বাংলার সময় দৈন্যদশায় ত্রিশালের নজরুল স্মৃতিকেন্দ্র

২৫-০৫-২০১৮, ১২:৫১

হারুনুর রশিদ

fb tw
জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলামের বাল্যস্মৃতি বিজড়িত ময়মনসিংহের ত্রিশালের কাজীর শিমলা দারোগা বাড়ি ও বিচ্যুতিয়া বেপারি বাড়ি। এ বাড়ির আঙিনায় নির্মিত নজরুল স্মৃতিকেন্দ্রে দিনদিন দর্শনার্থী বাড়লেও বাড়ছে না নজরুলের নিদর্শন। ভবনটিরও দৈন্যদশা। ছাদ চুঁইয়ে পানি পড়ে। জনবল সংকটে কাজ করতে সমস্যা হচ্ছে বলে জানান স্মৃতিকেন্দ্রের সহকারী পরিচালক। উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা বলছেন, স্মৃতিকেন্দ্র দুটি জেলা বা উপজেলা প্রশাসনের কাছে হস্তান্তর করলে তদারকি ও উন্নয়ন নিশ্চিত হবে।  
 
নজরুল প্রতিভায় মুগ্ধ হয়ে ১৯১৪ সালে আসানসোল থেকে ত্রিশালের কাজির শিমলার দারোগা বাড়িতে নজরুলকে নিয়ে আসেন কাজি রফিজ উল্লাহ দারোগা। কিছুদিন পর নজরুল জায়গীর হিসেবে চলে যান পার্শ্ববর্তী নামাপাড়ার এলাকার বিচ্যুতিয়া ব্যাপারি বাড়িতে। নজরুলের স্মৃতিধন্য এ দুটি বাড়ির আঙিনায় স্থাপিত হয়েছে দুটি ‘নজরুল স্মৃতিকেন্দ্র ও জাদুঘর’। স্মৃতিকেন্দ্র দুটিতে নজরুলের বিরল সব ছবি, স্ব-হস্তে লেখা গান-কবিতা, তাঁর ব্যবহৃত পালঙ্ক, গ্রামোফোন রেকর্ড দেখে বিমোহিত হন দর্শনার্থীরা। তবে ভবনের দৈন্যদশা, নজরুলের স্মৃতিচিহ্নগুলোর সংগ্রহ না বাড়া এবং লাইব্রেরিতে বইয়ের অপর্যাপ্ততায় প্রত্যাশিত চাহিদা পুরণ হচ্ছে না। 
এক দর্শনার্থী বলেন, ‘উনার ব্যবহার্য একটা কলের গান আছে। যেটাকে স্পর্শ করলে মনে হয়, আমি নজরুলকে অনুভব করছি।’
আরেক দর্শনার্থী বলেন, ‘স্মৃতিকেন্দ্রে এসে খুব ভালো লাগে। তার কবিতা, গান লেখা- সবই আছে।’ 
এক দর্শনার্থী অভিযোগ করেন, ‘প্রথম দিকের যে ছবিগুলো, সেগুলোই আছে। এখনও পর্যন্ত নতুন কিছু যোগ করা হয়নি।’
আরেকজন জানান, ‘ছাদ দিয়ে পানি পড়ার কারনে ভেতরের জিনিসপত্রগুলো নষ্ট হয়ে যচ্ছে।’   
স্মৃতিকেন্দ্রের সহকারী পরিচালক জানালেন, জনবল সংকট ও ভবনের ছাদ চুইয়ে পানি পড়ায় সমস্যা হচ্ছে।
নজরুল স্মৃতিকেন্দ্র ও জাদুঘরের সহকারী পরিচালক মো. আক্তারুজ্জামান মন্ডল বলেন, ‘আমাদের জনবলের সবাই যদি থাকে, তাহলে আমরা সুষ্ঠুভাবে কার্য সম্পাদন করতে পারি। ছাদ থেকে পানি চুঁইয়ে পড়ার ব্যাপারে পদক্ষেপ নেয়া হয়েছে।’
উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আবু জাফর রিপন বলছেন, স্মৃতিকেন্দ্র দুটি জেলা বা উপজেলা প্রশাসনের কাছে হস্তান্তর করে দিলে তদারকি ও উন্নয়ন কার্যক্রম নিশ্চিত হবে। 
তিনি বলেন, ‘মন্ত্রণালয়ের অধীনে থাকায় আমরা সরাসরি হস্তক্ষেপ করতে পারি না। জেলা প্রশাসনের উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষ যারা রয়েছেন, তারা বলেছেন খুব দ্রুতই মন্ত্রণালয়ের সঙ্গে এটি নিয়ে তারা যোগাযোগ করবেন।’ 
২০০৮ সালে ত্রিশালের কাজীর শিমলা দারোগা বাড়ি ও বিচ্যুতিয়া বেপারি বাড়ির আঙ্গিনায় ‘নজরুল স্মৃতিকেন্দ্র ও জাদুঘর’ নির্মাণ করে সংস্কৃতি মন্ত্রণালয়। নজরুল ইনস্টিটিউটের মাধ্যমে এটি পরিচালিত হয়।  
 

করোনা ভাইরাস লাইভ

আরও সংবাদ

stay home stay safe
বাংলার সময়
বাণিজ্য সময়
বিনোদনের সময়
খেলার সময়
আন্তর্জাতিক সময়
মহানগর সময়
অন্যান্য সময়
তথ্য প্রযুক্তির সময়
রাশিফল
লাইফস্টাইল
ভ্রমণ
প্রবাসে সময়
সাক্ষাৎকার
মুক্তকথা
বাণিজ্য মেলা
রসুই ঘর
বিশ্বকাপ গ্যালারি
বইমেলা
উত্তাল মার্চ
সিটি নির্বাচন
শেয়ার বাজার
জাতীয় বাজেট
বিপিএল
শিক্ষা সময়
ভোটের হাওয়া
স্বাস্থ্য
ধর্ম
চাকরি
পশ্চিমবঙ্গ
ফুটবল বিশ্বকাপ
ভাইরাল
সংবাদ প্রতিনিধি
বিশ্বকাপ সংবাদ
Latest News
এক্সক্লুসিভ লাইভ
বিপিএল ২০২০

করোনা ভাইরাস লাইভ

আপনিও লিখুন
ছবি ভিডিও টিভি আর্কাইভ
মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন
GoTop