বাণিজ্য সময় বেনাপোলে সাইডডোর রেল কার্গোতে পণ্য আমদানির সুযোগ

০৫-০৬-২০২০, ২১:১৩

আজিজুল হক

fb tw
বেনাপোলে সাইডডোর রেল কার্গোতে পণ্য আমদানির সুযোগ
করোনা ভাইরাসের প্রাদুর্ভাবের মধ্যে বেনাপোল বন্দর দিয়ে আমদানি-রফতানি বাণিজ্য সচল রাখতে বিকল্প হিসেবে রেল পথে চালু হচ্ছে সাইডডোর রেল কার্গো। খুব দ্রুত এ রুটে এফসিএল কন্টেইনারও চালু হবে জানা গেছে।   
শুক্রবার (৫ জুন) বেনাপোল কাস্টমস হাউজের কমিশনার বেলাল হোসেন চৌধুরী এমন একটি সুখবর নিশ্চিত করেছেন। এছাড়া তিনি ব্যবসায়ী প্রতিনিধি, বন্দর ও রেল কর্তৃপক্ষকে সঙ্গে নিয়ে ইতোমধ্যে রেলপথের বিভিন্ন এলাকা পরিদর্শন করেছেন।
বেনাপোল আমদানি-রফতানি সমিতির সহ-সভাপতি আমিনুল হক বলেন, করোনা সংক্রমণ রোধের কথা বলে ভারতের পেট্রাপোল বন্দর কর্তৃপক্ষের লকডাউনে প্রায় তিন মাস যাবত স্থলপথে আমদানি-রফতানি বন্ধ রয়েছে। এতে একদিকে যেমন চরম লোকসানের কবলে পড়েছেন ব্যবসায়ীরা। তেমনি আমদানি বন্ধ থাকায় প্রয়োজনীয় কাঁচামাল সরবরাহ করতে না পারায় দেশের শিল্প প্রতিষ্ঠানগুলো সচল করা সম্ভব হচ্ছে না। এ মুহূর্তে কাস্টমস কর্তৃপক্ষের প্রচেষ্টায় বেনাপোল রেলপথে সাইডডোর রেলকার্গো এবং এফসিএল কন্টেইনার চালু বাণিজ্যিক খাতে ব্যাপক ভূমিকা রাখবে।
বেনাপোল সিঅ্যান্ডএফ অ্যাসোসিয়েশনের সহ-সভাপতি খায়রুজ্জামান মধু বলেন, স্থলপথে আমদানি বন্ধ থাকায় কেবল ব্যবসায়ীরা ক্ষতির শিকার হচ্ছেন না, সরকারও শত শত কোটি টাকার রাজস্ব থেকে বঞ্চিত হচ্ছে। বেনাপোল রেলপথে সাইডডোর কার্গো চালুর ফলে ব্যবসায়ীরা সব ধরনের পণ্যের আমদানি বাণিজ্যে সুবিধা পাবেন। এতে ব্যবসায়ীরা যেমন উপকৃত হবেন, তেমনি সরকারেরও রাজস্ব আয় স্বাভাবিক থাকবে।
ভারত-বাংলাদেশ ল্যান্ডপোর্ট এমপোর্ট, এক্সপোর্ট কমিটির চেয়ারম্যান মতিয়ার রহমান জানান, দেশের স্থলপথে যে পণ্য আমদানি বাণিজ্য হয় তার ৭০ শতাংশ হয়ে থাকে বেনাপোল বন্দর দিয়ে। করোনা ছাড়াও স্থলপথে হরতাল, অবরোধ, শ্রমিক অসন্তোষসহ বিভিন্ন প্রতিবন্ধকতায় সময়মতো পণ্য সরবরাহ বাধাগ্রস্ত হয়ে প্রায়ই বাণিজ্য ব্যাহত হয়। সাইডডোর রেলকার্গোও এফসিএল কন্টেইনার চালু ব্যবসায়ীদের এমন সমস্যা থেকে পরিত্রাণ দেবে।
বেনাপোল বন্দরের উপ-পরিচালক(ট্রাফিক) মামুন কবীর তরফদার জানান, তার জানা মতে খুব দ্রুত বেনাপোল বন্দরে রেল পথে সব ধরনের পণ্যের আমদানি বাণিজ্য শুরু হবে।  রেল পথে পণ্য প্রবেশের পর তা আপাতত বন্দরের হেফাজতে থাকবে। পরে কাস্টমস ও বন্দরের কার্যক্রম শেষে শুল্ক পরিশোধের মাধ্যমে ব্যবসায়ীরা পণ্য খালাস নিতে পারবেন।
আগেও বেনাপোল রেল পথে ভারত থেকে সরাসরি শিল্পকারখানার কিছু কাঁচামাল, পাথর ও জরুরি কিছু খাদ্য দ্রব আমদানি হয়ে আসছে। যা স্থল পথে বাণিজ্যের মাত্র ৫ শতাংশ। আমদানি পণ্য বেনাপোল স্টেশনে পৌঁছানোর পর সরাসরি তা নওয়াপাড়া নিয়ে ব্যবসায়ীদের খালাস করতে হতো। ফলে দীর্ঘ সময় আর খরচ বৃদ্ধির কারণে এ পথে ব্যবসায়ীদের আমদানিতে আগ্রহ ছিল কম। এখন সাইডডোর রেলকার্গো সিস্টেমের ফলে সব ধরনের পণ্য বন্দরে আনলোড ও এখান থেকে ব্যবসায়ীরা খালাসের সুযোগ পাবেন। এতে যেমন বাণিজ্যে গতি ফিরবে তেমনি রাজস্ব আয়ও কয়েকগুণ সরকারের বাড়বে বলে ধারণা সংশ্লিষ্টদের।

করোনা ভাইরাস লাইভ

বাংলার সময়
বাণিজ্য সময়
বিনোদনের সময়
খেলার সময়
আন্তর্জাতিক সময়
মহানগর সময়
অন্যান্য সময়
তথ্য প্রযুক্তির সময়
রাশিফল
লাইফস্টাইল
ভ্রমণ
প্রবাসে সময়
সাক্ষাৎকার
মুক্তকথা
বাণিজ্য মেলা
রসুই ঘর
বিশ্বকাপ গ্যালারি
বইমেলা
উত্তাল মার্চ
সিটি নির্বাচন
শেয়ার বাজার
জাতীয় বাজেট
বিপিএল
শিক্ষা সময়
ভোটের হাওয়া
স্বাস্থ্য
ধর্ম
চাকরি
পশ্চিমবঙ্গ
ফুটবল বিশ্বকাপ
ভাইরাল
সংবাদ প্রতিনিধি
বিশ্বকাপ সংবাদ
Latest News
এক্সক্লুসিভ লাইভ
বিপিএল ২০২০

করোনা ভাইরাস লাইভ

আপনিও লিখুন
ছবি ভিডিও টিভি আর্কাইভ
মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন
GoTop