স্বাস্থ্য অগ্নাশয়ের ক্যান্সার গবেষণায় সাফল্য পেলেন বাঙালি বিজ্ঞানী

১৩-০৮-২০২০, ১৮:৫৬

স্বাস্থ্য সময় ডেস্ক

fb tw
অগ্নাশয়ের ক্যান্সার গবেষণায় সাফল্য পেলেন বাঙালি বিজ্ঞানী
অগ্নাশয় ক্যান্সার চিকিৎসার জেনেটিক মডেল তৈরি করেছেন মার্কিন প্রবাসী এক বাঙালি বিজ্ঞানী। ক্যান্সারের চিকিৎসায় এ এক যুগান্তকারী আবিষ্কার। যে কোনও পরীক্ষামূলক বিষয় নিয়ে গভীরভাবে পর্যবেক্ষণ করে এসেছেন কলকাতার মধ্যবিত্ত পরিবারের ছেলে অনিন্দ্য বাগচি।
অগ্নাশয় ক্যানসার উপসমের জেনেটিক স্ট্রাকচার তৈরি করেন তিনি, যা ব্যবহার করে তৈরি হতে পারে ওষুধ। চিকিৎসকরা বলতেন, এই রোগের কার্যত কোনও চিকিৎসা নেই। তবে পরবর্তীকালে এই রোগ নিয়ে একটি হাইপোথিসিস তৈরি হয়েছিল। দীর্ঘদিন ধরে সেই হাইপোথিসিসের উপর নির্ভর করেই রোগটির চিকিৎসা চলছিল।
মিনেসোটা বিশ্ববিদ্যালয়ের ক্যানসার জেনেটিক্সের অধ্যাপক অনিন্দ্য বাগচি সাত-আট বছর আগে স্যানফোর্ড ব্রুনহ্যাম প্রেবিস মেডিক্যাল ডিসকভারি ইনস্টিটিউটে নিজের ল্যাবে অগ্নাশয় ক্যানসার নিয়ে গবেষণা শুরু করেন।
বছর কয়েকের মধ্যেই অনিন্দ্য এবং তার সহকর্মীরা এক আশ্চর্য সত্যের মুখোমুখি হন। এতদিন ধরে যে হাইপোথিসিসের উপর ভিত্তি করে অগ্নাশয় ক্যানসারের চিকিৎসা চলছিল, তা রোগের উপশম তো করেই না বরং, উল্টো ফল হতে পারে।
দীর্ঘ প্রায় আট বছরের কঠোর পরিশ্রমের পরে শেষ পর্যন্ত অনিন্দ্য এবং তার দল একটি প্রোটিনের সন্ধান পেয়েছেন, যা অগ্নাশয় ক্যানসার উপশমে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা নিতে পারে।
পেশায় জেনেটিক্স বিজ্ঞানী অনিন্দ্য চর্চায় বামপন্থী। সেই স্কটিশ চার্চ কলেজে রসায়ন নিয়ে পড়ার সময় থেকেই তিনি বামপন্থী রাজনীতি এবং প্রগতিশীল পড়াশোনায় উৎসাহী। তার বিশ্বাস, ছোটবেলায় রাশিয়ার ভস্তক প্রকাশনার প্রগতিশীল বই তার হাতে না পড়লে আজ হয়তো বিজ্ঞানীই হয়ে উঠতে পারতেন না। বায়োকেমিস্ট্রিতে স্নাতকোত্তর করেছেন কল্যাণী বিশ্ববিদ্যালয় থেকে। তারপর পিএইচডি করেন দিল্লির জওহরলাল নেহেরু বিশ্ববিদ্যালয়ে। এরপর মার্কিন বিশ্ব। পোস্ট ডক করেছেন নিউ ইয়র্কের একটি বিশ্ববিখ্যাত ল্যাবে। ২০১৪ সালে তার গুরুত্বপূর্ণ গবেষণা স্থান পেয়েছিল নেচার পত্রিকায়। তবে ২০২০ সালে তার আবিষ্কার তাবৎ বিজ্ঞান বিশ্বে আলোড়ন ফেলে দিয়েছে। অনিন্দ্য অবশ্য মনে করেন, এটা তার একার কৃতিত্ব নয়, তার পুরো দলের। সকলে মিলেই এই গবেষণা করেছেন। বিশেষ করে তিনি বলতে চান আশুতোষ তিওয়ারির কথা। গোটা গবেষণা প্রক্রিয়ায় আশুতোষ গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করেছেন বলে অনিন্দ্য জানিয়েছেন।
অনিন্দ্যর এই আবিষ্কারকে অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ বলে মনে করছেন চিকিৎসকরা। দিল্লির বিশিষ্ট চিকিৎসক পার্থপ্রতীম বসু জানিয়েছেন, অগ্নাশয় ক্যানসার এক অত্যন্ত জটিল রোগ। ১০ শতাংশ মানুষকে কিছু দিনের জন্য বাঁচানো যায়। নতুন এই আবিষ্কার বহু মানুষকে সুস্থ করতে সাহায্য করবে।
সূত্র : ডয়েচে ভেলে।

করোনা ভাইরাস লাইভ

আরও সংবাদ

করোনা ভাইরাস লাইভ ›

লাইভ অনুষ্ঠান বুলেটিন ছবি ভিডিও টিভি আর্কাইভ
বাংলার সময়
বাণিজ্য সময়
বিনোদনের সময়
খেলার সময়
আন্তর্জাতিক সময়
মহানগর সময়
অন্যান্য সময়
তথ্য প্রযুক্তির সময়
রাশিফল
লাইফস্টাইল
ভ্রমণ
প্রবাসে সময়
সাক্ষাৎকার
মুক্তকথা
বাণিজ্য মেলা
রসুই ঘর
বিশ্বকাপ গ্যালারি
বইমেলা
উত্তাল মার্চ
সিটি নির্বাচন
শেয়ার বাজার
জাতীয় বাজেট
বিপিএল
শিক্ষা সময়
ভোটের হাওয়া
স্বাস্থ্য
ধর্ম
চাকরি
পশ্চিমবঙ্গ
ফুটবল বিশ্বকাপ
ভাইরাল
সংবাদ প্রতিনিধি
সর্বশেষ সংবাদ
অনুসদ্ধান
মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন
GoTop