মহানগর সময় নতুন নিয়মে ‘বন্ধ হবে’ রেলের টিকেট কালোবাজারি

০৯-০৩-২০১৯, ১০:৫৭

কমল দে

fb tw
টিকেট কালোবাজারির লাগাম টানতে এবার ঢাকা-চট্টগ্রাম, খুলনা, রাজশাহী, সিলেটসহ মোট ৯টি ট্রেনের টিকেট কিনতে জাতীয় পরিচয়পত্র অথবা জন্ম নিবন্ধন কার্ড প্রদর্শন বাধ্যতামূলক করেছে রেলওয়ে। ১১ মার্চ টিকিট বিক্রির সময় থেকে এ নিয়ম কার্যকর হবে।
পর্যায়ক্রমে বাকি ট্রেনগুলোও এ নিয়মের আওতায় আসবে বলে জানিয়েছে রেল কর্তৃপক্ষ।
‘কাউন্টারে টিকেট নেই কিন্তু কালোবাজারিদের কাছে টিকেট পাওয়া যাচ্ছে। এমনকি মুচিদের কাছেও টিকেট আছে।’ যাত্রার ৯ দিন আগে এসেও কাঙ্ক্ষিত টিকেট না পেয়ে ক্ষুব্ধ এক যাত্রী ক্ষোভ প্রকাশ করলেন এভাবেই। এ ধরনের ক্ষোভ টিকেট কিনতে আসা শত শত যাত্রীর। চাহিদার তুলনায় টিকেটের স্বল্পতার পাশাপাশি টিকেট কালোবাজারির অভিযোগ তাদের। 
এ অবস্থায় কালোবাজারি প্রতিরোধে ব্যবস্থা নিতে যাচ্ছে রেলওয়ে কর্তৃপক্ষ। ১১ মার্চ থেকে চট্টগ্রাম-ঢাকা রুটে চলাচলকারী আন্তঃনগর ট্রেন সুবর্ণ এক্সপ্রেস, মহানগর প্রভাতী, গৌধূলী এবং তূর্ণা নিশীতার টিকেট কিনতে জাতীয় পরিচয় পত্র বা জন্ম নিবন্ধন প্রদর্শন বাধ্যতামূলক করা হয়েছে।
চট্টগ্রাম রেলওয়ের স্টেশন ম্যানেজার আবুল কালাম আজাদ বলেন, যাত্রীরা যাতে কালোবাজারিদের থেকে টিকেট নিয়ে ভ্রমণ করতে না পারেন সেটা নিশ্চিত করতে পর্যায়ক্রমে কার্যক্রম শুরু হবে। ভোটার আইডি কার্ড দেখে টিকেট বিক্রির কার্যক্রম আগামী ১১ মার্চ থেকে শুরু হবে।
অবশ্য এক মাস আগে পরীক্ষামূলকভাবে ঢাকা-চট্টগ্রাম রুটের সোনার বাংলা এক্সপ্রেসে এনআইডি সিস্টেম চালু করা হয়েছে। এখন থেকে আন্তঃনগর ট্রেনের প্রথম শ্রেণি এবং শীততাপ নিয়ন্ত্রিত কক্ষগুলোর প্রতিটি যাত্রীর টিকেটে তার যাবতীয় তথ্য থাকবে। এ অবস্থায় কালোবাজারিরা টিকেট কিনতে নিরুৎসাহিত হবে বলে মনে করছেন যাত্রীরা।
ঢাকা-রাজশাহী রুটে পদ্মা এক্সপ্রেস, ঢাকা-খুলনা রুটে চিত্রা এক্সপ্রেস, ঢাকা-পঞ্চগড় রুটের দ্রুতযান এক্সপ্রেস এবং ঢাকা-সিলেট রুটের পারাবত এক্সপ্রেসেও এ নিয়ম কার্যকর হবে। তবে এ নিয়ে যাত্রীদের ভিন্নমতও রয়েছে।
এক যাত্রী বলেন, আমি ছাত্র। আমার এখনও এনআইডি করা হয়নি। আমার মতো যাদের এনআইডি নেই তারা কীভাবে রেলের টিকেট কিনবেন?
কালোবাজারি প্রতিরোধের পাশাপাশি প্রকৃত যাত্রীদের যাত্রা নিশ্চিত করতে চলন্ত ট্রেনেই টিকেটে উল্লেখিত তথ্য এবং যাত্রীদের পরীক্ষা করবে রেলওয়ে কর্তৃপক্ষ।
রেলওয়ে পূর্বাঞ্চলের মহাব্যবস্থাপক সৈয়দ ফারুক আহমেদ বলেন, ইচ্ছা করলেও কোনো যাত্রী কালোবাজারির কাছে থেকে টিকেট কিনে ভ্রমণ করতে পারবেন না। তখন কালোবাজারিও টিকেট কিনবেন না কারণ তিনি কারও কাছে বিক্রিও করতে পারবেন না।
রেলওয়ে পূর্ব এবং পশ্চিমাঞ্চলে বছরে সাড়ে তিন কোটির বেশি যাত্রী ট্রেনে ভ্রমণ করেন। চট্টগ্রাম থেকে প্রতিদিন ১০টি আন্তঃনগরসহ মোট ৬২টি যাত্রীবাহী ট্রেন চলাচল করছে।

করোনা ভাইরাস লাইভ

বাংলার সময়
বাণিজ্য সময়
বিনোদনের সময়
খেলার সময়
আন্তর্জাতিক সময়
মহানগর সময়
অন্যান্য সময়
তথ্য প্রযুক্তির সময়
রাশিফল
লাইফস্টাইল
ভ্রমণ
প্রবাসে সময়
সাক্ষাৎকার
মুক্তকথা
বাণিজ্য মেলা
রসুই ঘর
বিশ্বকাপ গ্যালারি
বইমেলা
উত্তাল মার্চ
সিটি নির্বাচন
শেয়ার বাজার
জাতীয় বাজেট
বিপিএল
শিক্ষা সময়
ভোটের হাওয়া
স্বাস্থ্য
ধর্ম
চাকরি
পশ্চিমবঙ্গ
ফুটবল বিশ্বকাপ
ভাইরাল
সংবাদ প্রতিনিধি
বিশ্বকাপ সংবাদ
Latest News
এক্সক্লুসিভ লাইভ
বিপিএল ২০২০

করোনা ভাইরাস লাইভ

আপনিও লিখুন
ছবি ভিডিও টিভি আর্কাইভ
মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন
GoTop