খেলার সময়গাড়ী চালিয়ে জীবন কাটাচ্ছেন তুরস্কের কিংবদন্তী ফুটবলার হাকান শুকুর

১৪-০১-২০২০, ২০:২২

খেলার সময় ডেস্ক

fb tw
গাড়ী চালিয়ে জীবন কাটাচ্ছেন তুরস্কের কিংবদন্তী ফুটবলার হাকান শুকুর
২০০২ ফুটবল বিশ্বকাপ দেখেছেন? যদি ভালোভাবে দেখে থাকেন তবে একটি নাম নিশ্চয়ই মনে থাকার কথা। হাকান শুকুর; তুরস্কের কিংবদন্তী ফুটবলার। সেবারের বিশ্বকাপে বিশ্বফুটবলে তুরস্কের জাগরণের অন্যতম কারিগর ছিলেন তিনি।
তৃতীয় স্থান নির্ধারণী ম্যাচে দক্ষিণ কোরিয়ার বিপক্ষে তুর্কি অধিনায়কের ১০ সেকেন্ডে করা গোলটি এখনো বিশ্বকাপে দ্রুততম সময়ে গোলের রেকর্ড হয়ে আছে। ম্যাচটি ৩-২ গোলে জেতে তুরস্ক। বিশ্বকাপে যা তাদের সেরা সাফল্য।
তবে রেকর্ডধারী তুরস্কের এ কিংবদন্তি ফুটবলার এখন চরম দুর্দশায় জীবন কাটাচ্ছেন। দেশের হয়ে সর্বোচ্চ গোলদাতা এখন আমেরিকায় বাস করছেন। দেশে ব্রাত্য হয়ে পড়া ৪৮ বছর বয়সী এ কিংবদন্তী বর্তমানে গাড়ি চালিয়ে জীবিকা নির্বাহ করছেন।
কঠিন এ বাস্তবতার সামনে দাঁড়িয়ে নিজের দুর্দশার জন্য হাকান শুকুর দায়ী করেন দেশটির প্রেসিডেন্ট রিসেপ তাইয়েব এরদোয়ানকে। ২০০৮ সালে সব ধরনের ফুটবল থেকে অবসর নেয়া শুকুর ২০১১ সালে এরদোয়ানের রাজনৈতিক দল একে পার্টিতে যোগদান করেন। পরবর্তীতে মতের অমিল হওয়াতে ২০১৩ সালে দলটি থেকে সরে দাঁড়ান তিনি। এরপর থেকে জীবনের ভীতি নিয়ে দিন কাটাতে হয়। পরে দেশ ছেড়ে নির্বাসনে যেতে হয়।
হাকান শুকুর বলেন, তুরস্কের প্রেসিডেন্ট এরদোয়ান আমার সব কেড়ে নিয়েছে। আমি দল থেকে বেরিয়ে যাওয়ার পর শত্রুতা শুরু হয়। আমার স্ত্রীর দোকানে ঢিল ছোঁড়া হয়। সন্তানকে রাস্তায় অপদস্থ করা হয়। আমার অসুস্থ বাবা-মা এখন গৃহবন্দী। সরকার আমার সব স্থাবর-অস্থাবর সম্পত্তি বাজেয়াপ্ত করেছে।

আমেরিকায় পালিয়ে আসার পরেও এরদোয়ানের লোকজন তার পিছু ছাড়েনি বলে জানান তিনি। বলেন, আমি আমেরিকায় পালিয়ে আসি। ক্যালিফোর্নিয়াতে রেস্টুরেন্ট ব্যবসা খুলি। কিন্তু সেখানে এরদোগানের লোকজন উৎপাত শুরু করে। এরদোয়ান আমাকে পুরো বিশ্ব থেকে একা করে দিতে চায়।
‘আমার সঙ্গে যাদের কোনো সম্পর্ক আছে, সবাই এখন অর্থ কষ্টে ভুগছেন। এমনকি আমেরিকায় পড়ুয়া এক ছেলে আমার সঙ্গে ছবি তোলায় ১৪ মাস জেল খেটেছে।’ বলছিলেন শুকুর।
তুরস্কের হয়ে সর্বাধিক ৫১ গোলের মালিক হাকান শুকুর। তুরস্কের ক্লাব গালাতাসারের হয়ে ১৩ বছরের ক্যারিয়ারে ২০০ গোল করেছেন তিনি। তার নামের পাশে আছে অনেক শিরোপা। গালাতাসারে এমনকি তুরস্কের ফুটবলপ্রেমীদের কাছে তিনি কিংবদন্তী। শুধু তুরস্কেই নয়, দেশের বাইরেও আছে তার দারুণ জনপ্রিয়তা।
তিনি বলেন, ২০১৭ সালে আমার প্রিয় ক্লাব আমাকে নিষিদ্ধ ঘোষণা করে। বলা হয়েছে ক্রীড়া মন্ত্রী বলায় এমন সিদ্ধান্ত নিয়েছে তারা। কিন্তু আমি নিশ্চিত এর পেছনে এরদোগানের হাত আছে।
এখন গাড়ি চালিয়ে পরিবারের জন্য জীবিকা নির্বাহ করেন জানিয়ে হাকান শুকুর বলেন, আমি নির্দিষ্ট কোনো জায়গায় টানা অবস্থান করতে পারি না। তাই আমি বর্তমানে আমেরিকায় গাড়ি চালিয়ে জীবিকা নির্বাহ করি।

আরও সংবাদ

বাংলার সময়
বাণিজ্য সময়
বিনোদনের সময়
খেলার সময়
আন্তর্জাতিক সময়
মহানগর সময়
অন্যান্য সময়
তথ্য প্রযুক্তির সময়
রাশিফল
লাইফস্টাইল
ভ্রমণ
প্রবাসে সময়
সাক্ষাৎকার
মুক্তকথা
বাণিজ্য মেলা
রসুই ঘর
বিশ্বকাপ গ্যালারি
বইমেলা
উত্তাল মার্চ
সিটি নির্বাচন
শেয়ার বাজার
জাতীয় বাজেট
বিপিএল
শিক্ষা সময়
ভোটের হাওয়া
স্বাস্থ্য
ধর্ম
চাকরি
পশ্চিমবঙ্গ
ফুটবল বিশ্বকাপ
ভাইরাল
সংবাদ প্রতিনিধি
বিশ্বকাপ সংবাদ
Latest News
এক্সক্লুসিভ লাইভ
বিপিএল ২০২০
আপনিও লিখুন
ছবি ভিডিও টিভি
মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন
GoTop