মহানগর সময় জঙ্গিদের নিয়ে হামলার পরিকল্পনা শিবিরের

২৩-০৩-২০১৫, ১৪:৪৪

কমল দে

fb tw
প্রসাধনী কেনাবেচার আড়ালে চট্টগ্রামে জেএমবি'র কার্যক্রম চালিয়ে আসছিলো জেলা কমান্ডার আরশাদ হোসেন। নিষিদ্ধ ঘোষিত জঙ্গি সংগঠন জেএমবি, হিযবুত তাহরীর এবং হরকাতুল জিহাদের সাথে যোগ দিয়ে আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর ওপর বড় ধরনের হামলার পরিকল্পনা করছিলো শিবির।
সোমবার সকালে বিপুল পরিমাণ বোমা, গান পাউডার এবং বিস্ফোরকসহ আটকের পর জেএমবির চট্টগ্রাম জেলা কমান্ডার আরশাদুল ইসলাম ওরফে মামুনের স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি থেকে বেরিয়ে আসে এসব তথ্য।
নিষিদ্ধ জঙ্গি সংগঠন চট্টগ্রামে আবারো সংগঠিত হওয়ার চেষ্টা করছে এ গোপন তথ্যের ভিত্তিতে গত এক সপ্তাহ ধরে সংগঠকদের অনুসন্ধানে নামে পুলিশ। এর মধ্যে সোমবার ভোরে নগরীর পাহাড়তলী এলাকা থেকে পুলিশের হাতে ধরা পড়ে সংগঠনটির চট্টগ্রাম জেলা কমান্ডার মামুন।
সিএমপি'র আকবর শাহ থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা সজীব কুমার দাশ বলেন, 'গোপন সংবাদের ভিত্তিতে তাকে গ্রেফতার করা হয়। তিনি নিজেকে জেএমবি'র একজন দায়িত্বশীল হিসেবে পরিচয় দেয়। পরে তার দেয়া তথ্যের ভিত্তিতে বাসায় তল্লাশি করে এসব বিস্ফোরক দ্রব্য উদ্ধার করা হয়।'
আটকের পর ঊর্ধ্বতন পুলিশ কর্মকর্তারা টানা তিন ঘণ্টা মামুনকে জিজ্ঞাসাবাদ করে। আর পুলিশী জিজ্ঞাসাবাদে বের হয়ে আসে জঙ্গি সংগঠনের সাথে ঐক্যবদ্ধ হয়ে ইসলামী রাষ্ট্র কায়েমে শিবিরের প্রচেষ্টার তথ্য। মামুনও গত কয়েক বছর আগে দিনাজপুরে শিবিরের সাথীর দায়িত্ব পালন করেছে।
সিএমপি পুলিশ কমিশনার আবদুল জলিল মন্ডল বলেন, 'যাকে গ্রেফতার করা হয়েছে সে নিজেকে জেএমপির একজন সক্রিয় সদস্য হিসেবে পরিচয় দিয়েছে। সে ছাড়াও আরো তিনজন নেতা আছে। ওর দোকানেই তারা আসতো। সেখানে তারা বিভিন্ন পরিকল্পনা করতো এবং তাদের উদ্দেশ্য ছিল অরাজকতা সৃষ্টি করা।'
মূলত নগরীর পাহাড়তলী নিউ মনছুরাবাদ এলাকার একটি প্রসাধনীর দোকানে পণ্য কেনা-বেচার আড়ালেই চলছিলো জঙ্গি সংগঠনটির কার্যক্রম। অভিযানের এক পর্যায়ে ও দোকান থেকে উদ্ধার করা হয় প্রধানমন্ত্রীকে হুমকি সম্বলিত একটি চিঠি।
আকবর শাহ থানার পরিদর্শক (তদন্ত) মনোজ কুমার দে বলেন, 'দোকানে তল্লাশি চালিয়ে একটা চিঠি পেয়েছি। মনে হচ্ছে চিঠিটি প্রধানমন্ত্রী বরাবর পাঠানোর জন্য তৈরি করা হয়েছিল। চিঠিটি যাচাই করে ব্যবস্থা নেয়া হবে।'
এদিকে আটককৃত মামুনও সাংবাদিকদের কাছে তুলে ধরেছে নিজেসহ এক সময় শিবিরের রাজনীতির সাথে সম্পৃক্ততরাই ইসলামী রাষ্ট্র কায়েমের জন্য কাজ করে যাচ্ছে।
আটক আরশাদ হোসেন ওরফে মামুন বলেন, 'জেএমবির এলাকা ভিত্তিক এবং টার্গেট ভিত্তিক দাওয়া বিভাগের একটি দল থাকে তারা এলাকা ভিত্তিক মেধাবী ছাত্রদের টার্গেট করে তাকে দাওয়াত দেয়া হয়। জেএমবি'র আদলে একটি সংগঠন তৈরি করা হয়েছে। বিশ্বের প্রত্যেকটি গ্রুপের সাথেই আমাদের যোগাযোগ আছে।'
জঙ্গি সংগঠনটির চট্টগ্রাম জেলা কমান্ডার মামুনকে গ্রেপ্তার করা গেলেও বিভাগীয় কমান্ডার ফুয়াদ এবং আপেলসহ বাকি সদস্যদের গ্রেপ্তারের জন্য পুলিশ অভিযান চালিয়ে যাচ্ছে।

করোনা ভাইরাস লাইভ

বাংলার সময়
বাণিজ্য সময়
বিনোদনের সময়
খেলার সময়
আন্তর্জাতিক সময়
মহানগর সময়
অন্যান্য সময়
তথ্য প্রযুক্তির সময়
রাশিফল
লাইফস্টাইল
ভ্রমণ
প্রবাসে সময়
সাক্ষাৎকার
মুক্তকথা
বাণিজ্য মেলা
রসুই ঘর
বিশ্বকাপ গ্যালারি
বইমেলা
উত্তাল মার্চ
সিটি নির্বাচন
শেয়ার বাজার
জাতীয় বাজেট
বিপিএল
শিক্ষা সময়
ভোটের হাওয়া
স্বাস্থ্য
ধর্ম
চাকরি
পশ্চিমবঙ্গ
ফুটবল বিশ্বকাপ
ভাইরাল
সংবাদ প্রতিনিধি
বিশ্বকাপ সংবাদ
Latest News
এক্সক্লুসিভ লাইভ
বিপিএল ২০২০

করোনা ভাইরাস লাইভ

আপনিও লিখুন
ছবি ভিডিও টিভি আর্কাইভ
মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন
GoTop