বাংলার সময় ভাগ্নে বউকে ধর্ষণ, জেনেও নীরব স্বামী, অতঃপর...

১৫-০৯-২০২০, ১২:১৮

মোফাখখারুল ইসলাম মজনু

fb tw
প্রতীকী
ছবি: প্রতীকী
09
লালমনিরহাটের হাতীবান্ধা উপজেলায় গড্ডিমারী ইউনিয়নে ভাগ্নে বউকে ধর্ষণের অভিযোগে আক্তার খন্দকার নামে এক ব্যক্তিকে গ্রেফতার করে আদালতের মাধ্যমে জেলহাজতে পাঠানো হয়েছে।
জানা গেছে, ওই ব্যক্তি সম্ভাব্য ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান প্রার্থী ও বুড়িমারী স্থলবন্দরে খন্দকার হোটেলের মালিক।
সোমবার (১৪ সেপ্টেম্বর) ওই হোটেলের মালিক আক্তার খন্দকার ও ম্যানেজার এবং ওই নারীর স্বামী আতিয়ার রহমানকে আদালতে তোলা হয়। পরে তাদের জেলহাজতে পাঠানোর নির্দেশ দেন আদালত। এর আগে রোববার রাতে বুড়িমারী স্থলবন্দর এলাকা থেকে তাদের আটক করা হয়।
আক্তার খন্দকার হাতীবান্ধা উপজেলার মধ্য গড্ডিমারী (মিলনবাজার) এলাকার নেহার উদ্দিনের ছেলে। আতিয়ার রহমান ওই এলাকার নুর হোসেন ওরফে দুলার মিয়ার ছেলে।
এদিকে আক্তার খন্দকার আসন্ন গড্ডিমারী ইউপি নির্বাচনে চেয়ারম্যান প্রার্থী হিসাবে মাঠে প্রচার প্রচারণা চালিয়ে আসছিলেন জানা গেছে।
             
প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, বুড়িমারী স্থলবন্দর এলাকায় ভাড়া বাসায় বসবাস করতেন খন্দকার হোটেলের ম্যানেজার আতিয়ার রহমানের পরিবারসহ মালিক আক্তার খন্দকার। একই বাসায় থাকার সুযোগে মালিক প্রায় রাতে তার ভাগ্নে বউকে জোরপূর্বক ধর্ষণ করে আর কাউকে না বলার জন্য হুমকি দেয়। এমনিভাবে ৮ সেপ্টেম্বর রাতে আক্তার খন্দকার আবার তাকে জোরপূর্বক ধর্ষণ করে। ওই নারী বিষয়টি তার স্বামী আতিয়ার রহমানকে জানান। আতিয়ার রহমান বিষয়টি কিছুতেই বিশ্বাস না করে উল্টো তাকে সাবধান করে দেয়। ভবিষ্যতে পরিবারের কারো সঙ্গে এ বিষয়ে আলোচনা না করার জন্য বলে।
অতঃপর কোনো কূলকিনারা না পেয়ে তিনি রোববার (১৩ সেপ্টেম্বর) বিকালে হোটেলের সামনে গিয়ে আক্তার খন্দকারকে আটক করে তাকে বিয়ে করার জন্য চিৎকার করতে থাকেন। এসময় স্বামী আতিয়ার রহমান আক্তার খন্দকারের পক্ষ নিয়ে কথা বললে ঝামেলা আরও বাড়তে থাকে। ঘটনাস্থলে শতশত জনতা উপস্থিত হয়ে আক্তার খন্দকার ও আতিয়ার রহমানকে আটক করে বুড়িমারী ইউনিয়ন পরিষদের কাছে হস্তান্তর করে।
ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান শাহনেওয়াজ নিশাদ ঘটনা বেগতিক দেখে পাটগ্রাম থানায় খবর দেয়। পরে পুলিশ আক্তার খন্দকার ও আতিয়ার রহমানকে উদ্ধার করে থানায় নিয়ে আসেন। পরে রাতেই ওই নারী বাদী হয়ে মামা আক্তার খন্দকার ও তার স্বামী আতিয়ার রহমানকে আসামি করে থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে মামলা করেন।
এ বিষয়ে বুড়িমারী ইউপি চেয়ারম্যান শাহ নেওয়াজ নিশাদ বলেন, শতশত জনতা আক্তার খন্দকার ও আতিয়ার রহমানকে ইউনিয়ন পরিষদের জমা দিয়ে বিষয়টি আমায় জানায়। আমার স্ত্রীর করোনা পজেটিভ এবং আমি লকডাউনে আছি। এছাড়াও এ বিচার করার কোন এখতিয়ার আমার নেই। তাই খবর দিলে পুলিশ এসে তাদের নিয়ে যায়।
পাটগ্রাম থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সুমন কুমার মহন্ত ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, আক্তার খন্দকার ও আতিয়ার রহমানকে সোমবার দুপুরে আদালতে সোপর্দ করলে তাদের জেলহাজতে পাঠানোর নির্দেশ দেন।

করোনা ভাইরাস লাইভ

আরও সংবাদ

করোনা ভাইরাস লাইভ ›

লাইভ অনুষ্ঠান বুলেটিন ছবি ভিডিও টিভি আর্কাইভ
বাংলার সময়
বাণিজ্য সময়
বিনোদনের সময়
খেলার সময়
আন্তর্জাতিক সময়
মহানগর সময়
অন্যান্য সময়
তথ্য প্রযুক্তির সময়
রাশিফল
লাইফস্টাইল
ভ্রমণ
প্রবাসে সময়
সাক্ষাৎকার
মুক্তকথা
বাণিজ্য মেলা
রসুই ঘর
বিশ্বকাপ গ্যালারি
বইমেলা
উত্তাল মার্চ
সিটি নির্বাচন
শেয়ার বাজার
জাতীয় বাজেট
বিপিএল
শিক্ষা সময়
ভোটের হাওয়া
স্বাস্থ্য
ধর্ম
চাকরি
পশ্চিমবঙ্গ
ফুটবল বিশ্বকাপ
ভাইরাল
সংবাদ প্রতিনিধি
সর্বশেষ সংবাদ
অনুসদ্ধান
মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন
GoTop