বাংলার সময় মৌলভীবাজারে সাড়ে সাত কোটি টাকার মাল্টা বিক্রির আশা

১৩-০৮-২০২০, ১৩:৩৮

শাহ্ অলিদুর রহমান

fb tw
মৌলভীবাজারে সাড়ে সাত কোটি টাকার মাল্টা বিক্রির আশা
বাণিজ্যিকভাবে মাল্টা চাষ করে মৌলভীবাজারের অর্ধশতাধিক বেকার যুবক আর্থিকভাবে সচ্ছল হয়েছেন। বিগত কয়েক বছরে সরকারের নগদ আর্থিক সহায়তা ও মাঠ পর্যায়ে নানা প্রশিক্ষণই তাদের জীবনের গতি পাল্টে দিয়েছে। ফলন ভালো হওয়াতে এবারে সাড়ে সাত কোটি টাকার মাল্টা বিক্রি হবে।
কৃষি বিভাগের দেয়া তথ্য মতে, জৈন্তাপুর, সিলেট কৃষি গবেষণা ইনিস্টিটিউট ও খাগড়াছড়ি কৃষি গবেষণা ইনিস্টিটিউট যৌথভাবে বারী মাল্টা-১ জাতের উদ্ভাবন নিয়ে গবেষণা শুরু করেন। এক পর্যায়ে তাদের এ গবেষণা বাস্তবে রূপলাভ করে। ২০০৪ সালে অনেক পরীক্ষা নিরীক্ষার পর বারী মাল্টা-১ জাতের স্থায়ী উদ্ভাবন হয়। প্রাথমিক পর্যায়ে সিলেটের জৈন্তাপুর থেকে কিছু সংখ্যক চারা মৌলভীবাজার জেলায় চাষের জন্য নিয়ে আসা হয়। তবে মাল্টা চাষে লোকজনদের মধ্যে তখন তেমন একটা আগ্রহ দেখা যায়নি। কৃষি বিভাগের প্রচেষ্টায় তখন মাল্টা চাষে আগ্রহী করতে নানাভাবে উদ্যোগ নেয়া হয়। এসব উদ্যোগের মধ্যে ছিল, এনএটিপি (ন্যাশনাল এগ্রিকালচার‌্যাল টেকনোলজি প্রজেক্ট), শস্য-নিবিরতা বৃদ্ধিকরণ প্রকল্পসহ সর্বশেষ লেবু জাতীয় ফসল সম্প্রসারণ প্রকল্পের মাধ্যমে মাল্টা বাগান সৃজন করা হয়।
কৃষি বিভাগ জানিয়েছে, প্রথম দিকে নতুন এ ফসল মাল্টা চাষে এ অঞ্চলের পুরানো চাষিদের মধ্যে তেমন একটা আগ্রহ দেখা যায়নি। এতে কৃষি বিভাগ জেলার অধিকাংশ বেকার যুবকদের প্রশিক্ষণ দিয়ে বিনামূল্যে চারা ও নগদ টাকা বিতরণ করে মাল্টা চাষাবাদে উৎসাহী করে তেলে। এতে ব্যাপক সাড়া পড়ে যায়। ২০১৫ সাল থেকে জেলায় বাণিজ্যিকভাবে মাল্টা চাষ শুরু হয় । বর্তমানে মৌলভীবাজার জেলার সাতটি উপজেলায় অর্ধশতাধিক যুবক মাল্টা বাগান করে তাদের আর্থিক সচ্ছলতা এসেছে।
মৌলভীবাজার কৃষি অধিদপ্তরের উপ-পরিচালক কাজী লুৎফুল বারী জানান, জেলায় এ পর্যন্ত ছোট-বড় মিলে ২৭৫টি মাল্টা বাগান গড়ে উঠেছে। বাগানে মোট জমির পরিমাণ ৮০ হেক্টর। শ্রীমঙ্গল উপজেলায় সবচেয়ে মাল্টা উৎপাদন হয়ে আসছে। এ উপজেলায় পনেরো হেক্টর জমিতে ৫৫টি মাল্টা বাগান গড়ে উঠেছে। এরপর কুলাউড়া, বড়লেখা, মৌলভীবাজার সদর, রাজনগর, জুড়ি ও কমলগঞ্জ উপজেলা। কুলাউড়া উপজেলায় ৫৫টি মাল্টা বাগান রয়েছে পাহাড়-টিলা বেষ্টিত এ জেলার মাটি মাল্টা চাষের জন্য অত্যন্ত উপযোগী। তাছাড়া বারী মাল্টা-১ জাত এ অঞ্চলের মাটিতে ভালো ফলন হয়েছে। ছোট আকৃতির এ ফসল অত্যন্ত রসালো ও সুস্বাদু হিসাবে বেশ পরিচিত হয়ে উঠছে। এ বছর ফলন ভালো হওয়াতে কম করে হলেও জেলায় ৪৮০ মেট্রিক টন মাল্টা উৎপাদন হওয়ার কথা বলছে কৃষি বিভাগ।
জেলার কৃষি উপ-পরিচালক কাজী লুৎফুল বারী জানিয়েছেন, এবছর প্রতি হেক্টরে কম করে হলেও ৬ মেট্রিক টন মাল্টা উৎপাদন হবে। এ বছর ৪৮০ মেট্রিক টন মাল্টা ১৫০ টাকা কেজি দরে বিক্রি করে সাড়ে সাত কোটি টাকা আয় হওয়ার কথা বলছে, কৃষি বিভাগ। কথা হয় মাল্টা চাষি যুবক রাজনগর উপজেলার উত্তর নন্দিউড়া গ্রামের মো. আল-আমিনের সাথে।
তিনি জানান,বাড়িতে বেকার বসে ছিলাম। কৃষি বিভাগের প্ররোচনায় বাড়ির পরিত্যক্ত ৬৫ শতক জমিতে ২০১৭ সালে মাল্টার চারা লাগাই। এ সময় কৃষি বিভাগ বিনামূল্যে চারা ও নগদ চার হাজার টাকা দিয়েছিলো। আল-আমিনের  ১৯২টি মাল্টা গাছ। প্রথম চারা লাগানো পর ২০১৮ ও ২০১৯ সালে ফলন আসলেও কৃষি বিভাগের পরামর্শ মতে গাছের পরিপক্বতার জন্য ফলন ঘরে তোলেননি। এবছর ফলন অন্য বছরের তুলনায় ভালো হয়েছে। প্রতিটি গাছে ৭/৮ কেজি মাল্টা ধরেছে।
তিনি জানালেন, কম হলেও তার বাগান থেকে দেড় হাজার কেজি মাল্টা পাওয়া যাবে। এ পর্যন্ত তিনি তার বাগান থেকেই ১৫০ টাকা কেজিতে ছয় হাজার টাকার মাল্টা বিক্রি করেছেন। গাছের বাকি মাল্টা এখনো পরিপক্ক হয়নি। পরিপক্ব হলেই বিক্রি করে দিবেন। এ ভাবে কথা হয় মৌলভীবাজার সদর উপজেলার বুরোতলা গ্রামের মো. হুমায়ূন কবিরের সাথে। তার নতুন মাল্টা বাগানে ৩১ মাল্টা গাছ রয়েছে। ফলন চার মণ হওয়ার কথা বললেন।
আরও কথা হয়, আব্দুল হাদির সাথে। এছাড়া কথা হয়, শ্রীমঙ্গল উপজেলার মুজাহিরাবাদ গ্রামের শফিক মিয়া, পাত্রীকুল গ্রামের তাহের মিয়া, মীর্জাপুর গ্রামের খালেক হোসেনের সাথে। মীর্জাপুর গ্রামের খালেক হোসেনের একটি বাগানে ১৮০টি মাল্টা গাছ। এবারে ফলন অনেক ভালো হওয়ার কথা জানালেন। পাত্রিকুলের তাহের মিয়ার আগের বাগানে ১৬০টি মাল্টাগাছ ছিল। নতুন করে আরও ৯০টি গাছ লাগিয়েছেন। এবারে প্রতি গাছে ৩০ থেকে ৪০টি মাল্টা এসেছে। প্রায় পাঁচ মন ফলন পাওয়ার আশা।
এদিকে শফিক গাজী জানালেন, গেলো বছর তার বাগানে নতুন অবস্থায় পনের থেকে দুই হাজার মাল্টা এসেছিলো। নিজে খাওয়া দাওয়ার পর আত্মীয়স্বজনকে দিয়েও দশ হাজার টাকা আয় করেন। এবারে তার প্রত্যেক গাছে ভালো ফলনে এসেছে। আরও দু‘এক মাস পরে বাজারে বিক্রি করবেন। তার ধারণা বিশ থেকে পঁচিশ হাজার টাকা আয় হবে। ওরা প্রত্যেকেই মাল্টা চাষ করে লাভবান হওয়ার কথা বললেন।

করোনা ভাইরাস লাইভ

আরও সংবাদ

করোনা ভাইরাস লাইভ ›

লাইভ অনুষ্ঠান বুলেটিন ছবি ভিডিও টিভি আর্কাইভ
বাংলার সময়
বাণিজ্য সময়
বিনোদনের সময়
খেলার সময়
আন্তর্জাতিক সময়
মহানগর সময়
অন্যান্য সময়
তথ্য প্রযুক্তির সময়
রাশিফল
লাইফস্টাইল
ভ্রমণ
প্রবাসে সময়
সাক্ষাৎকার
মুক্তকথা
বাণিজ্য মেলা
রসুই ঘর
বিশ্বকাপ গ্যালারি
বইমেলা
উত্তাল মার্চ
সিটি নির্বাচন
শেয়ার বাজার
জাতীয় বাজেট
বিপিএল
শিক্ষা সময়
ভোটের হাওয়া
স্বাস্থ্য
ধর্ম
চাকরি
পশ্চিমবঙ্গ
ফুটবল বিশ্বকাপ
ভাইরাল
সংবাদ প্রতিনিধি
সর্বশেষ সংবাদ
অনুসদ্ধান
মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন
GoTop