মহানগর সময় বিদেশে রপ্তানি পণ্য পথেই চুরি!

২২-০২-২০২০, ১৭:৩১

কমল দে

fb tw
বিদেশে রপ্তানি পণ্য পথেই চুরি!
বিদেশে রপ্তানিযোগ্য পণ্য মাঝপথে চুরি চক্রের ১০ সদস্যকে আটক করেছে পুলিশ। নগরীর ইপিজেড থানা পুলিশ গত ২৪ ঘণ্টায় চট্টগ্রাম এবং ঢাকার বিভিন্ন স্থানে অভিযান চালিয়ে তাদের আটক করা হয়। উদ্ধার করা হয়েছে প্রায় দেড় কোটি টাকা মূল্যের মালামাল।
সিএমপি বন্দর জোনে অতিরিক্ত উপ কমিশনার আরেফিন জুয়েল বলেন, ‘এই চক্রের কারণে বিদেশি ক্রেতাদের কাছে বাংলাদেশের সুনাম মারাত্মকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছিল। রপ্তানিযোগ্য পণ্য তারা মাঝপথে চুরি করে নেয়। কিন্তু বিদেশে পাঠানোর পর ক্রেতা যখন দেখে পণ্য কম, তখন তারা বাংলাদেশ থেকে পণ্য কিনতে আগ্রহ দেখায় না। এ চক্রের বাকি সদস্যদের গ্রেফতারে পুলিশের অভিযান অব্যাহত রয়েছে।’
ঘটনার বর্ণনা দিয়ে ইপিজেড থানার অফিসার ইনচার্জ মোহাম্মদ নুরুল হুদা জানান, প্রথমে ইপিজেড পুলিশ ফাঁড়ির সামনে একটি কার্ভাড ভ্যান থেকে পণ্য নামানোর সময় পুলিশের সন্দেহ হয়। পরে প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে পুলিশ বুঝতে পারে কাভার্ডভ্যানের চালক মোহাম্মদ সুমন এবং হেলপার মোহাম্মদ ইউসুফ মূলত চুরি করা পণ্য সেখানে আপলোড করছে। তাৎক্ষণিকভাবে তাদের আটক করা হয়। এ সময় তাদের কাছে পাওয়া যায় ৪০৩ কার্টনে ৯ হাজার ৮০১ পিস তৈরি পোশাক।
পুলিশ আরো জানায়, আটককৃতদের স্বীকারোক্তি অনুযায়ী কিউএনএস কন্টেইনার ডিপোতে অভিযান চালিয়ে আরো দু’টি কাভার্ড ভ্যান আটক করা হয়। সেখান থেকে আটক করা হয় এই দলের সদস্য তাজুল হাসান, রুবেল হোসেন এবং সুমন নামে আরো তিনজনকে। এই দু’টি কাভার্ড ভ্যানের একটি থেকে ৩৯৮ কার্টনে ৯ হাজার ৬৩৭ পিস এবং অপর কাভার্ড ভ্যান থেকে ৫৮৮ কার্টনে ১০ হাজার ৩২ পিস তৈরি পোশাক চুরি করেছিল এই চক্রটি।
 শেষ পর্যায়ে পুলিশ অভিযান চালায় রাজধানী ঢাকায়। এসময় ঢাকার বিভিন্ন স্থান থেকে এই চক্রের সদস্য নুরন্নবী প্রকাশ সোহাগ, মাহবুবুর রহমান প্রকাশ শাওন, মোহাম্মদ মাসুদ এবং সাইফুল ইসলাম প্রকাশ রিপনকে আটক করে। চুরি যাওয়া বাকি সব মালামালই উদ্ধার করা হয় তাদের কাছ থেকে। যার বাজার মূল্য প্রায় ১ কোটি ২৩ লাখ টাকা। এ ঘটনায় চট্টগ্রামের মাইশা এন্টারপ্রাইজের ট্রান্সপোর্ট ম্যানেজার আনোয়ার উল্লাহ বাদী হয়ে ইপিজেড থানায় একটি মামলা দায়ের করেছেন।
অভিযানে অংশ নেয়া পুলিশ কর্মকর্তারা জানান, মূলত সাভারের নবীনগর এলাকার গার্মেন্টস প্রতিষ্ঠান পার্ল গার্মেন্টেসে প্রস্তুত করা হয়েছে এসব পোশাক। পরবর্তীতে চট্টগ্রাম বন্দর দিয়ে রপ্তানির জন্য তিনটি কাভার্ড ভ্যানে চট্টগ্রামের কিউএনএস কন্টেইনার ডিপোতে পাঠানো হচ্ছিল। কিন্তু ঢাকার ডেমরা এলাকায় আসার পর এই চক্রের সদস্যরা কৌশলে কাভার্ড ভ্যানের লগ খুলে সেখান থেকে কোটি টাকা মূল্যের এসব মালামাল চুরি করে নিয়েছিল।

করোনা ভাইরাস লাইভ

বাংলার সময়
বাণিজ্য সময়
বিনোদনের সময়
খেলার সময়
আন্তর্জাতিক সময়
মহানগর সময়
অন্যান্য সময়
তথ্য প্রযুক্তির সময়
রাশিফল
লাইফস্টাইল
ভ্রমণ
প্রবাসে সময়
সাক্ষাৎকার
মুক্তকথা
বাণিজ্য মেলা
রসুই ঘর
বিশ্বকাপ গ্যালারি
বইমেলা
উত্তাল মার্চ
সিটি নির্বাচন
শেয়ার বাজার
জাতীয় বাজেট
বিপিএল
শিক্ষা সময়
ভোটের হাওয়া
স্বাস্থ্য
ধর্ম
চাকরি
পশ্চিমবঙ্গ
ফুটবল বিশ্বকাপ
ভাইরাল
সংবাদ প্রতিনিধি
বিশ্বকাপ সংবাদ
Latest News
এক্সক্লুসিভ লাইভ
বিপিএল ২০২০

করোনা ভাইরাস লাইভ

আপনিও লিখুন
ছবি ভিডিও টিভি আর্কাইভ
মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন
GoTop