মহানগর সময় ১৬ শহীদের স্মৃতিচিহ্ন রক্ষায় নেই কোনো পদক্ষেপ

২৬-০৩-২০২০, ১৩:৪৩

মিজানুর রহমান খবির

fb tw
১৯৭১ এর ২৫ মার্চ রাতে পলাশী ফায়ার ব্যারাকের কর্মী ও ছাত্র-জনতা পাকবাহিনীর বিরুদ্ধে প্রতিরোধ গড়েন। হানাদারদারদের গুলিতে এদিন কমপক্ষে ১৬ জন শহীদ হন। আশ্চর্যজনক হলেও সত্য যে, স্বাধীনতার ৪৯ বছরেও বীরত্বের এ ইতিহাস সংরক্ষণে কোন কার্যকর পদক্ষেপ নেয়া হয়নি। একমাত্র স্মৃতিচিহ্ন, শহীদ কামাল হোসেনের কবরটিও অবহেলায় পড়ে আছে। তবে, রাস্তার নামকরণ ও স্মৃতিফলক সংরক্ষণে শিগগিরই পদক্ষেপ নেয়ার কথা জানিয়েছে ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশন।
১৯৭১ এর ২৫ মার্চ রাতে পাকিস্তানীদের বিরুদ্ধে যে কটি জায়গায় প্রতিরোধ গড়ে তোলা হয়েছিল তারমধ্যে অন্যতম পলাশী ফায়ার স্টেশন। ফায়ার ব্যারাকের ভেতরে অর্জুন গাছ কেটে পলাশী থেকে লালবাগমুখী সড়কে ব্যারিকেড তৈরি করেন ফায়ার ব্যারাকের কর্মী ও ছাত্র-জনতা।
সে ঘটনার প্রত্যক্ষদর্শী শহীদ পরিবারের সদস্যরা আজও ভারাক্রান্ত হন সেই স্মৃতি মনে করে।
শহীদ কামালের সহোদর কুতুব উদ্দিন আহমেদ বলেন, 'আমি পাশ দিয়ে একটু সরে যাওয়ার পর শুনতে পেলাম মুহুর্মুহু গুলি। পরে দেখলাম মানুষ পড়ে আছে রক্ত আর রক্ত।'
আমগাছের নিচেই সে ভয়াল কালরাতে নৃশংস হত্যাকাণ্ড চালানো হয়েছিল। সে ঘটনার প্রত্যক্ষদর্শী ও শহীদ পরিবারের সদস্যরা আজও ভারাক্রান্ত হন সে স্মৃতি মনে করে।
সে রাতে শহীদদের একজন ছাত্রনেতা কামাল হোসেন। বুয়েট চত্বরেই তাঁর কবর। আশপাশে সুউচ্চ ভবন আর বিভিন্ন স্থাপনায় আড়াল হয়ে যাচ্ছে সমাধিটি। মর্যাদাপূর্ণ সংরক্ষণের জন্য পরিবারের সদস্যরা ৪ যুগ ধরে অনুরোধ জানালেও সাড়া মেলেনি কোন কর্তৃপক্ষের কাছ থেকে।
শহীদ কামালের সহোদর সালাউদ্দিন আহমেদ বলেন, 'যখন কবরের কাছে যাই খুব খারাপ লাগে। কিন্তু কিছু করার নেই।'
সহযোদ্ধারা জানান, পলাশী ফায়ার ব্যারাকে শহীদদের অনেকেই এখনও মুক্তিযোদ্ধা হিসেবে স্বীকৃতি পাননি।
ফায়ার সার্ভিসের সাবেক কর্মকর্তা মিয়াজান কবীর বলেন, 'হয়তো কিছুদিন পরে আমাদের পরবর্তী প্রজন্ম ভুলে যাবে মুক্তিযুদ্ধের আত্মহুতি।'
ডিএসসিসি ২৬ নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলর হাসিবুর রহমান মানিক বলেন শহীদদের নামে রাস্তার নামকরণ ও ভেতরে স্মৃতিফলক নির্মাণের জন্য নগর ভবনে আবেদন করা হয়েছে।
ফায়ার ব্যারাকের ভেতরের অর্জুন গাছ কেটে পলাশী থেকে লালবাগমুখী এই সড়কেই ব্যারিকেড তৈরি করে ফায়ার সার্ভিস কর্মী ও ছাত্র-জনতা। এ সময় ফায়ার সার্ভিসের অন্তত ৬ জন কর্মী শহীদ হন।

করোনা ভাইরাস লাইভ

বাংলার সময়
বাণিজ্য সময়
বিনোদনের সময়
খেলার সময়
আন্তর্জাতিক সময়
মহানগর সময়
অন্যান্য সময়
তথ্য প্রযুক্তির সময়
রাশিফল
লাইফস্টাইল
ভ্রমণ
প্রবাসে সময়
সাক্ষাৎকার
মুক্তকথা
বাণিজ্য মেলা
রসুই ঘর
বিশ্বকাপ গ্যালারি
বইমেলা
উত্তাল মার্চ
সিটি নির্বাচন
শেয়ার বাজার
জাতীয় বাজেট
বিপিএল
শিক্ষা সময়
ভোটের হাওয়া
স্বাস্থ্য
ধর্ম
চাকরি
পশ্চিমবঙ্গ
ফুটবল বিশ্বকাপ
ভাইরাল
সংবাদ প্রতিনিধি
বিশ্বকাপ সংবাদ
Latest News
এক্সক্লুসিভ লাইভ
বিপিএল ২০২০

করোনা ভাইরাস লাইভ

আপনিও লিখুন
ছবি ভিডিও টিভি আর্কাইভ
মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন
GoTop