বাংলার সময় দেশের বিভিন্ন স্থানে কাজ শুরু করেছে সেনাবাহিনী

২৫-০৩-২০২০, ১৬:৩৮

বাংলার সময় ডেস্ক

fb tw
দেশের বিভিন্ন স্থানে কাজ শুরু করেছে সেনাবাহিনী
করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ ঠেকাতে দেশের বিভিন্ন স্থানের কাজ শুরু করেছে সেনাবাহিনী। 
ময়মনসিংহে বুধবার (২৫ মার্চ) সকাল থেকে ময়মনসিংহ নগরীর বিভিন্ন এলাকায় টহল দেয় সেনা সদস্যরা। এসময় হ্যান্ডমাইকে করোনা ভাইরাস থেকে বাঁচতে সামাজিক দুরত্ব বজায় রাখতে এবং অপ্রয়োজনে বাড়ির বাইরে বের না হতে নাগরিকদের প্রতি আহবান জানানো হয়। গাঙ্গিনারপাড় এলাকায় জটলা করে থাকা লোকজনকে সরিয়ে দেয় সেনাসদস্যরা। ময়মনসিংহ মহানগর ছাড়াও জেলার উপজেলাগুলোতেও সেনাবাহিনী টহল দিচ্ছে বলে জানা গেছে। 
রাঙামাটিতে বুধবার সকাল থেকে শহরের সব ধরনের ব্যবসা প্রতিষ্ঠান বন্ধ করে দেয়া হয়েছে। বুধবার বনরূপা, কলেজ গেইট, তবলছড়িসহ শহরের বিভিন্ন বাজার ঘুরে দেখা গেছে মুদি দোকান এবং ওষুধের দোকান ছাড়া সকল দোকান বন্ধ রয়েছে। বুধবার রাঙামাটি সাপ্তাহিক হাটবার হলেও হাটে মানুষের উপস্থিতি ছিল কম। তবে সামাজিক দুরত্ব এখনো নিশ্চিত হয়নি, সেদিকে এখন গুরত্ব দেয়া হবে বলে জানিয়েছে জেলা প্রশাসন।
এদিকে ব্যবসা প্রতিষ্ঠান বন্ধ নিশ্চিতকরণের লক্ষ্যে বুধবার সকাল থেকে রাঙামাটি শহরের বিভিন্ন জায়গায় অভিযান পরিচালনা করেছে জেলা প্রশাসনের ভ্রাম্যমান আদালত। ভ্রাম্যমান আদালতের তিনটি টিম রাঙামাটি শহরে অভিযান পরিচালনা করছে। এসময় সেনাবাহিনী ও পুলিশ ভ্রাম্যমান আদালতকে সহযোগিতা করে। এসময় দুই দোকানে মূল্য তালিকা প্রদর্শন না করায় চার হাজার টাকা জরিমানা আদায় করা হয়। 
এছাড়া রাঙামাটি জেলার ১০ উপজেলাতেও সকল দোকানপাট বন্ধের খবর পাওয়া গেছে, এবং রাঙামাটি থেকে উপজেলার উদ্দেশ্য কোন লঞ্চ ছেড়ে যায়নি। উপজেলা থেকেও কোন লঞ্চ ছেড়ে আসেনি।
করোনা ভাইরাসের প্রাদুর্ভাব রোধে হোম কোয়ারেন্টাইনসহ সরকারির সকল উদ্যোগ সফল করতে যশোরে টহল শুরু করেছে সেনাবাহিনীর সদস্যরা। সকাল ১০টার পর থেকে জেলার বিভিন্ন উপজেলায় টহল কার্যক্রম শুরু করেছে তারা। স্থানীয় প্রশাসনের সহায়তায় তারা কাজ করবে বলে জানিয়েছেন জেলা প্রশাসক। 
একইসাথে সরকারি ছুটিকালে জনগণকে তথ্য ও স্বাস্থ্যসেবা নিশ্চিত করতে কন্ট্রোলরুম খুলেছে জেলা প্রশাসন।
জেলা প্রশাসক মোহাম্মাদ শফিউল আরিফ জানান, যশোরের ৮ উপজেলায় বিদেশ ফেরত ব্যক্তিদের তালিকা করা হয়েছে। তারা ইতিমধ্যে হোম কোয়ারেন্টাইনে রয়েছেন। তাদের হোম কোয়ারেন্টাইন নিশ্চিত করতে আজ থেকে সেনাবাহিনী মাঠ পর্যায়ে কাজ শুরু করেছে। পাশাপাশি নিত্যপণ্য মজুদ ও মূল্য বৃদ্ধি ঠেকাতেও সেনা সদস্যরা সহায়তা করবেন বলে জানান তিনি। 
সুনামগঞ্জের বিভিন্ন উপজেলা শহর ও গ্রামগঞ্জে প্রয়োজনীয় ঔষধের দোকান, নিত্যপ্রয়োজনীয় জিনিসপত্রে দোকানপাঠ খোলা রেখে বাকি সব ধরনের দোকানপাঠ বন্ধ রাখতে পুলিশ প্রশাসন ও সেনাবাহিনীর সদস্যরা মাঠে তৎপর হতে দেখা গেছে।  শহরের ছোটখাটো রিক্সা ভ্যানগাড়ি চলাচলেও পুলিশ বাধা দিচ্ছে। তবে জেলা ও উপজেলা শহর থেকে দূরপাল্লার যানবাহন চলাচল সম্পূর্ণভাবে বন্ধ রয়েছে। 
সকাল থেকে পুলিশ বাহিনীর সদস্যরা শহরের বিভিন্ন রাস্তার মোড়ে হ্যান্ড মাইক হাতে নিয়ে সাধারন মানুষজনকে মাস্ক ব্যবহারের পাশাপাশি ঘরের বাহিরে বের হতে নিষেধ করছেন। ফলে শহরের বিভিন্ন রাস্তায় দোকানপাঠ বন্ধ করে দিয়েছেন দোকান মালিকরা।
পটুয়াখালীতে বিদেশ ফেরত প্রবাসী ও নাগরিকের বাসা বাড়িতে লালপতাকা ও বাড়ির সামনের দেয়ালে স্টিকার লাগিয়ে কোয়ারেন্টাইনের অন্তর্ভুক্ত করা হলো। এই লাল পতাকা ও দেয়ালে স্টিকার লাগানোর মাধ্যমে জনসাধারণকে করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে সতর্ক করেছেন পটুয়াখালী পুলিশ প্রশাসন। 
করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ এড়াতে ঠাকুরগাঁওয়ে মাঠে নেমেছে সেনাবাহিনী। জেলা প্রশাসনের সঙ্গে সমন্বয় করে সামজিক দূরত্ব বজায় রাখা, জনসমাগম এড়ানো ও হোম কোয়ারাইন্টাইন নিশ্চিতকরনে কাজ করবেন তারা। বুধবার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন ঠাকুরগাঁও জেলা প্রশাসক ড. কেএম কামরুজ্জামান সেলিম।
সারাদেশের মতো বরিশালেও স্বশস্ত্র বাহিনী টহল শুরু করেছে। নগরীর বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ করেছে তারা। বরিশালের জেলা প্রশাসক মুঠোফোনে জানান, ২ প্লাটুন সেনাসদস্য প্রাথমিকভাবে বরিশালে নিয়োজিত করা হয়েছে। এরা পর্যায়ক্রমে বরিশালের বিভিন্ন স্থানে টহল কার্যক্রম চালাবেন। স্থানীয় প্রশাসনকে করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে সকল কার্যক্রমে সহয়তা করবেন।
মোংলায় করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে স্থানীয় প্রশাসনের সঙ্গে কাজ করতে মাঠে নেমেছে বাংলাদেশ নৌবাহিনী। বুধবার দুপুরে মোংলা নদীর ফেরীঘাট থেকে নৌ-সেনাদের বহর ও গাড়ী সহ শহরে প্রবেশ করে নৌবাহিনীর সদস্যরা। প্রয়োজনীয় ওষুধ ও এম্বুলেন্স সহ নৌবাহিনীর দুটি প্লাটুন নৌ-সেনা কাজ করবে মোংলা বন্দর ও পৌর শহর সহ উপজেলার ৬টি ইউনিয়নে। 
সাতক্ষীরা জেলা পুলিশের পক্ষ থেকে করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে জনসচেতনাতা সৃষ্টির লক্ষ্যে প্রচার অভিযান চালানো হচ্ছে। আজ তুপুরে পুলিশ সুপার মোহাম্মাদ মোস্তাফিজুর রহমানের নেতৃত্বে খুলনার রোড, নিউমার্কেট এলাকা ও বড় বাজার এলাকায় ‘প্রয়োজন ছাড়া কেউ বাইরে থাকবেন না, করোনা ভাইরাস খুবই দ্রুত ছড়ায় বিধায় আপনারা প্রয়োজন ছাড়া ঘরের বাইরে থাকবেন না।’এভাবে মাইকিং করে জনসচেতনতা করে যাচ্ছে। সন্ধ্যার পরে তাদের আহবানে সাড়া না দিলে আইন প্রয়োগের মাধ্যমে কঠোর পদক্ষেপ নেয়ার হুঁশিয়ারী জানানো হয়।
কি‌শোরগ‌ঞ্জে করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে  ‌যে কোন প‌রি‌স্থি‌তি মোকা‌বেলায় প্রস্তুত করা হ‌য়ে‌ছে জেলা পু‌লি‌শের কুইক রেসপন্স টিম। ক‌রোনা আক্রান্ত এবং ক‌রোনা স‌ন্দে‌হে  কোথাও পু‌লি‌শি মুভ‌মেন্ট প্র‌য়োজন পড়‌লে কিংবা এ সংক্রান্ত যে‌ কোন সহায়তা ও আইন-শৃংখলা প‌রি‌স্থি‌তি মোকা‌বেলায় পু‌লিশ‌কে সহ‌যো‌গিতা কর‌বে এ বি‌শেষ টিম। 
এর আগে ২৩ মার্চ সারা দেশে সেনা মোতায়েনের সিদ্ধান্ত নেয় সরকার। তারা জেলা প্রশাসনের সঙ্গে সমন্বয় করে কাজ করবেন বলে জানান মন্ত্রিপরিষদ সচিব খন্দকার আনোয়ারুল ইসলাম।

করোনা ভাইরাস লাইভ

বাংলার সময়
বাণিজ্য সময়
বিনোদনের সময়
খেলার সময়
আন্তর্জাতিক সময়
মহানগর সময়
অন্যান্য সময়
তথ্য প্রযুক্তির সময়
রাশিফল
লাইফস্টাইল
ভ্রমণ
প্রবাসে সময়
সাক্ষাৎকার
মুক্তকথা
বাণিজ্য মেলা
রসুই ঘর
বিশ্বকাপ গ্যালারি
বইমেলা
উত্তাল মার্চ
সিটি নির্বাচন
শেয়ার বাজার
জাতীয় বাজেট
বিপিএল
শিক্ষা সময়
ভোটের হাওয়া
স্বাস্থ্য
ধর্ম
চাকরি
পশ্চিমবঙ্গ
ফুটবল বিশ্বকাপ
ভাইরাল
সংবাদ প্রতিনিধি
বিশ্বকাপ সংবাদ
Latest News
এক্সক্লুসিভ লাইভ
বিপিএল ২০২০

করোনা ভাইরাস লাইভ

আপনিও লিখুন
ছবি ভিডিও টিভি আর্কাইভ
মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন
GoTop