ভ্রমণ প্রান্তিক মানুষের অংশগ্রহণ ছাড়া পর্যটনের বিকাশ অসম্ভব: মাহবুব আলী

১৬-০৭-২০২০, ২০:২১

ওয়েব ডেস্ক

fb tw
প্রান্তিক মানুষের অংশগ্রহণ ছাড়া পর্যটনের বিকাশ অসম্ভব: মাহবুব আলী
বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটন মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী মো. মাহবুব আলী এমপি বলেছেন, প্রান্তিক পর্যায়ের মানুষের সম্পৃক্ততা ছাড়া পর্যটনের সত্যিকারের বিকাশ সম্ভব নয়। বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটন মন্ত্রণালয় চেষ্টা করছে দেশের প্রতিটি প্রান্তের মানুষকে পর্যটনের ব্যাপারে সচেতন ও সম্পৃক্ত করতে।
বৃহস্পতিবার (১৬ জুলাই) বাংলাদেশ ট্যুরিজম বোর্ড কর্তৃক বগুড়া জেলার সাথে আয়োজিত অনলাইন কর্মশালায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে একথা বলেন তিনি।
তিনি বলেন, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের স্বপ্নের সোনার বাংলা গড়ে তুলতে হলে দেশের সকল সেক্টরের উন্নয়নের পাশাপাশি পর্যটন শিল্পের উন্নয়ন নিশ্চিত করতে হবে। বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের ক্ষুধামুক্ত, দারিদ্র্যমুক্ত, উন্নত বাংলাদেশ গড়তে পর্যটনের উন্নয়নের কোন বিকল্প নেই। বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের সোনার বাংলা গড়তে পর্যটন গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখবে।
প্রতিমন্ত্রী বলেন, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের নেতৃত্বে মহান মুক্তিযুদ্ধের মাধ্যমে অর্জিত মূল্যবোধ, আমাদের ইতিহাস, ঐতিহ্য ও সংস্কৃতি ১৯৭২ সালের সংবিধানে অন্তর্ভুক্তিযোগ্য হয়েছিল। এই বিষয়গুলো আমাদের পর্যটনকে বিকশিত করার মূল অনুপ্রেরণা হিসাবে কাজ করছে। বঙ্গবন্ধুর নেতৃত্বে বাংলাদেশ স্বাধীন হওয়ার পর সারা পৃথিবীতে বাংলাদেশ পরিচিত ছিল বীরের জাতি হিসেবে।
তিনি আরো বলেন, আমাদের দুর্ভাগ্য বঙ্গবন্ধুর মৃত্যুর পর পরবর্তী সময়ে বাংলাদেশ সারা পৃথিবীতে পরিচিত পেয়েছিল ক্ষুধা-দারিদ্র্য, বন্যা, অনাহার-অর্ধাহারে ভুক্তভোগী একটি দেশ হিসাবে। বঙ্গবন্ধু কন্যা জননেত্রী শেখ হাসিনার সুযোগ্য নেতৃত্ব আজ সারা পৃথিবীতে বাংলাদেশের ভাবমূর্তি উন্নত করেছে। বিশ্বে আজ বাংলাদেশ উন্নয়নের রোল মডেল। তিনি চেষ্টা করছেন জাতির পিতার স্বপ্নের সোনার বাংলা নির্মাণের। আমাদের মনে রাখতে হবে বঙ্গবন্ধু মানেই বাংলাদেশ, বাংলাদেশ মানেই বঙ্গবন্ধু।
মাহবুব আলী বলেন, কোভিড-১৯ এর কারণে সারা পৃথিবীর সাথে সাথে বাংলাদেশের পর্যটনেও বর্তমানে একটি অচলাবস্থা বিরাজ করছে। তবে কোভিড-১৯ পরবর্তী সময়ে সারা দেশের মানুষ পর্যটন আকর্ষণ সমূহে ও বিনোদন কেন্দ্রগুলোতে ভিড় জমাবেন। পর্যটকদের সেই চাহিদা পূরণ করার জন্য আমাদের প্রস্তুত থাকতে হবে। ঐ সময়ে আমাদের পর্যটনের অন্যতম প্রধান শক্তি হবে দেশের অভ্যন্তরীণ পর্যটকেরা।
 প্রতিমন্ত্রী বলেন, দেশের ও বিদেশের পর্যটকদের কাছে দেশকে এবং দেশের পর্যটন পণ্যসম্ভার কে সঠিক ভাবে তুলে ধরার জন্য স্থানীয় পর্যায়ের জনপ্রতিনিধি, সরকারি কর্মচারী, সাংবাদিক ও সকল পর্যটন অংশীদারকে আন্তরিকভাবে কাজ করতে হবে। আমরা যদি পর্যটকদের উৎসাহিত ও অনুপ্রাণিত করতে পারি তবে পর্যটন খাতে আবারও প্রাণচাঞ্চল্য ফেরত আসবে। সকল পর্যটকের আস্থা তৈরি করতে প্রয়োজনীয় সকল কিছু সম্পাদন করা হবে।
তিনি আরো বলেন, কোভিড-১৯ পরবর্তী সময়ে মানুষের কর্মসংস্থান সৃষ্টিতে পর্যটন বিরাট ভূমিকা রাখবে। জনগণকে পর্যটনের সম্পৃক্ত করলে তা পর্যটনের উন্নয়নের পাশাপাশি তাদের জীবন-জীবিকার অন্যতম উপায় হবে। 
বাংলাদেশ ট্যুরিজম বোর্ডের পরিচালক আবু তাহের মোহাম্মদ জাবের এর সঞ্চালনায় ও বগুড়ার জেলা প্রশাসক মো. জিয়াউল হকের সভাপতিত্বে কর্মশালায় আরও উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ ট্যুরিজম বোর্ডের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা জাবেদ আহমেদ প্রমুখ।

করোনা ভাইরাস লাইভ

আরও সংবাদ

করোনা ভাইরাস লাইভ ›

লাইভ অনুষ্ঠান বুলেটিন ছবি ভিডিও টিভি আর্কাইভ
বাংলার সময়
বাণিজ্য সময়
বিনোদনের সময়
খেলার সময়
আন্তর্জাতিক সময়
মহানগর সময়
অন্যান্য সময়
তথ্য প্রযুক্তির সময়
রাশিফল
লাইফস্টাইল
ভ্রমণ
প্রবাসে সময়
সাক্ষাৎকার
মুক্তকথা
বাণিজ্য মেলা
রসুই ঘর
বিশ্বকাপ গ্যালারি
বইমেলা
উত্তাল মার্চ
সিটি নির্বাচন
শেয়ার বাজার
জাতীয় বাজেট
বিপিএল
শিক্ষা সময়
ভোটের হাওয়া
স্বাস্থ্য
ধর্ম
চাকরি
পশ্চিমবঙ্গ
ফুটবল বিশ্বকাপ
ভাইরাল
সংবাদ প্রতিনিধি
সর্বশেষ সংবাদ
অনুসদ্ধান
মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন
GoTop