স্বাস্থ্য করোনা: বাংলাদেশের জন্য নতুন আতঙ্ক তিন দেশ

০৩-০৩-২০২০, ১৯:৩৯

স্বাস্থ্য সময় ডেস্ক

fb tw
করোনা: বাংলাদেশের জন্য নতুন আতঙ্ক তিন দেশ
বিশ্বজুড়ে করোনাভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা প্রায় ৮৯ হাজার। মরণঘাতী এ ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে বিশ্বব্যাপী এখন পর্যন্ত মারা গেছেন ৩ হাজার ৪৩ জন, যার মধ্যে সর্বশেষ ২৪ ঘণ্টার হিসেবে মৃত্যু হয়েছে ৬৬ জন। বিশ্ব সংস্থা সংস্থার হিসেবে এখন পর্যন্ত আক্রান্ত দেশ ৬৫।
এ অবস্থায় করোনাভাইরাস নিয়ে উদ্বেগ বাড়ছে বাংলাদেশেও। পাশাপাশি বেশ কয়েকটি দেশের পরিস্থিতিও ভাবাচ্ছে নীতিনির্ধারকদের। এতদিন বাংলাদেশের জন্য সবচেয়ে উদ্বেগের ছিলো চীনের পরিস্থিতি। এবার সে তালিকায় যুক্ত হয়েছে ইরান, ইতালি ও দক্ষিণ কোরিয়ার নামও। আর এ কারণে এসব দেশ থেকে আসা যাত্রীদের ব্যাপারে বাড়তি সতর্ক থাকার কথা জানিয়েছে রোগতত্ত্ব, রোগ নিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা ইন্সটিটিউট- আইইডিসিআর।
মঙ্গলবার (০৩ মার্চ) রাজধানীর মহাখালীতে করোনাভাইরাস পরিস্থিতি নিয়ে নিয়মিত ব্রিফিংয়ে রোগতত্ত্ব, রোগ নিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা প্রতিষ্ঠান আইইডিসিআর এর পরিচালক অধ্যাপক ডা. মীরজাদী সেব্রিনা ফ্লোরা বলেন, 'আমাদের জন্য এখন উদ্বেগের জায়গা হচ্ছে দক্ষিণ কোরিয়া, ইতালি, ইরান। বিশ্বস্বাস্থ্য সংস্থাও কিন্তু এ তিন জায়গাকে হটস্পট বলছে এখন।'
আইইডিসিআর পরিচালক বলেন, 'ইউরোপ এবং ইউরোপ ছাড়াও বেশ কিছু দেশে যে রোগী সংক্রমণ হয়েছে দেখা যায় তারা ইতালি থেকে ভ্রমণ করে যাচ্ছেন। মধ্যপ্রাচ্যের যে সব দেশে এখন একজন-দুজন করে রোগী বাড়ছে, তারাও কিন্তু দেখা যাচ্ছে ইরান থেকে গেছেন। সে সমস্ত কারণে এটা আমাদের একটা উদ্বেগের জায়গা।'
আর দক্ষিণ কোরিয়া প্রসঙ্গে ডা. সেব্রিনা বলেন, 'সবশেষ ২৪ ঘণ্টায় নতুন রোগীর হিসেবে দক্ষিণ কোরিয়ায় এখন শীর্ষে। আমাদের দেশের সঙ্গে দক্ষিণ কোরিয়ার সম্পর্ক অনেক ঘনিষ্ঠ। অনেক শিক্ষার্থী সেখানে পড়াশোনা করেন। আমাদের এখান থেকে অনেক কর্মী সেখানে কাজ করেন। এবং আমাদের সঙ্গে ব্যবসায়িক সংযোগও রয়েছে।'
করোনাভাইরাস নিয়ে সতর্কতার কারণে দেশে বর্তমানে ৫ জনকে আইসোলশনে রাখা হয়েছে বলে জানিয়েছে আইইডিসিআর।
প্রতিষ্ঠানটির পরিচালক বলেন, 'আমাদের হাসপাতালে সব সময়ই আইসোলেশনে থাকে। যখন কেউ আমাদের কাছে আসেন, কিংবা আক্রান্ত দেশ থেকে কারো আসা কিংবা তার বিভিন্ন লক্ষণ-উপসর্গের ব্যাপারে আমাদের কাছে কোনো ফোন-কল আসে, আমরা এখন বিলম্ব না করে তাকে সাথে সাথে হাসপাতালে পাঠাই। নমুনা সংগ্রহ করার পর নমুনা পরীক্ষা করে তাকে ছাড়ি। কোনো কোনো ক্ষেত্রে কোয়ারেন্টিনেও রাখি।'
তবে এখনো পর্যন্ত মোট ৯৬ জনের নমুনা পরীক্ষা করে করোনাভাইরাসের উপস্থিতি পাওয়া যায়নি বলে জানিয়েছে আইইডিসিআর।
করোনোভাইরাস পরিস্থিতি নিয়ে সতর্কতার অংশ হিসেবে বেসরকারি হাসপাতালগুলোকে আইসোলেশন ইউনিট রাখার যে নির্দেশনা দেয়া হয়েছে, সেটি বাস্তবায়নে আবারো আহ্বান জানান আইইডিসিআর পরিচালক।
 
একই সঙ্গে আক্রান্ত দেশগুলো থেকে আসা ব্যক্তিদের তথ্য জানাতে আবাসিক হোটেল মালিকদের মালিকদের নির্দেশনা দিয়েছে আইইডিসিআর। প্রতিষ্ঠানটির পরিচালক ডা. সেব্রিনা বলেন, 'যেসব হোটেলে আক্রান্ত দেশগুলো থেকে এসে যাত্রীরা থাকতে পারেন সেসব হোটেল মালিকদের সঙ্গে আমরা বৈঠক করেছি, তাদেরকে বিভিন্ন পরামর্শ দিয়েছি।'
ডা. সেব্রিন ফ্লোরা বলেন, 'আবাসিক হোটেলে আক্রান্ত দেশ থেকে এসে যাত্রীরা থাকেন, অনেক সময় বিমানের ক্রুরা থাকেন, অনেক সময় ট্রানজিট প্যাসেঞ্জাররাও এসে থাকেন। সে জন্য আমরা হোটেল মালিকদের সুনির্দিষ্ট কিছু অনুরোধ করেছি। তার মধ্যে অন্যতম হচ্ছে আক্রান্ত দেশ থেকে যারা আসেন,তাদের সম্পর্কে তথ্যগুলো আমাদের জানান। যাতে আমরা আমাদের আইইডিসিআর এর পর্যবেক্ষণের টিমের মাধ্যমে তাদের পর্যবেক্ষণে রাখতে পারি।'
তবে এক্ষেত্রে আক্রান্ত দেশ থেকে আসা ব্যক্তিদের  'যেন এমন কোনো আচরণ করা না হয়, যাতে তারা হেয় প্রতিপন্ন হন', সে বিষয়ে সতর্ক থাকার অনুরোধ করেন অধ্যাপক ডা. মীরজাদী সেব্রিনা ফ্লোরা।

করোনা ভাইরাস লাইভ

বাংলার সময়
বাণিজ্য সময়
বিনোদনের সময়
খেলার সময়
আন্তর্জাতিক সময়
মহানগর সময়
অন্যান্য সময়
তথ্য প্রযুক্তির সময়
রাশিফল
লাইফস্টাইল
ভ্রমণ
প্রবাসে সময়
সাক্ষাৎকার
মুক্তকথা
বাণিজ্য মেলা
রসুই ঘর
বিশ্বকাপ গ্যালারি
বইমেলা
উত্তাল মার্চ
সিটি নির্বাচন
শেয়ার বাজার
জাতীয় বাজেট
বিপিএল
শিক্ষা সময়
ভোটের হাওয়া
স্বাস্থ্য
ধর্ম
চাকরি
পশ্চিমবঙ্গ
ফুটবল বিশ্বকাপ
ভাইরাল
সংবাদ প্রতিনিধি
সর্বশেষ সংবাদ

করোনা ভাইরাস লাইভ

আপনিও লিখুন
ছবি ভিডিও টিভি আর্কাইভ
মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন
GoTop