খেলার সময় ‘ওদের নিয়ে আমি আশাবাদী’

১১-১০-২০১৮, ০৩:০৯

তারেকুজ্জামান শিমুল

fb tw
 ‘ওদের নিয়ে আমি আশাবাদী’
ভাল খেলেও হেরে যাওয়াটা নিশ্চয়ই হতাশাজনক। তবে ফুটবলারদের মাঠের পারফরম্যান্সে সন্তুষ্ট বাংলাদেশ জাতীয় ফুটবল দলের কোচ জেমি ডে। বড় দলগুলোর বিপক্ষে ইতিবাচক পারফরম্যান্স করায় আশাবাদী কোচ। তাছাড়া এশিয়ান গেমস থেকে শুরু করে প্রতিটি টুর্নামেন্টে দল উন্নতি করেছে বলেও মত তার।
 
এবারো হলো না। দেশের ফুটবলে আরো একবার হতাশ করল ছেলেরা। প্রত্যাশা আর প্রাপ্তির ফারাকটা এবারো রয়ে গেল সমান দূরূত্বে। বঙ্গবন্ধু গোল্ডকাপকে ঘিরে নতুন দিনের যে স্বপ্ন ফুটবলাররা দেখিয়ে ছিল তা শেষ হলো সেমিফাইনাল হেরে।
দলটাকে ঘিরে কি এতটুকু সম্ভাবনা দেখছেন কেউ? কেউ দেখুক আর না দেখুক, তবে জাতীয় দলের ইংলিশ এই কোচের কথায় নিশ্চয়ই আশাবদী হবেন সবাই। আসর জুড়ে মাঠের পারফরম্যান্সে ছেলেদের উন্নতির ছাপটা তিনি দেখেছেন কাছ থেকে। যা র‌্যাংকিংয়ে এগিয়ে থাকা দলগুলোর বিপক্ষে ইতিবাচক ফুটবল খেলতে সক্ষম করেছে ফুটবলারদের। অন্তত ফিলিস্তিনের বিপক্ষের পারফরম্যান্সের স্তুতি ঝরলো কোচের মুখে।
জেমি ডে বলেন, ‘দেখুন দিনশেষে সবাই ফলাফল দেখতে চায়। কিন্তু আমরা সেটা এনে দিতে পারিনি। তবে ছেলেরা মাঠের পারফর্ম্যান্সে এগিয়ে ছিলো। আমরা প্রতিপক্ষের মতো এতো বড় দল নই। কিন্তু আমাদের পাসিং, বল দখল ওদের চেয়ে অনেক ভালো ছিলো। ফলাফল নিজেদের পক্ষে না আসায় কিছুটা হতাশ। তবে ওদের নিয়ে আমি আশাবাদী।’
দেখুন দিন শেষে সবাই ফলাফল দেখতে চায়। কিন্তু আমরা সেটা এনে দিতে পারিনি। তবে ছেলেরা মাঠের পারফরম্যান্সে এগিয়ে ছিল। আমরা প্রতিপক্ষের মতো এতো বড় দল নই। তবে আমাদের পাসিং, বল দখল ওদের থেকে অনেক ভাল ছিল। ফলাফল নিজেদের পক্ষে না আসায় কিছুটা হতাশ, তবে ওদের নিয়ে আমি আশাবাদী।
জেমি ডে দায়িত্ব নেয়ার পর দল খেলেছে তিনটি টুর্নামেন্ট। ফলাফল বলতে কয়েকটি ম্যাচ জয়। কোচ অবশ্য এভাবে মূল্যায়ন করতে চান না দলকে। এশিয়ান গেমস থেকে শুরু করে সাফ হয়ে বঙ্গবন্ধু গোল্ডকাপে উন্নতি করেছে ফুটবলাররা। কিন্তু একটা জায়গায় আক্ষেপ রয়েছে। ফিনিশিংটা হচ্ছেনা মন মতো।
তিনি বলেন, ‘আপনি যদি এশিয়ান গেমস থেকে ছেলেদের খেলা দেখেন, ণিশ্চয়েই বুঝতে পারবেন ওদের উন্নতিটা। প্রতিটা টুর্নামেন্টেই কিছু কিছু উন্নতি করেছে ছেলেরা। কিন্তু মূল যে সমস্যা- সেই ফিনিশিংটা এখনও ঠিক হচ্ছে না। এটি চিন্তার কারণ।’
আপনি যদি এশিয়ান গেমস থেকে ছেলেদের খেলা দেখেন। নিশ্চয়ই বুঝতে পারবেন ওদের উন্নতিটা। প্রত্যকটা টুর্নামেন্টে কিছু কিছু উন্নতি করেছে ছেলেরা। কিন্তু মূল যে সমস্যা সেই ফিনিশিংটা এখনো ঠিক হচ্ছে না। যেটি চিন্তার কারণ।
তবে দলটাকে গোছাতে আরেকটু সময় চাইলেন কোচ। এই ইংলিশের প্রত্যাশা একে একে কেটে যাবে সব দুর্বলতা। সুদিন ফিরবে দেশের ফুটবলে। এরাই হয়ত নতুন গল্প লিখে উজ্জল করবে লাল সবুজের পতাকা। 

করোনা ভাইরাস লাইভ

আরও সংবাদ

করোনা ভাইরাস লাইভ ›

লাইভ অনুষ্ঠান বুলেটিন ছবি ভিডিও টিভি আর্কাইভ
বাংলার সময়
বাণিজ্য সময়
বিনোদনের সময়
খেলার সময়
আন্তর্জাতিক সময়
মহানগর সময়
অন্যান্য সময়
তথ্য প্রযুক্তির সময়
রাশিফল
লাইফস্টাইল
ভ্রমণ
প্রবাসে সময়
সাক্ষাৎকার
মুক্তকথা
বাণিজ্য মেলা
রসুই ঘর
বিশ্বকাপ গ্যালারি
বইমেলা
উত্তাল মার্চ
সিটি নির্বাচন
শেয়ার বাজার
জাতীয় বাজেট
বিপিএল
শিক্ষা সময়
ভোটের হাওয়া
স্বাস্থ্য
ধর্ম
চাকরি
পশ্চিমবঙ্গ
ফুটবল বিশ্বকাপ
ভাইরাল
সংবাদ প্রতিনিধি
সর্বশেষ সংবাদ
অনুসদ্ধান
মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন
GoTop