বাংলার সময় মরদেহ দাফনে গ্রামবাসীর বাধা, এগিয়ে এলেন ইউপি চেয়ারম্যান

১৯-০৫-২০২০, ১৩:৩৫

ফারুক আহম্মদ

fb tw
<span class= মরদেহ দাফনে গ্রামবাসীর বাধা, এগিয়ে এলেন ইউপি চেয়ারম্যান" data-src="https://www.somoynews.tv/img/upload/medium/chandpur-214523.jpg">
রাজধানী ঢাকায় মারা যান বৃদ্ধ শামছুল আলম। স্বজনরা তাকে দাফনের জন্য মরদেহ নিয়ে ফেরেন গ্রামে। কিন্তু তাতে বাধা হয়ে দাঁড়ান এলাকাবাসী। গ্রাম জুড়ে মাইকিং করে লোকজনকে সংঘটিত করা হয়। যেন মরদেহ দাফন করতে না পারে। কারণ, তাদের ধারণা করোনায় মারা গেছেন বৃদ্ধ। ফলে এখানে দাফন করা হলে মরদেহ থেকে সংক্রমণ ছড়িয়ে পড়বে। তবে গ্রামবাসীর এমন ভুল ধারণা পাল্টে দিলেন ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান। এগিয়ে এসে খাটিয়া কাঁধে তুলে নিলেন। দাফনের ব্যবস্থাও করলেন। অথচ মাত্র তিন সপ্তাহ আগে একই জেলায় এমন ঘটনার বিপরীত চিত্রও ছিল।
এদিকে মাত্র দুইদিন আগে চাঁদপুরের শাহরাস্তি উপজেলার টামটা উত্তর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ওমর ফারুক দর্জির এমন মানবিক আচরণের বিষয়টি সামাজিক মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়ে।
খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, শাহরাস্তি উপজেলার টামটা উত্তর ইউনিয়নের ঢুশুয়া গ্রামের মুন্সী বাড়ির শামছুল আলম রাজধানীর ঢাকায় পোশাক কারখানায় কর্মরত ছিলেন। সেখানেই হৃদযন্ত্রের ক্রিয়াবন্ধ হয়ে গত রোববার সকালে মারা যান। পরে দাফনের জন্য তার মরদেহ গ্রামের বাড়িতে নিয়ে যান স্বজনরা। কিন্তু করোনায় মারা গেছে এমন অপপ্রচার চালিয়ে এলাকায় মাইকিং হয়। শুধু তাই নয়, গ্রামের প্রবেশ পথও বন্ধ করে দেয়া হয়। যেনো মরদেহ নিয়ে সেখানে ঢুকতে না পারে।
এমন সংবাদ পৌঁছে যায় চেয়ারম্যান ওমর ফারুক দর্জির কাছে। তিনি ছুটে যান ঘটনাস্থলে। গ্রামের লোকদের বুঝিয়ে মরদেহ দাফনের আয়োজন করেন। দাফনের আনুষ্ঠানিকতায় কয়েকজন স্বজন না থাকায় নিজেই মৃত ব্যক্তির খাটিয়া কাঁধে নেন। এ সময় চেয়ারম্যানকে সহযোগিতা করেন রাঢ়া দারুল উলুম মাদ্রাসার মুহতামিম মাওলানা ওবায়েদুর রহমান ও শাহরাস্তি  থানার উপ-পরিদর্শক (এস আই) ইদ্রিস মিয়াসহ পুলিশ সদস্যরা।
এদিকে আশপাশের কোথাও এমন ঘটনা না ছড়িয়ে পড়লেও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে বিস্তার ঘটে। চেয়ারম্যানের সঙ্গে থাকা কেউ একজন ফেসবুক থেকে তা ছড়িয়ে দেন।  
এ ব্যাপারে চেয়ারম্যান ওমর ফারুক দর্জি বলেন, ঢাকায় মারা যাওয়া শামছুল আলমের মরদেহ দাফনে এলাকাবাসীর আপত্তি ছিল। আমি এলাকাবাসীকে বুঝিয়ে সেই মরদেহ দাফনের ব্যবস্থা করি।
তিনি আরও বলেন, সবাইকে মরতে হবে। তাই বাড়তি কিছু নয়-কেবলমাত্র বিবেকের তাড়নায় এ কাজটি করেছি।
অন্যদিকে, ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান ওমর ফারুক দর্জি- করোনা পরিস্থিতির মধ্যে এমন মানবিক ভূমিকার ভূয়সী প্রশংসা করেছেন, চাঁদপুরে স্থানীয় সরকার বিভাগের উপপরিচালক মোহাম্মদ আব্দুল্লাহ আল মাহমুদ জামান।
তিনি বলেন, এটি গোটা চাঁদপুর জেলার অন্য জনপ্রতিনিধিদের জন্য অনুকরণীয় দৃষ্টান্ত হতে পারে।
গত তিন সপ্তাহ আগে জেলার হাজীগঞ্জ উপজেলার রাজাগাঁও ইউনিয়নের এক নারী চাঁদপুর জেনারেল হাসপাতালে মারা যান। মৃত্যুর পর তার মরদেহ সেখানে নিয়ে যাওয়ার প্রস্তুতি নেয়া হলে তাতে বাদ সাধেন ওই এলাকার ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান মো. হাদি মিয়া ও তার এক মেম্বার। পরে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার আফজাল হোসেন উজ্জলের নেতৃত্বে একদল পুলিশ সেই মরদেহ দাফন সম্পন্ন করেন।

করোনা ভাইরাস লাইভ

আরও সংবাদ

stay home stay safe
বাংলার সময়
বাণিজ্য সময়
বিনোদনের সময়
খেলার সময়
আন্তর্জাতিক সময়
মহানগর সময়
অন্যান্য সময়
তথ্য প্রযুক্তির সময়
রাশিফল
লাইফস্টাইল
ভ্রমণ
প্রবাসে সময়
সাক্ষাৎকার
মুক্তকথা
বাণিজ্য মেলা
রসুই ঘর
বিশ্বকাপ গ্যালারি
বইমেলা
উত্তাল মার্চ
সিটি নির্বাচন
শেয়ার বাজার
জাতীয় বাজেট
বিপিএল
শিক্ষা সময়
ভোটের হাওয়া
স্বাস্থ্য
ধর্ম
চাকরি
পশ্চিমবঙ্গ
ফুটবল বিশ্বকাপ
ভাইরাল
সংবাদ প্রতিনিধি
বিশ্বকাপ সংবাদ
Latest News
এক্সক্লুসিভ লাইভ
বিপিএল ২০২০

করোনা ভাইরাস লাইভ

আপনিও লিখুন
ছবি ভিডিও টিভি আর্কাইভ
মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন
GoTop