক্ষা সময়
ভোটের হাওয়া
স্বাস্থ্য
ধর্ম
চাকরি
পশ্চিমবঙ্গ
ফুটবল বিশ্বকাপ
ভাইরাল
সংবাদ প্রতিনিধি
সর্বশেষ সংবাদ
অনুসদ্ধান
মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন
GoTop