মহানগর সময় নির্দেশনা না মেনে অবাধে চলাফেরা করছেন প্রবাসীরা

২১-০৩-২০২০, ১০:১৫

হারুনুর রশিদ

fb tw
ময়মনসিংহে চলতি মাসে বিদেশ থেকে তিন হাজারের বেশি প্রবাসী বাড়িতে আসলেও শুক্রবার (২০ মার্চ) পর্যন্ত হোম কোয়ারেন্টাইনে আছেন মাত্র ২২৩ জন। অনেকে সরকারি নির্দেশনা না মেনে অবাধে চলাফেরা করছেন। এতে স্থানীয়রা করোনা আতঙ্কে রয়েছেন। জেলা প্রশাসক জানালেন, বিদেশ ফেরত সবাইকে হোম কোয়ারেন্টাইনে রাখতে প্রশাসন কাজ করছে।
ময়মনসিংহের নান্দাইল উপজেলার বাহের বানাইল গ্রামের একজন সৌদি প্রবাসী বাড়িতে এসেছেন চলতি মাসের ৪ তারিখে। এরপর থেকেই অবাধে চলাফেরা করছেন। গত ১৭ মার্চ মালয়েশিয়া থেকে বাড়িতে এসেছেন তার পিতাও। তিনিও সরকারি নির্দেশনা না মেনে বাইরে চলাফেরা করছিলেন। তবে স্বাস্থ্য বিভাগ ও গণমাধ্যমের লোকজন বৃহস্পতিবার (১৯ মার্চ) তার বাড়িতে খোঁজ খবর নিতে গেলে তারা হোম কোয়ারেন্টাইনে থাকা শুরু করেন। একই উপজেলার ইতালি থেকে আসা এক ব্যক্তির বাড়িতে গ্রাম পুলিশের পাহারা বসানো হয়েছে।
শুক্রবার পর্যন্ত ৩ হাজার ১২২ জন প্রবাসী ময়মনসিংহে বাড়িতে এসেছেন। বিপরীতে হোম কোয়ারেন্টাইনে আছেন মাত্র ২২৩ জন। প্রবাস ফেরত বেশির ভাগ মানুষ হোম কোয়ারেন্টাইনে না থাকায় আতঙ্কে আছেন এলাকাবাসী।
স্থানীয় বান্দিারা বলেন, বিদেশ থেকে এসে তারা যে বাইরে ঘোরাফেরা করে, এতে আমাদের ভয় হয়। আতঙ্কের মধ্যে আছি কখন করোনা ভাইরাস ছড়িয়ে পড়ে।
এদিকে বিদেশ ফেরত লোকজনের হোম কোয়ারেন্টাইন নিশ্চিত করতে তাদের বাড়ি বাড়ি গিয়ে খোঁজ খবর নেয়া হচ্ছে বলে জানায় প্রসাসন।
ঈশ্বরগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. জাকির হোসেন বলেন, প্রবাসীরা যাতে ১৪ দিন নিজ বাড়িতে অবস্থান করেন তার জন্য জনপ্রতিনিধিদের বলছি। পাশাপাশি বাড়ি বাড়ি গিয়েও সচেতন করার চেষ্টা করছি।
তবে তৃণমূল পর্যায়ে পিপিই সঙ্কট রয়েছে বলে জানান মাঠ পর্যায়ের চিকিৎসকরা।
এদিকে জেলা সিভিল সার্জন জানান, শিগগিরই করোনা শনাক্ত পরীক্ষা ময়মনসিংহে চালু হবে। আর জেলা প্রশাসক জানালেন, বিদেশ ফেরত সবাইকে হোম কোয়ারেন্টাইনে রাখতে কাজ চলছে।
ময়মনসিংহ সিভিল সার্জন ডা. মশিউল আলম বলেন, আমরা আশাবাদী তারা আমাদের সব ব্যবস্থা করে দেবেন। যেটা ময়মনসিংহবাসীর জন্য সুখবর হবে।
ময়মনসিংহ জেলা প্রশাসক মো. মিজানুর রহমান বলেন, অনেক সময় অনেকে হোম কোয়ারেন্টাইনে যেতে চাই না। তখন আমরা তাদের জরিমানা করছি। এবং প্রতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টাইনে নেয়ার ব্যবস্থা করছি। 
করোনায় আক্রান্তদের জন্য নগরীর এসকে হাসপাতালে ৩০ শয্যার আইসোলেশন ওয়ার্ড এবং প্রত্যেক উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ৫টি করে বেড প্রস্তুত রাখা হয়েছে। আর প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টাইনের জন্য পরানগঞ্জ হাসপাতালে ৩০ শয্যা প্রস্তুত রাখা হয়েছে।

করোনা ভাইরাস লাইভ

বাংলার সময়
বাণিজ্য সময়
বিনোদনের সময়
খেলার সময়
আন্তর্জাতিক সময়
মহানগর সময়
অন্যান্য সময়
তথ্য প্রযুক্তির সময়
রাশিফল
লাইফস্টাইল
ভ্রমণ
প্রবাসে সময়
সাক্ষাৎকার
মুক্তকথা
বাণিজ্য মেলা
রসুই ঘর
বিশ্বকাপ গ্যালারি
বইমেলা
উত্তাল মার্চ
সিটি নির্বাচন
শেয়ার বাজার
জাতীয় বাজেট
বিপিএল
শিক্ষা সময়
ভোটের হাওয়া
স্বাস্থ্য
ধর্ম
চাকরি
পশ্চিমবঙ্গ
ফুটবল বিশ্বকাপ
ভাইরাল
সংবাদ প্রতিনিধি
বিশ্বকাপ সংবাদ
Latest News
এক্সক্লুসিভ লাইভ
বিপিএল ২০২০

করোনা ভাইরাস লাইভ

আপনিও লিখুন
ছবি ভিডিও টিভি আর্কাইভ
মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন
GoTop