প্রবাসে সময় পরিবেশ রক্ষায় জার্মানিতে 'ফ্রাইডে ফর ফিউচার' সমাবেশ

২৬-০৯-২০২০, ১৭:৪৭

বিটু বড়ুয়া

fb tw
পরিবেশ রক্ষায় জার্মানিতে 'ফ্রাইডে ফর ফিউচার' সমাবেশ
সারাবিশ্বের স্কুল শিক্ষার্থীদের দ্বারা পরিচালিত জলবায়ু বিষয়ক আন্দোলন ‘ফ্রাইডেস ফর ফিউচার’ ২৫ সেপ্টেম্বর ‘বৈশ্বিক ক্লাইমেট এ্যাকশন দিবস’ পালিত হয়েছে। জলবায়ু পরিবর্তন প্রশমন ও জীবাশ্ম জ্বালানির পরিবর্তে নবায়নযোগ্য জ্বালানির ব্যবহার বৃদ্ধি নিশ্চিত করতে রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দকে কার্যকর পদক্ষেপ গ্রহণের দাবি জানিয়ে আসছে স্কুল শিক্ষার্থীদের আন্দোলন ‘ফ্রাইডেস ফর ফিউচার’।
বিভিন্ন দেশের মতো জার্মানিতেও পৃথিবীর অব্যাহত উঞ্চতা বৃদ্ধি ও জলবায়ু রক্ষায় 'ফ্রাইডে ফর ফিউচার' শিরোনামে সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়েছে। জার্মানির বিভিন্ন অঙ্গরাজ্যে শুক্রবার অনুষ্ঠিত এ সমাবেশগুলো থেকে বিশ্বকে বাঁচানোর ডাক দেন অংশগ্রহণকারীরা।
এ দিবসের সঙ্গে একাত্মতা প্রকাশকরে দুর্নীতি বিরোধী আন্তর্জাতিক প্রতিষ্ঠান ট্রান্সফারেন্সি ইন্টারন্যাশনাল (টিআই)। প্রতিষ্ঠানটি বিশ্ব নেতৃবৃন্দের প্রতি স্বল্পোন্নত দেশগুলোরকে পর্যাপ্ত জলবায়ু তহবিল দেয়ার আহ্বান জানিয়েছে। এছাড়াও বিশ্বের নানা পরিবেশবাদি সংগঠন এই আন্দোলনের সঙ্গে একাত্মতা প্রকাশ করে দিবসটি পালন করেছে।
বাসযোগ্য পৃথিবী গড়া ও জলবায়ু রক্ষার নিশ্চয়তা পেতে সারাবিশ্বের অন্যান্য দেশের মত শুক্রবার জার্মানিজুড়ে, ফ্রাইডে ফর ফিউচার শিরোনামে সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়। মরনঘাতী করোনা ও বিরূপ আবহাওয়া উপেক্ষা করে এতে অংশ নেন বহু মানুষ। সমাবেশ থেকে পারমাণবিক শক্তি বর্জন এবং নবায়নযোগ্য সবুজ শক্তি ব্যবহারের ওপর জোর দেওয়া হয়। সেইসঙ্গে জলবায়ু পরিবর্তনের শিকার ক্ষতিগ্রস্ত দেশগুলোর পাশে দাঁড়ানোর জন্য বিশ্ব নেতৃবৃন্দের কাছে আহবান জানানো হয়।
পুরুষ- বিশ্বের বিভিন্ন দেশের বিজ্ঞানীরা এতটুকু নিশ্চিত হয়েছেন যে, পৃথিবীর এমন উঞ্চতা বৃদ্ধি পেলে আমাদের ধ্বংস অনিবার্য। তাই আসুন এখনি সচেতন হই। নারী- আমরা এখানে জলবায়ুর ক্ষতির কথা বলতে আসিনি, এসেছি সমাধান পেতে।
সমাবেশকারীরা আরো বলেন, জলবায়ু পরিবর্তনের জন্য দায়ী উন্নত বিশ্বের দেশগুলো। তাদের অতিমাত্রায় কার্বনডাই-অক্সাইডের নির্সরণের শিকার দরিদ্র দেশগুলো যেখানে বন্যা, খরা ও উষ্ণতার ক্ষতিকর প্রভাবে ধুঁকছে সাধারণ মানুষেরা। তাই এখনি ব্যাবস্থা না নিলে রাজপথে আন্দোলন চালিয়ে যাবার হুমকি দেন তারা। সমাবেশে জার্মানির বিভিন্ন অঙ্গরাজ্যেরকয়েক হাজার মানুষ অংশ নেয়। 
পরিবেশ বাঁচানোর এই নতুন আন্দোলনের কারিগর মূলত স্কুলের শিক্ষার্থীরা। নতুন আদলে তাদের এই আন্দোলন ক্রমেই বেড়ে চলেছে। আন্দোলনের শুরুটা হয়েছিল সুইডেনে। তারপর তা ইউরোপের নানা দেশের গণ্ডি পেরিয়ে ব্যাপ্তি লাভ করেছে বিশ্বজুড়ে।
২০১৮ সালের গ্রীষ্মে সুইডেনের গ্রের্টা থুনবের্গ নামের ১৫ বছর বয়সী এক স্কুলছাত্রী এই আন্দোলনের সূত্রপাত করে। আন্দোলনটির মূলনীতি হলো 'স্কুলের আগে পরিবেশ'। আর সেই নীতিবাক্য মেনে আজ শুক্রবার শেষের দুটি পিরিয়ড ফেলে রেখে স্কুল ছেড়ে পরিবেশের জন্য বিশ্বব্যাপী লাখো শিক্ষার্থী রাজপথে নেমেছে।

করোনা ভাইরাস লাইভ

আরও সংবাদ

করোনা ভাইরাস লাইভ ›

লাইভ অনুষ্ঠান বুলেটিন ছবি ভিডিও টিভি আর্কাইভ
বাংলার সময়
বাণিজ্য সময়
বিনোদনের সময়
খেলার সময়
আন্তর্জাতিক সময়
মহানগর সময়
অন্যান্য সময়
তথ্য প্রযুক্তির সময়
রাশিফল
লাইফস্টাইল
ভ্রমণ
প্রবাসে সময়
সাক্ষাৎকার
মুক্তকথা
বাণিজ্য মেলা
রসুই ঘর
বিশ্বকাপ গ্যালারি
বইমেলা
উত্তাল মার্চ
সিটি নির্বাচন
শেয়ার বাজার
জাতীয় বাজেট
বিপিএল
শিক্ষা সময়
ভোটের হাওয়া
স্বাস্থ্য
ধর্ম
চাকরি
পশ্চিমবঙ্গ
ফুটবল বিশ্বকাপ
ভাইরাল
সংবাদ প্রতিনিধি
সর্বশেষ সংবাদ
অনুসদ্ধান
মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন
GoTop