বাংলার সময় নড়িয়ায় মাদক পৌঁছে না দেওয়ার বাড়িতে সন্ত্রাসীদের হামলা

৩০-১১-২০২০, ১৩:৫৩

মফিজুর রহমান রিপন

fb tw
নড়িয়ায় মাদক পৌঁছে না দেওয়ার বাড়িতে সন্ত্রাসীদের হামলা
পূর্বশত্রুতার জের ধরে শরীয়তপুরের নড়িয়া উপজেলার মশুরা গ্রামের গোরাপী বাড়িতে প্রতিপক্ষের সন্ত্রাসী হামলায় ঘরবাড়ি ভাঙচুরসহ নগদ টাকা ও স্বর্ণালংকার লুট করে নিয়ে গেছে বলে অভিযোগ উঠেছে।
চিহ্নিত সন্ত্রাসী মো. কাদির সাহ ওরফে গাজা কাদিরের নেতৃত্বে ৪০ থেকে ৫০ জনের একটি সন্ত্রাসী দল রোববার সন্ধ্যা সাড়ে ৭টার দিকে এ হামলার ঘটনা ঘটায়। এ সময় ককটেল বোমার বিস্ফোরণে এলাকায় আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে। বাড়িটির বিভিন্ন ঘরে ঢুকে ভাঙচুর ও অস্ত্রের মুখে জিম্মি করে লুটপাটের ঘটনা ঘটায় তারা।
 
ক্ষতিগ্রস্ত গোরাপী বাড়ির মানুষ ও প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, জপসা ইউনিয়ন থেকে এসে তিন বছর আগে মশুরা গ্রামে জমি কিনে বাড়ি করে কাদির সাহ ওরফে গাজা কাদির। সে এখানে এসে মাদক ব্যবসা ও জুয়ার আসর বসিয়ে আধিপত্য বিস্তার করতে শুরু করে। গ্রামের যুবকদের ভয়ভীতি দেখিয়ে মাদক ব্যবসায় সংযুক্ত করতে থাকে সে। তার কথা না শুনলে তার দলের সন্ত্রাসীরা মারধর করে।
গত শুক্রবার রাতে মশুরা গ্রামের দুলাল গোরাপীর স্কুলপড়ুয়া ছেলে রানা গোরাপীর হাতে ইয়াবা তুলে দিয়ে নির্দিষ্ট স্থানে পৌঁছে দিতে বলে গাজা কাদেরের ছেলে নয়ন সাহ। সে রাজি না হওয়ায় তাকে মারধর করা হয় বলে জানান তারা।
পরিবার ও স্থানীয়রা তাকে উদ্ধার করে হাসপাতালে ভর্তি করে। এ ঘটনায় মামলা না করার জন্য হুমকি দেয় কাদির সাহ বলে জানান তারা।
 
এ ঘটনায় কাদির সাহের বাড়িতে বিকেলে পুলিশ গেলে সে ক্ষিপ্ত হয়ে সন্ধ্যা সাড়ে ৭টার দিকে গোরাপী বাড়িতে হামলা চালিয়ে ভাঙচুর ও লুটপাট চালায় তার সন্ত্রাসী বাহিনী নিয়ে।
ক্ষতিগ্রস্ত জানে আলম জানান, আমার স্ত্রী রোজিনা বেগমের চিকিৎসার জন্য জমি বিক্রির ৬ লাখ টাকা ঘরে রেখেছিলাম, যা লুট করে নিয়ে যায় সন্ত্রাসীরা।
 
দুলাল বেপারীর স্ত্রী রানু বেগম জানান, তার বৃদ্ধ শ্বশুরকে নিয়ে ঘরের সামনের ডেলনায় বসে সন্ধ্যায় চা খাচ্ছিলাম এমন সময় হামলাকারীরা ঘরে ঢুকে। শ্বশুর বাধা দিলে তাকে মারধর করে। অস্ত্র ঠেকিয়ে জিম্মি করে নগদ টাকা ও ৫ ভরি স্বর্ণ নিয়ে যায়। এ ছাড়া দুলাল গোরাপীর ছোট ভাই ফরিদ গোরাপীর ঘর ঢুকেও ভাঙচুর ও লুটপাট চালায় সন্ত্রাসীরা।
 
ককটেল বিস্ফোরণে এলাকায় আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে। ককটেল বোমার ভয়ে প্রতিবেশীরা উদ্ধারে কেউ এগিয়ে আসতে পারেননি। তারা লুটপাট করে ককটেল বিস্ফোরণ করে পালিয়ে যায় জানান তারা।
 
এ বিষয়ে অভিযুক্ত কাদির সাহের বাড়িতে গিয়ে তাকে পাওয়া যায়নি। তিনি তার ২ ছেলে নিয়ে গাঢাকা দিয়েছেন। তবে তার স্ত্রী সালমা বেগম জানান, ছেলেদের মারামারিকে কেন্দ্র করে গত শুক্রবার সন্ধ্যায় আমাদের বাড়িঘরে রানার বাবা দুলাল গোরাপী মানুষজন নিয়ে হামলা চালিয়ে ভাঙচুর ও লুটপাট করেছে। এখন বিচারে জেতার জন্য পুনরায় তাদেরটা তারাই ভাঙচুর করে আমাদের নামে মিথ্যা অভিযোগ করছে।
 
এদিকে রাতেই ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে নড়িয়া থানা পুলিশ।
ঘটনা সত্যতা স্বীকার করলেও পুলিশ সদর দফতরের অনুমতি নেই বলে ক্যামেরার সামনে কোনো কথা বলতে রাজি হয়নি নড়িয়া থানার ওসি হাফিজুর রহমান।
তবে এ ঘটনায় মামলা হয়েছে বলে জানান তিনি। মামলায় ১১ জনের নামসহ অজ্ঞাত আরও ২০ জনকে আসামি করে মামলা দায়ের করেছেন দুলাল গোরাপী।
 

করোনা ভাইরাস লাইভ

আরও সংবাদ

করোনা ভাইরাস লাইভ ›

লাইভ অনুষ্ঠান বুলেটিন ছবি ভিডিও টিভি আর্কাইভ
বাংলার সময়
বাণিজ্য সময়
বিনোদনের সময়
খেলার সময়
আন্তর্জাতিক সময়
মহানগর সময়
অন্যান্য সময়
তথ্য প্রযুক্তির সময়
রাশিফল
লাইফস্টাইল
ভ্রমণ
প্রবাসে সময়
সাক্ষাৎকার
মুক্তকথা
বাণিজ্য মেলা
রসুই ঘর
বিশ্বকাপ গ্যালারি
বইমেলা
উত্তাল মার্চ
সিটি নির্বাচন
শেয়ার বাজার
জাতীয় বাজেট
বিপিএল
শিক্ষা সময়
ভোটের হাওয়া
স্বাস্থ্য
ধর্ম
চাকরি
পশ্চিমবঙ্গ
ফুটবল বিশ্বকাপ
ভাইরাল
সংবাদ প্রতিনিধি
সর্বশেষ সংবাদ
অনুসদ্ধান
মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন
GoTop