খেলার সময় ২৬ বছরে নেইমার, এ বয়সে কেমন ছিলো মেসি-রোনালদোর অর্জন

০৬-০২-২০১৮, ২১:৪৯

মামুন শেখ

fb tw
২৬ বছরে নেইমার, এ বয়সে কেমন ছিলো মেসি-রোনালদোর অর্জন
গতকাল (সোমবার) ২৬ বছরে পা দিয়েছেন বিশ্বের সবচেয়ে দামি ফুটবলার নেইমার। ব্রাজিল জাতীয় দল কিংবা ক্লাব প্যারিস সেন্ট জার্মেই, সবখানেই ক্যারিয়ারের বসন্ত পার করছেন।
২০০৯ সালে অভিষেকের পর থেকে এখন পর্যন্ত দু'টি লা লিগা, একটি চ্যাম্পিয়ন্স লিগ, একটি কনফেডারেশন কাপ, অলিম্পিক গোল্ড মেডেল, ফিফা ক্লাব বিশ্বকাপ এবং কোপা লিবারতোদোরেস জিতেছেন। ব্রাজিলের জার্সি গায়ে এরইমধ্যে ৫৩টি গোল করে পেলের সর্বোচ্চ গোলের রেকর্ডকে চোখ রাঙাচ্ছেন।
বয়সের তুলনায় অর্জনের পাল্লাটা একটু বেশিই নেইমারের। তবে সময়ের সেরা দুই তারকা লিওনেল মেসি এবং ক্রিস্টিয়ানো রোনালদোর যুগে জন্ম নেয়াটাকে নেইমারের জন্য দুর্ভাগ্য বলা যেতেই পারে। নেইমারের তুলনায় মেসি-রোনালদোকে বুড়োই বলা চলে। ব্রাজিলিয়ান তারকার চেয়ে পাকা সাত বছরের বড় রোনালদো। সে হিসেবে সাবেক ক্লাব সতীর্থ মেসির সঙ্গে বয়সের তুলনা কম, চার বছর।
মেসি-রোনালদো এখন পরিণত। তবে ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডের বাম প্রান্ত দিয়ে দুরন্ত ঘোড়ার মতো ছোটা সেই রোনালদো এখন অতীত। রিয়ালের সাদা পোশাকে গতি কিংবা শক্তির ওপরে নয়, সফলতার জন্য সিআর সেভেনের ভরসা এখন ক্যারিয়ারজুড়ে অর্জন করা টেকনিকগুলোতে। মেসির ক্ষেত্রেও কথাটা প্রায় একইভাবে প্রযোজ্য। লম্বা চুলের সেই ক্ষিপ্র চিতাকে আর খুঁজে পাওয়া যায় না মেসির মধ্যে। মাঝ মাঠ থেকে একক প্রচেষ্টায় ছয় খেলোয়াড়কে কাটিয়ে জাল কাপিয়ে দেয়া সেই মেসিও এখন আর নেই। সেও এখনও রোনালদোর পন্থায় হাঁটেন। নেকড়ের মতো সুযোগের অপেক্ষায় ঘাপটি মেরে থাকেন। যদিও তারুণ্যের সেই চিতার চেয়ে আজকের এই নেকড়েই বেশি সফল। তারপরেও যৌবন বলে একটা কথা আছে।
নেইমার আজ তার ক্যারিয়ারের বসন্তে। এমন সময় পার করে এসেছেন মেসি-রোনালদো। ছাব্বিশতম বসন্তে কেমন ছিলো মেসি, রোনালদোর অর্জন। নেইমারের অর্জনই বা কেমন। একটু তুলনা করা যাক-
ক্রিস্টিয়ানো রোনালদো:
আজ (বুধবার) ৩৩ এ পা দিলেন রোনালদো। ২০১১ সালের আজকের দিনে ২৬ এ পা দিয়েছিলেন তিনি। তখন ছিলেন ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডে। তখন পর্যন্ত মোট ৪৭১ ম্যাচে তার গোল ছিলো ২১৩টি। সতীর্থদের দিয়ে গোল করিয়েছিলেন ৮৯টি। আর ৩০২টি গোলে ছিলো সরাসরি অবদান। এরইমধ্যে প্রথম ব্যালন ডি'অর হাতে তুলেছিলেন, জিতেছিলেন একটি গোল্ডেন সু'ও।
লিওনেল মেসি:
২০১৩ সালের ২৪ জুন ২৬ বছরে পা দেন মেসি। বার্সার এ প্রাণভোমরা তখন পর্যন্ত সবমিলিয়ে ৪৬১ ম্যাচে ৩৪৮টি গোল করেছিলেন। গোলে অ্যাসিস্ট করেছিলেন ১৩৮টি। আর ৪৮৬টি গোলে ছিলো সরাসরি অবদান। এসময়ের মধ্যে রোনালদোকে পেছনে ফেলে চারটি ব্যালন ডি'অর জিতে নিয়েছিলেন তিনি। শোকেসে পুরেছিলেন সর্বোচ্চ গোলদাতার পুরস্কার হিসেবে তিনটি গোল্ডেন সু।
নেইমার:
এখন পর্যন্ত সব মিলিয়ে ৫২০টি প্রিতযোগিতামূলক ম্যাচে মাঠে নেমেছেন নেইমার। গোল করেছেন ৩২১টি। সতীর্থদের দিয়ে গোল করিয়েছেন ১৭১টি। আর ৪৯২টি গোলে সরাসরি অবদান রেখেছেন। এখন পর্যন্ত কোন ব্যালন ডি'র কিংবা গোল্ডেন সু'র দেখা পাননি ব্রাজিলিয়ান তারকা।
কে এগিয়ে:
পরিসংখ্যান বলছে ছাব্বিশ বছর বয়সে নেইমার এবং রোনালদোর তুলনা এগিয়ে ছিলেন মেসি। গোলের সংখ্যা, ব্যালন ডি'অর এবং গোল্ডেন সু জয়ের দিক তাদের পেছনে ফেলেছেন এ আর্জেন্টাইন। তবে ম্যাচ খেলা এবং গোল অ্যাসিস্টের সংখ্যায় এগিয়ে আছেন নেইমার। তবে বিশ্ব-ফুটবলে নিজের শক্তিশালী অবস্থান তৈরি করতে সক্ষম হলেও এখন পর্যন্ত ব্যালন ডি'অর কিংবা ফিফা বর্ষসেরার দৌড়ে মেসি-রোনালদোর সঙ্গে পেরে উঠছেন না নেইমার। এখন দেখার বিষয় ৩০ বছর বয়সে মেসিকে এবং ৩৩এ রোনালদোকে পেছনে ফেলতে পারেন কিনা এ ব্রাজিলিয়ান।

করোনা ভাইরাস লাইভ

বাংলার সময়
বাণিজ্য সময়
বিনোদনের সময়
খেলার সময়
আন্তর্জাতিক সময়
মহানগর সময়
অন্যান্য সময়
তথ্য প্রযুক্তির সময়
রাশিফল
লাইফস্টাইল
ভ্রমণ
প্রবাসে সময়
সাক্ষাৎকার
মুক্তকথা
বাণিজ্য মেলা
রসুই ঘর
বিশ্বকাপ গ্যালারি
বইমেলা
উত্তাল মার্চ
সিটি নির্বাচন
শেয়ার বাজার
জাতীয় বাজেট
বিপিএল
শিক্ষা সময়
ভোটের হাওয়া
স্বাস্থ্য
ধর্ম
চাকরি
পশ্চিমবঙ্গ
ফুটবল বিশ্বকাপ
ভাইরাল
সংবাদ প্রতিনিধি
বিশ্বকাপ সংবাদ
Latest News
এক্সক্লুসিভ লাইভ
বিপিএল ২০২০

করোনা ভাইরাস লাইভ

আপনিও লিখুন
ছবি ভিডিও টিভি আর্কাইভ
মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন
GoTop