আন্তর্জাতিক সময় ১৪ বছর পর রাঘাভলুর নিজ দেশে ফেরা

২৫-০৯-২০২০, ২১:০২

আন্তর্জাতিক সময় ডেস্ক

fb tw
১৪ বছর পর রাঘাভলুর নিজ দেশে ফেরা
১৪ বছর সংযুক্ত আরব আমিরাতে আটকে থাকার পর অবশেষে দেশে ফিরছেন এক ভারতীয় নাগরিক। ২৬ সেপ্টেম্বর তার দেশে ফেরার কথা।
৪১ বছর বয়সী বাসকারি রাঘাভলুর বাড়ি ভারতের অন্ধ্রপ্রদেশে। বাড়ি ফেরে প্রথমবারের মতো দেখতে চান তার একমাত্র মেয়েকে। যখন তিনি আমিরাতে যান তখন তার মেয়েটি মায়ের গর্ভে ছিল। তার ওপর আমিরাত সরকারের ৫ লাখ দিনারের মতো জরিমানা আরোপ করা ছিল। জরিমানা মওকুফ এবং দেশে ফেরার সুযোগ করে দেয়ায় সংশ্লিষ্টদের কাছে কৃতজ্ঞতা জানান তিনি।
‘পরিবাররের সঙ্গে সাক্ষাতের জন্য আর অপেক্ষা করতে পারছি না। রাঘাভলু গালফ নিউজকে বলেন। জীবনের উপর দিয়ে অনেক বড় একটা যুদ্ধ গেছে। জীবনের আশা ছেড়েই দিয়েছিলাম।’ ২০০৬ সালে রাঘাভলু আমিরাতে পৌঁছান। ‘সে সময় আমরা স্ত্রী প্রথম সন্তানসম্ভবা ছিল। তখন আমরা সিদ্ধান্ত নিয়েছিলাম, আমরা আমিরাতে গিয়ে কাজ করবো। আমাদের সন্তানের জন্য একটি সুন্দর ভবিষ্যত তৈরি করবো। অর্থ সঞ্চয়ের মাধ্যমে সেই স্বপ্ন বাস্তবায়ন করতে চেয়ছি আমরা। কে জানতো দীর্ঘ ১৪ বছর আমাকে মেয়ের কাছ থেকে দূরে থাকতে হবে?’
আমিরাতে পৌঁছানোর কিছুদিন পরই তিনি সড়ক দুর্ঘটনার শিকার হন। কোম্পানির গাড়িতে করে যাবার পথে দুর্ঘটনায় পড়ে আহত হন তিনি। হাতে, পায়ে এবং ঘাড়ে আঘাত পান। যে কোম্পানিতে চাকরি করতেন সেখানে থেকে ক্ষতিপূরণ নেয়ার চেষ্টা করেন। একজন আইনজীবীও ভাড়া করেন। আইনজীবী তার থেকে পাসপোর্ট নিয়ে নেয়। ‘আমি জানি না আইনজীবী কোথায় আছে, কোথায় আছে আমরা পাসপোর্ট।’ আমিরাতে পৌঁছানোর একমাসের মধ্যেই তার সঙ্গে এসব ঘটে যায়। ‘আমি জানতাম না কোথায় গিয়ে সহায়তা চাইবো। আমি অপেক্ষা করছিলাম আইনজীবী এসে আমাকে উদ্ধার করেব।’ বলেন রাঘাভলু।
জীবন বাঁচানোর জন্য রাঘাভলুকে অনেক কঠিন কাজ করতে হয়েছে। ‘এভাবে কিছু অর্থ আমি পরিবারের কাছে প্রতিমাসে পাঠিয়েছি। কিন্তু গেলো তিন বছর যাবত তাও বন্ধ হয়ে যায়।’ তিনি বলেন, আমিরাত সরকারের আয়োজনে অ্যামনেস্টির একটি আয়োজনে উপস্থিত থাকার সুযোগ পেয়েছিলেন। সে সময় দেশে যাওয়ার জন্য আউটপাস পান। কিন্তু বিমানে যাওয়ার অর্থ না থাকায় আটকে থাকেন তিনি।
‘আমার সংগ্রাম চলতে থাকে। ভালো একটা চাকরি জুটানো আমার জন্য খুব কঠিন হয়ে পড়েছিল। সবশেষ আমি একজন সমাজকর্মীর সঙ্গে সাক্ষাত করি। তিনি আমাকে সহায়তা করতে রাজি হন।’ বলেন রাঘাভলু। 
আইনজীবী এবং সমাজকর্মী শিলা থমাস বলেন, তিনি রাঘভলুকে খুবই বিধ্বস্ত অবস্থায় পান। কোনোরকম বেঁচে থাকার চেষ্টা করছিলেন তিনি। বাইরে থেকে তাকে শক্ত মনে হলেও ভেতরে ছিলেন বিধ্বস্ত। যখন তিনি বললেন, বাড়ি ফিরে গিয়ে তিনি মেয়েকে দেখতে চান। তখন আমি তার হয়ে লড়ার সিদ্ধান্ত নেই।
থমাস বলেন, অবৈধভাবে থাকার অপরাধে রাঘাভলুকে যে পরিমাণ জরিমানা করা হয়েছিল সেগুলো মওকুফ করে দেয়া হয়েছে। মুম্বাইয়ের ফ্লাইটে তার জন্য একটা টিকিট কেনা হয়েছে। ২৬ সেপ্টেম্বর তিনি দেশে ফিরতে পারবেন। বলেন থমাস।

করোনা ভাইরাস লাইভ

আরও সংবাদ

করোনা ভাইরাস লাইভ ›

লাইভ অনুষ্ঠান বুলেটিন ছবি ভিডিও টিভি আর্কাইভ
বাংলার সময়
বাণিজ্য সময়
বিনোদনের সময়
খেলার সময়
আন্তর্জাতিক সময়
মহানগর সময়
অন্যান্য সময়
তথ্য প্রযুক্তির সময়
রাশিফল
লাইফস্টাইল
ভ্রমণ
প্রবাসে সময়
সাক্ষাৎকার
মুক্তকথা
বাণিজ্য মেলা
রসুই ঘর
বিশ্বকাপ গ্যালারি
বইমেলা
উত্তাল মার্চ
সিটি নির্বাচন
শেয়ার বাজার
জাতীয় বাজেট
বিপিএল
শিক্ষা সময়
ভোটের হাওয়া
স্বাস্থ্য
ধর্ম
চাকরি
পশ্চিমবঙ্গ
ফুটবল বিশ্বকাপ
ভাইরাল
সংবাদ প্রতিনিধি
সর্বশেষ সংবাদ
অনুসদ্ধান
মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন
GoTop