খেলার সময় নিয়ম মেনে মাঠে ফিরতে চায় ইংল্যান্ড

৩১-০৫-২০২০, ০১:৩৩

খেলার সময় ডেস্ক

fb tw
নিয়ম মেনে মাঠে ফিরতে চায় ইংল্যান্ড
স্বাস্থ্য সুরক্ষার সব নিয়ম মেনে মাঠে ফিরতে চায় ইংল্যান্ড। ভেন্যুগুলোতে আইসোলেশন ইউনিটও তৈরি করছে দেশটির ক্রিকেট বোর্ড। ম্যাচ চলাকালীন করোনা পরীক্ষায় পজিটিভ হলে, বদলি ক্রিকেটার খেলানোর প্রক্রিয়া কি হবে, সে বিষয়ে জুলাইয়ের আগেই সিদ্ধান্ত নেবে আইসিসি। এমনটাই আশা ইসিবির স্পেশাল অপারেশন পরিচালকের।
পরিকল্পনা ঠিকঠাক এগোলে জুলাইয়ে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে ফিরবে ইংল্যান্ড। ওয়েস্ট ইন্ডিজ, আয়ারল্যান্ড ও পাকিস্তানের বিপক্ষে টানা সিরিজ খেলতে প্রস্তুতি নিতে শুরু করেছে থ্রি লায়নরা। ৫৫ জনের পুল গঠন করে শুরু করছে কন্ডিশনিং ক্যাম্পও।
তবে, ব্রিটিশ সরকারের নির্দেশনা মেনে ছোট ছোট গ্রুপে অনুশীলনের ব্যবস্থা রাখছে ইংল্যান্ড বোর্ড। কেউ করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হলে ঐ নির্দিষ্ট গ্রুপকে আইসোলেশনে রাখা হবে। সবকিছু পর্যবেক্ষণে রাখতে বেশ ঘাম ঝরাতে হবে ইসিবিকে। কিন্তু, তারপরও ঝুঁকি কমাতে সর্বোচ্চ সতর্কতা অবলম্বন করতে চায় তারা। স্বাস্থ্য নিরাপত্তার এই 'বায়ো সিকিউর পরিবেশ' প্রক্রিয়ায় স্টেডিয়ামে আড়াইশ' জনের বেশি প্রবেশ করতে দেয়া হবেনা। থার্মাল স্ক্যানিং, স্যানিটাইজার ও পিপিই ব্যবহার নিশ্চিত করতে জাতীয় স্বাস্থ্য সংস্থার পাশাপাশি বাড়তি চাপ নিতে হবে ইংলিশ বোর্ডকেও।
 স্টিভ এলওয়ার্দি বলেন, ইসিবি বোর্ডের প্রধান চিকিৎসা কর্মকর্তা নিক পিয়ার্সের ইউনিট এটা নিয়ে কাজ করছে। ভেন্যুতে আইসোলেশন কক্ষ নির্মিত হচ্ছে, যাতে আক্রান্ত কাউকে তাৎক্ষণিকভাবে সেখানে নেয়া যায়। বদলী খেলোয়াড়ের বিষয়টি বিবেচনায় নিয়ে বিশেষ নিয়ম করা হবে কি না, তা এখনো ভাবছে আইসিসি। টেস্ট ক্রিকেট নিয়েই ভাবনা বেশি। পরীক্ষায় সকালে নেগেটিভ আসলো, পরে সারাদিন খেলার পর কারও দেহে যদি ভাইরাস শনাক্ত হয়, তখন করণীয় কি হবে? আশা করি জুলাইয়ের আগেই সবকিছু নিয়ে সুনির্দিষ্ট পরিকল্পনা জানাবে আইসিসির ক্রিকেট কমিটি।
আর্থিক লোকসান পুষিয়ে নিতে যেকোনো মূল্যে খেলা মাঠে ফেরাতে হবে। কিন্তু, বর্তমান পরিস্থিতিতে ম্যাচ পরিচালনা যে যে বিরাট এক চ্যালেঞ্জ। কবে আবার চাপমুক্ত হয়ে সব আয়োজন, অংশগ্রহণ কিংবা উপভোগ সম্ভব হবে, জানা নেই কারো। আইসিসিও যে আছে দোটানায়, তা বেশ পরিস্কার। ক্রিকেটের ভবিষ্যত নিয়ে কি ভাবছেন নীতি নির্ধারকরা, প্রশ্ন সবার। উত্তরটাও অনুমেয়।
সৌরভ গাঙ্গুলি বলেন, আমাদের কাছে প্রতিষেধক নেই। তবে, আমি বিশ্বাস করি আরো ৩ বা ৪ মাসের মধ্যে ওষুধ আবিষ্কার হলে সবকিছু স্বাভাবিক হয়ে যাবে। কিছু শিডিউলে পরিবর্তন আসছে, নিয়মেও হয়তো আসবে। কিন্তু, ক্রিকেট আবারো জায়গা করে নেবে। ক্রিকেটকে স্বরূপে ফেরাতে আইসিসি ও বিসিসিআই যৌথভাবে কাজ করছে।
গাঙ্গুলির পরিকল্পনা এখনো অজানা। ভবিষ্যত নিয়ে রাজ্য অ্যাসোসিয়েশনগুলো এখনো কোনো গাইডলাইন দেয়নি বিসিসিআই।

করোনা ভাইরাস লাইভ

বাংলার সময়
বাণিজ্য সময়
বিনোদনের সময়
খেলার সময়
আন্তর্জাতিক সময়
মহানগর সময়
অন্যান্য সময়
তথ্য প্রযুক্তির সময়
রাশিফল
লাইফস্টাইল
ভ্রমণ
প্রবাসে সময়
সাক্ষাৎকার
মুক্তকথা
বাণিজ্য মেলা
রসুই ঘর
বিশ্বকাপ গ্যালারি
বইমেলা
উত্তাল মার্চ
সিটি নির্বাচন
শেয়ার বাজার
জাতীয় বাজেট
বিপিএল
শিক্ষা সময়
ভোটের হাওয়া
স্বাস্থ্য
ধর্ম
চাকরি
পশ্চিমবঙ্গ
ফুটবল বিশ্বকাপ
ভাইরাল
সংবাদ প্রতিনিধি
সর্বশেষ সংবাদ

করোনা ভাইরাস লাইভ

আপনিও লিখুন
ছবি ভিডিও টিভি আর্কাইভ
মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন
GoTop