আন্তর্জাতিক সময় বন্দি বিনিময়ে একমত ইয়েমেন সরকার-হাউথি

২৭-০৯-২০২০, ২২:২০

আন্তর্জাতিক সময় ডেস্ক

fb tw
বন্দি বিনিময়ে একমত ইয়েমেন সরকার-হাউথি
ইয়েমেন সরকার এবং হাউথি বিদ্রোহীরা বন্দি বিনিময়ে একমত হয়েছে। এই যাত্রায় এক হাজার বন্দি বিনিময় হবে। এর মধ্যে অন্তত ১৫ জন সৌদি সেনা রয়েছেন যারা হাউথিদের হাতে বন্দি রয়েছে।
রোববার (২৭ সেপ্টেম্বর) সুইজারল্যান্ডে জাতিসংঘের উদ্যোগে ইরান সমর্থিত হাউথি বিদ্রোহী ও সৌদি সমর্থিত সরকারের মধ্যে শান্তি আলোচনায় এ সিদ্ধান্ত হয়। খবর আল-জাজিরার। 
জাতিসংঘের প্রতিনিধি মার্টিন গ্রিফিথস বলেন, ‌'আমি ব্যক্তিগতভাবে খুবই খুশি যে, দু'পক্ষকে একটি শান্তিপূর্ণ সমাধানের পথে অগ্রসর করতে পেরেছি।'
জাতিসংঘ সমর্থিত এ সরকারকে সৌদি আরব অস্ত্র ও সেনা সহায়তা দিয়ে আসছে। এর আগে ২০১৮ সালে ১৫ হাজার বন্দি বিনিময়ের একটি চুক্তিতে দু'পক্ষই স্বাক্ষর করে। কিন্তু সেটি যেভাবে কার্যকর হওয়ার কথা ছিল সেভাবে হয়নি। প্রত্যাশার তুলনায় অনেক ধীর গতিতে চলছে সেই চুক্তির কার্যক্রম। সে সময়ও জাতিসংঘ মধ্যস্থতা করেছিল চুক্তিটিতে। 
রেড ক্রসের আন্তর্জাতিক কমিটি (আইসিআরসি) বলেছে, 'দীর্ঘ আলোচনা পর্যালোচনার পর এ বিষয়ে একমত হওয়ে গেছে যে, দু'পক্ষই এখন ১ হাজার ৮১ জন বন্দিকে মুক্তি দেবে।'
হাউথিদের দ্বারা পরিচালিত ইয়েমেনের মাশিরাহ টেলিভিশন জানিয়েছে, হাউথিরা ১৫ জন সৌদি সেনাসহ ৪শ' বন্দিকে মুক্তি দেবে। এর বিনিময়ে সৌদি সমর্থিত সরকার ৬৮১ জন হাউথি যোদ্ধাকে মুক্তি দেবে। ২০১৮ সালে শান্তি আলোচনার পর বন্দি বিনিময়ে এটি সবচেয়ে বড় চুক্তি।
মার্টিন গ্রিফিথস বলেন, ‌'আমি মনে করি এই বন্দিদের মুক্তি দেয়ার পরপরই দু'পক্ষের উচিৎ হবে পুনরায় সংঘর্ষে না জড়িয়ে শান্তি আলোচনায় অগ্রসর হতে।'
আইসিআরসি মুক্তি পাওয়ার পর সব বন্দির সাক্ষাৎকার নেবে। একই সঙ্গে তাদের স্বাস্থ্য পরীক্ষা করবে বলে ঘোষণা দিয়েছে।
গত বছর হাউথিরা ২৯০ সরকারি বন্দিকে মুক্তি দেয়, অপর দিকে সরকারের পক্ষ থেকে ১২৮ হাউথি যোদ্ধাকে মুক্তি দেয়া হয়। এ বছরের ১৮ সেপ্টেম্বর সুইজারল্যান্ডে সর্বশেষ আলোচনা শুরু হয়। যার লক্ষ্য ছিল ১ হাজার ৪২০ জন বন্দিকে মুক্তি দেওয়ার বিষয়ে একমত হওয়া। তাদের মধ্যে ইয়েমেনের রাষ্ট্রপতি আবদ-রাব্বু মনসুর হাদির ভাই নাসের মনসুর হাদিও রয়েছেন।
ইয়েমেনের সরকারের প্রতিনিধি দলের এক সদস্যের বরাত দিয়ে আল-জাজিরা জানিয়েছে, হাউথি বিদ্রোহীদের হাত থেকে জেনারেল নাসের মনসুর হাদির মুক্তি “পিছিয়ে দেওয়া হয়েছে”।
২০১৫ সালে ইয়েমেন সরকারের দুর্নীতি ও নানা অপকর্মের বিরুদ্ধে বিক্ষোভ শুরু হয়। এক সময় বিক্ষোভের নেতৃত্ব চলে আসে হাউথিদের হাতে। সে সময় হাউথিরা আন্তর্জাতিকভাবে স্বীকৃত মনসুর হাদি সরকারকে ক্ষমতাচ্যুত করে। তখন হাদি সৌদি আরবের হস্তক্ষেপ কামনা করলে সংঘর্ষ শুরু হয়। 
এই সংঘাতে দেশটিতে হাজার হাজার বেসামরিক নাগরিক নিহত ও কয়েকলাখ মানুষ বাস্তুচ্যুত হয়েছে। দুর্ভিক্ষের কবলে পড়েছে দেশটির বেশিরভাগ সাধারণ নাগরিক। জাতিসংঘ এটিকে সবচেয়ে বড় মানবিক বিপর্যয় বলে আখ্যা দিয়েছে।
এই যুদ্ধকে ইরান ও সৌদি আরবের মধ্যে প্রক্সি যুদ্ধ বলে বিবেচনা করা হয়। এই ব্যায় বহুল যুদ্ধ থেকে বেরিয়ে আসতে সৌদি আরব গত বছর উদ্যোগ গ্রহণ করলে শুরু হয় আলোচনার।

করোনা ভাইরাস লাইভ

আরও সংবাদ

করোনা ভাইরাস লাইভ ›

লাইভ অনুষ্ঠান বুলেটিন ছবি ভিডিও টিভি আর্কাইভ
বাংলার সময়
বাণিজ্য সময়
বিনোদনের সময়
খেলার সময়
আন্তর্জাতিক সময়
মহানগর সময়
অন্যান্য সময়
তথ্য প্রযুক্তির সময়
রাশিফল
লাইফস্টাইল
ভ্রমণ
প্রবাসে সময়
সাক্ষাৎকার
মুক্তকথা
বাণিজ্য মেলা
রসুই ঘর
বিশ্বকাপ গ্যালারি
বইমেলা
উত্তাল মার্চ
সিটি নির্বাচন
শেয়ার বাজার
জাতীয় বাজেট
বিপিএল
শিক্ষা সময়
ভোটের হাওয়া
স্বাস্থ্য
ধর্ম
চাকরি
পশ্চিমবঙ্গ
ফুটবল বিশ্বকাপ
ভাইরাল
সংবাদ প্রতিনিধি
সর্বশেষ সংবাদ
অনুসদ্ধান
মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন
GoTop