আন্তর্জাতিক সময় মার্কিন সরকারের বিরুদ্ধে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের মামলা

১১-০৭-২০২০, ১৮:৫৮

আন্তর্জাতিক সময় ডেস্ক

fb tw
মার্কিন সরকারের বিরুদ্ধে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের মামলা
অনলাইনে শিক্ষা কার্যক্রম শুরু হলে ভিনদেশি শিক্ষার্থীদের নিজ দেশে ফিরতে হবে, মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের এমন সিদ্ধান্তে ঝুঁকির মুখে পড়েছে যুক্তরাষ্ট্র প্রবাসী লাখ লাখ শিক্ষার্থীর ভবিষ্যৎ। সেইসাথে ঝুঁকির মুখে পড়েছে ভিনদেশি শিক্ষার্থীদের মার্কিন অর্থনীতিতে অংশগ্রহণের বিষয়টি। এ সিদ্ধান্তকে আত্মঘাতী উল্লেখ করে মার্কিন সরকারের বিরুদ্ধে মামলা করেছে কয়েকটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান।
আন্তর্জাতিক শিক্ষা সংস্থার তথ্য অনুযায়ী, ২০১৮-১৯ শিক্ষাবর্ষে যুক্তরাষ্ট্রে বিদেশি শিক্ষার্থী এসেছেন ১১ লাখ, যা ওই বছর দেশটির মোট শিক্ষার্থীর সাড়ে ৫ শতাংশ। ২০১৯-২০ শিক্ষাবর্ষে মার্কিন অর্থনীতিতে বিদেশি শিক্ষার্থীদের কাছ থেকে এসেছে ৪ হাজার ৪শ' কোটি ডলার। দেশের শিক্ষার্থীদের তুলনায় বিদেশি এসব শিক্ষার্থীদের খরচও অনেক বেশি। পাশাপাশি আবাসন খাতসহ স্থানীয় অনেক প্রতিষ্ঠানে খন্ডকালীন, পূর্ণকালীন চাকরি করে দেশটির অর্থনীতিতে অবদান রাখছেন বিদেশি শিক্ষার্থীরা। অনলাইন ক্লাস হলে ভিনদেশি শিক্ষার্থীদের ভিসা বাতিলের সিদ্ধান্তে হুমকির মুখে পড়েছে সেই অর্থের সংস্থানের বিষয়টি।
একজন বলেন, 'এখানে ৭ বছর ধরে আছি। আমরা নাগরিকদের চেয়ে বেশি অর্থ এই দেশে খরচ করি। আমি যদি চলেও যাই, সব খুলে দিলেও আর আসতে পারবো না। আমার গ্রিন কার্ড নেই। আর মহামারীর মধ্যে সশরীরে ক্লাস করা কোন বুদ্ধিমান সিদ্ধান্ত নয়।'
মার্কিন একটি আন্তর্জাতিক শিক্ষা অ্যাডভোকেসি গ্রুপের তথ্য অনুযায়ী, ২০১৮-২৯ শিক্ষাবর্ষে ভিনদেশি ৪ লাখ ৬০ হাজার শিক্ষার্থী দেশটির শিক্ষা, খুচরা ব্যবসা, যোগাযোগ ব্যবস্থা, স্বাস্থ্যখাতে কর্মরত ছিলেন। প্রায় ১১ লাখ শিক্ষার্থীর কাছ থেকে এসেছে মোটা অঙ্কের অর্থ। রিপোর্ট বলছে, ৫৭ শতাংশ শিক্ষার্থীর খরচ এসেছে ভিনদেশে অবস্থিত পরিবার থেকে কিংবা নিজের চাকরি থেকে, বাকি ৫ শতাংশ শিক্ষার্থীর খরচ এসেছে সরকারি, বিদেশি বিশ্ববিদ্যালয় বা ভিনদেশি স্পন্সর থেকে। মার্কিন সরকারের বিরুদ্ধে মামলা করেছে কয়েকটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান কর্তৃপক্ষ।
মামলাকারী শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের একজন বলেন, 'এই সিদ্ধান্ত অনৈতিক। আমরা পুরোদমে সব শুরু করতে চাই। কিন্তু তাতে কি করোনা আরো ছড়াবে না? এই অবস্থায় সব শিক্ষার্থী নিজ দেশে ফিরতেও পারবে না। তাদের ভুগতে হবে এমন এক ইস্যুতে, যেখানে তাদের কোন দোষ নেই। তাদের স্বার্থ সুরক্ষায় যা করা প্রয়োজন, করবো।'
যুক্তরাষ্ট্রে মোট ভিনদেশি শিক্ষার্থীর মধ্যে অর্ধেকই এশিয়ার। ২০১৮-১৯ অর্থবছরে দেশটিতে চীন থেকে শিক্ষার্থী এসেছে ৩ লাখ ৭০ হাজার, ভারত থেকে ২ লাখ ২ হাজার আর দক্ষিণ কোরিয়া থেকে ৫২ হাজার শিক্ষার্থী যুক্তরাষ্ট্রে এসেছে পড়তে। ২০১৮ সালে চীন ভারত আর দক্ষিণ কোরিয়ার শিক্ষার্থীদের কাছ থেকে এসেছে আড়াই হাজার কোটি ডলার। দেশের অর্থনীতির এ বেহাল দশায় রাজস্ব আয়ের এ উৎস হুমকির মুখে পড়ায় শঙ্কায় অর্থনীতিবিদরা।

করোনা ভাইরাস লাইভ

আরও সংবাদ

করোনা ভাইরাস লাইভ ›

লাইভ অনুষ্ঠান বুলেটিন ছবি ভিডিও টিভি আর্কাইভ
বাংলার সময়
বাণিজ্য সময়
বিনোদনের সময়
খেলার সময়
আন্তর্জাতিক সময়
মহানগর সময়
অন্যান্য সময়
তথ্য প্রযুক্তির সময়
রাশিফল
লাইফস্টাইল
ভ্রমণ
প্রবাসে সময়
সাক্ষাৎকার
মুক্তকথা
বাণিজ্য মেলা
রসুই ঘর
বিশ্বকাপ গ্যালারি
বইমেলা
উত্তাল মার্চ
সিটি নির্বাচন
শেয়ার বাজার
জাতীয় বাজেট
বিপিএল
শিক্ষা সময়
ভোটের হাওয়া
স্বাস্থ্য
ধর্ম
চাকরি
পশ্চিমবঙ্গ
ফুটবল বিশ্বকাপ
ভাইরাল
সংবাদ প্রতিনিধি
সর্বশেষ সংবাদ
অনুসদ্ধান
মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন
GoTop