ভোটের হাওয়া ডাকসু নির্বাচন এক ঘণ্ট পর রোকেয়া হলে ভোটগ্রহণ শুরু

১১-০৩-২০১৯, ০৯:০২

সময় সংবাদ

fb tw
<span class=ডাকসু নির্বাচন এক ঘণ্ট পর রোকেয়া হলে ভোটগ্রহণ শুরু" data-src="https://www.somoynews.tv/img/upload/medium/dacsu-149796.jpg">
প্রায় সোয়া এক ঘণ্টা পর বেগম রোকেয়া হলে ডাকসু এবং হল সংসদ নির্বাচন শুরু হয়েছে। হল প্রাধ্যক্ষ ড. জিনাত হুদা একথা জানিয়েছেন। সোমবার (১১ মার্চ) সকাল ৮টা থেকে ভোটগ্রহণ শুরু হওয়ার কথা থাকলেও শিক্ষার্থীদের বিক্ষোভের কারণে যথাসময়ে শুরু করতে পারেনি নির্বাচন কমিশন।
শিক্ষার্থী এবং বিভিন্ন প্যানেলের প্রার্থীরা অভিযোগ করেন, রাতে আগে থেকেই ব্যালট পেপারে সিল মেরে রেখে দিয়েছিল ছাত্রলীগ।
এদিকে অনিয়মের কারণে বাংলাদেশ কুয়েত মৈত্রী হলে ভোটগ্রহণ স্থগিত করেছে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন।
সময় সংবাদের প্রতিনিধিরা জানিয়েছেন, সেখানে স্বতন্ত্র প্রার্থীরা বিক্ষোভ করছেন। এরিমধ্যে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রোক্টর অধ্যাপক গোলাম রব্বানী ঘটনাস্থলে পৌঁছেছেন।
সকাল ৮টায় বিশ্ববিদ্যালয়ের হলগুলোতে একযোগে ভোটগ্রহণ শুরু হয়, যা চলবে দুপুর ২টা পর্যন্ত। ভোট দেয়ার জন্য কেন্দ্রগুলোতে লম্বা লাইনে দাঁড়িয়ে থাকতে দেখা গেছে শিক্ষার্থীদের।
এবার ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদ এবং হল সংসদের নির্বাচন একই সঙ্গে অনুষ্ঠিত হচ্ছে। স্বাধীনতার পর ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদ (ডাকসু) ও হল সংসদ নির্বাচন হয়েছে সাত বার। সবশেষ ডাকসু নির্বাচন হয়েছিল ১৯৯০ সালে।
দীর্ঘ সময় পর ডাকসু নির্বাচনের দাবিতে ২০১২ সালে হাইকোর্টে রিট আবেদন করেন ২৫ শিক্ষার্থী। আদালত তখন ডাকসু নির্বাচন করার ব্যর্থতা কেন অবৈধ ঘোষণা করা হবে না জানতে চেয়ে রুল জারি করেন। সেই রুলের নিষ্পত্তি করে ২০১৮ সালের ১৭ জানুয়ারি হাইকোর্ট ছয় মাসের মধ্যে ডাকসু নির্বাচনের ব্যবস্থা নিতে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষকে নির্দেশ দিয়ে রায় দেন।
নির্দেশনা ও পরিকল্পনার সমন্বয় ঘটিয়ে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. আখতারুজ্জামান ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদ ও হল সংসদ নির্বাচনের গঠনতন্ত্র অনুযায়ী নির্বাচনের এই তারিখ ও সময় নির্ধারণ করেন।
নির্বাচনে একজন শিক্ষার্থী ডাকসুতে ২৫ পদ ও হল সংসদে ১৩টি পদের জন্য ভোট দিতে পারছেন। ডাকসুতে লড়ছেন ২২৯ জন প্রার্থী। ১৮টি হলের ১৩ টি করে পদের জন্য লড়ছেন ৫০৯ জন। চূড়ান্ত তালিকায় ভিপি পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন ২১ জন, তাদের সঙ্গে ১৪ জন লড়ছেন জিএস পদে এবং ১৩ জন এজিএস পদে। নির্বাচনে মোট ভোটারের সংখ্যা ৪৩ হাজার ২৫৫ জন। নির্বাচনকে ঘিরে বিশ্ববিদ্যালয় এলাকায় কড়া নিরাপত্তা ব্যবস্থা নিয়ে প্রশাসন। ভোটগ্রহণ শেষে দ্রুততম সময়ের মধ্যে ওএমআর মেশিনের মাধ্যমে ভোট গণনা করে ফলাফল ঘোষণা করা হবে বলে জানান বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন।

করোনা ভাইরাস লাইভ

বাংলার সময়
বাণিজ্য সময়
বিনোদনের সময়
খেলার সময়
আন্তর্জাতিক সময়
মহানগর সময়
অন্যান্য সময়
তথ্য প্রযুক্তির সময়
রাশিফল
লাইফস্টাইল
ভ্রমণ
প্রবাসে সময়
সাক্ষাৎকার
মুক্তকথা
বাণিজ্য মেলা
রসুই ঘর
বিশ্বকাপ গ্যালারি
বইমেলা
উত্তাল মার্চ
সিটি নির্বাচন
শেয়ার বাজার
জাতীয় বাজেট
বিপিএল
শিক্ষা সময়
ভোটের হাওয়া
স্বাস্থ্য
ধর্ম
চাকরি
পশ্চিমবঙ্গ
ফুটবল বিশ্বকাপ
ভাইরাল
সংবাদ প্রতিনিধি
বিশ্বকাপ সংবাদ
Latest News
এক্সক্লুসিভ লাইভ
বিপিএল ২০২০

করোনা ভাইরাস লাইভ

আপনিও লিখুন
ছবি ভিডিও টিভি আর্কাইভ
মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন
GoTop