আন্তর্জাতিক সময় করোনার ‘গুজব’ মানায় প্রাণ গেছে বহু মানুষ

১২-০৮-২০২০, ১৮:৫৩

আন্তর্জাতিক সময় ডেস্ক

fb tw
করোনার ‘গুজব’ মানায় প্রাণ গেছে বহু মানুষ
মহামারি করোনা ভাইরাস নিয়ে স্তব্ধ পুরো পৃথিবী। এখন পর্যন্ত কোন ভ্যাকসিন কিংবা সর্বজন স্বীকৃত কোনো চিকিৎসা আবিষ্কার না হওয়ায় কীভাবে করোনা থেকে রক্ষা পাওয়া সম্ভব সে নিয়ে হাজার হাজার গুজব ছড়িয়েছে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমসহ বিভিন্ন ক্ষেত্রে। যেমন গরু ও উটের মূত্র, ব্লিচ, অ্যালকোহল বা মিথানল খেলে করোনা সেরে যাবে এমনটা কথাও বিশ্বাসও করতে শুরু করেছিল মানুষ। জানা যায়, সংক্রমণের প্রথম দিকে এসব গুজব সবচেয়ে বেশি ছড়িয়ে পড়েছিল।
জার্মান গণমাধ্যম ডয়চে ভেলে অনলাইন জানায়, করোনা নিয়ে ভুল তথ্য এবং ষড়যন্ত্রমূলক নানা গুজব ছড়িয়ে পড়ে ইন্টারনেটে। আর সেসব গুজব বিশ্বাস করে জীবন দিয়েছে হাজারো মানুষ। আমেরিকান জার্নাল অব ট্রপিকাল মেডিসিন অ্যান্ড হাইজিন-এ প্রকাশিত এক গবেষণা থেকে বিষয়টি উঠে আসে।
বিজ্ঞানীরা ৮৭টি দেশের ২৫টি ভাষার মোট দুই হাজার ৩০০ রিপোর্ট নিয়ে গবেষণাটি করেছেন। এতে জানা যায়, হাসপাতালে এমন হাজারো রোগী ভর্তি হয়েছিল যাদের বড় একটি অংশ সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমগুলোতে ব্যাপকভাবে ছড়িয়ে পড়া গুজবে বিশ্বাস করেছিলো।
২০১৯ এর ডিসেম্বর থেকে ২০২০ এপ্রিল পর্যন্ত ভারত, অস্ট্রেলিয়া, থাইল্যান্ড এবং জাপানসহ বিভিন্ন দেশের সংগ্রহ করা তথ্য বিশ্লেষণ করেছেন আন্তর্জাতিক একদল বিজ্ঞানী। গবেষণাটিতে উদাহরণস্বরূপ বলা হয়, ভারতে করোনা সংক্রমণের হাত থেকে রক্ষা পেতে গোমূত্র বা সার খাওয়ার পরামর্শ দেওয়া হয়েছিলো। সৌদি আরবে উটের প্রস্রাবকে ম্যাজিক ওষুধ হিসেবে বলা হয়েছিলো।
চীনে যখন করোনার প্রকোপ শুরু হয়, তখনই ভারতের ক্ষমতাসীন বিজেপি এবং তার শাখা সংগঠনগুলোর নেতারা বলেছিলেন, গোমূত্র পান করলে করোনা হবে না। ভারতে করোনাভাইরাস প্রবেশ করার পরে সেই আশ্চর্য কাজটিই প্রকাশ্যে করে দেখাল গেরুয়া শিবির। আয়োজন করা হয় গোমূত্র পানের পার্টি। যেখানে প্রায় ২০০ জন যোগ দিয়েছিলেন। গোমূত্র, গোবর, দুধ, ঘি দিয়ে তৈরি হয়েছিল পানীয়। আগতরা খেলেনও তা ঢকঢক করে। এতেই না কি প্রতিহত হবে করোনা। বহু গরিব মানুষ নিছক অন্ধবিশ্বাস থেকে হাজির হয়েছিলেন সেখানে। ভারতের বিশেষজ্ঞ ও চিকিৎসকেরা এ নিয়ে সতর্ক করলেও স্থানীয় প্রশাসন কোনো ধরনের ব্যবস্থা নেয়নি। বরং আরও কিছু গোমূত্র পানের পার্টি আয়োজিত হয়েছিল দেশটি জুড়ে।
এ ছাড়া শরীরকে জীবাণুমুক্ত করতে অত্যন্ত ঘনীভূত অ্যালকোহল ব্যবহার করায় বিশ্বব্যাপী ৮০০ মানুষকে জীবন দিতে হয়েছে। ইরানে মারা গেছে কয়েকশ মানুষ।  প্রায় ছয় হাজার মানুষকে হাসপাতালে যেতে হয়েছে করোনা আতঙ্কে মিথানল পান করে। অন্ধ হয়ে গেছে ৬০ জন।

করোনা ভাইরাস লাইভ

আরও সংবাদ

করোনা ভাইরাস লাইভ ›

লাইভ অনুষ্ঠান বুলেটিন ছবি ভিডিও টিভি আর্কাইভ
বাংলার সময়
বাণিজ্য সময়
বিনোদনের সময়
খেলার সময়
আন্তর্জাতিক সময়
মহানগর সময়
অন্যান্য সময়
তথ্য প্রযুক্তির সময়
রাশিফল
লাইফস্টাইল
ভ্রমণ
প্রবাসে সময়
সাক্ষাৎকার
মুক্তকথা
বাণিজ্য মেলা
রসুই ঘর
বিশ্বকাপ গ্যালারি
বইমেলা
উত্তাল মার্চ
সিটি নির্বাচন
শেয়ার বাজার
জাতীয় বাজেট
বিপিএল
শিক্ষা সময়
ভোটের হাওয়া
স্বাস্থ্য
ধর্ম
চাকরি
পশ্চিমবঙ্গ
ফুটবল বিশ্বকাপ
ভাইরাল
সংবাদ প্রতিনিধি
সর্বশেষ সংবাদ
অনুসদ্ধান
মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন
GoTop